হোম / দিফায়ে ফিক্বহে হানাফী

দিফায়ে ফিক্বহে হানাফী

জুমআর খুৎবা মাতৃভাষায় দেয়া সুন্নাহ সম্মত?

আবূ মুয়াবিয়া লুৎফুর রহমান ফরায়েজী জুমআর খুতবা অন্য কোন ভাষায় প্রদান করা বিদআত। আরবী ছাড়া অন্য কোন ভাষায় খুতবা প্রদান করা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এবং পরবর্তীতে কোন সাহাবী থেকেই প্রমাণিত নয়। নবীজী সাঃ এর মৃত্যুকালের শেষ সময়ে আরবের বাহিরের অনেক অনারবী মুসলমানই মসজিদে নববীতে এসে নামায পড়তো। কিন্তু কোনদিনও …

আরো পড়ুন

হানাফীরা ইমাম মাহদী ও ঈসা আলাইহিস সালামের মাযহাব কিভাবে মানবে?

প্রশ্ন আপনাদের সাইটে একটি প্রশ্নোত্তর প্রকাশিত হয়েছে। যা নিম্নরূপঃ প্রশ্ন “ভবিষ্যতে যখন ইমাম মাহদি ও ঈসা (আঃ) আসবেন, তখন তারা কি সালাফি হয়ে আসবেন নাকি হানাফি, হাম্বলি, শাফেয়ী, মালেকী? তারা কোন মাজহাবের ফিকহ অনুসরন করবেন? উত্তর মুজতাহিদের জন্য কোন মাযহাবের অনুসারী হতে হয় না। হযরত ঈসা আঃ এবং হযরত মাহদী …

আরো পড়ুন

তারাবীহ শব্দ কি হাদীস দ্বারা প্রমাণিত নয়?

প্রশ্ন তারাবীহ শব্দটি কোন হাদিস দ্বারা প্রমাণিত কি? উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم তারাবীহ শব্দটি সাহাবায়ে কেরাম এবং তাবেয়ীগণের বক্তব্যের আলোকে প্রমাণিত। তারাবীহ শব্দটি বহুবচন। যার এক বচন হল, ‘তারবীহাতুন’। যার অর্থ হল, চার রাকাআত পর একবার বিশ্রাম নেয়া। তিনের অধিক পরিমাণ চার রাকাআত পরপর বিশ্রাম নেবার নাম হল, ‘তারাবীহ’। …

আরো পড়ুন

সুবহে সাদিক ও ফজরের সময় নিয়ে বিভ্রান্তি ও প্রমাণিক নিরসন

بسم لله الرحمن الرحيم ভূমিকা মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল মালেক الحمد لله وسلام على عباده الذين اصطفى، أما بعد! সময়মতো নামায আদায় করা প্রত্যেক মুকাল্লাফ ব্যক্তির উপর ফরয। এজন্য নামাযের সময়ের ব্যাপারে সাধারণ জ্ঞান রাখাও সকলের উপর ফরয। তবে প্রত্যেক নামাযের সময়সূচী বিস্তারিতভাবে জানা, এর শুরু-শেষ সম্পর্কে দালীলিকভাবে অবগত হওয়া এবং …

আরো পড়ুন

বিতর সালাত সম্পর্কে মুযাফফর বিন মুহসিনের নজীরবিহীন প্রতারণা ও জালিয়াতি

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু মুযাফফর বিন মুহসিন তার ‘জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) এর ছালাত’ বইয়ে বিতর নামায সম্পর্কেও অনেক জালিয়তি ও ভুল তথ্য পেশ করেছেন। তিনি চেষ্টা করেছেন একথা প্রমাণ করার যে, বিতর ছালাত এক রাকাত অথবা তিন রাকাত হলে দুই সালামে কিংবা দ্বিতীয় রাকাতে বৈঠক ব্যতিত এক …

আরো পড়ুন

মুযাফফর বিন মুহসিন কেন জাল হাদীসের কবলে? আল্লামা আলবানী একাডেমীর অবিশ্বাস্য জালিয়াতি

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু লেখক মুযাফফর বিন মুহসিন তার  জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ছালাত বইতে হানাফী জাল হাদীস ধরার জন্য যেন জাল পেতেছেন। অবশেষে নিজের পাতা জালে নিজেই আটকা পড়েছেন। মানসুখ কাহিনী : ঐতিহাসিক মিথ্যাচার শিরোনামে তিনি রাসূল সা. যে সারা জীবন রফয়ে ইয়াদায়ন করেছেন তার …

আরো পড়ুন

রফউল ইয়াদাইনের মাসআলায় মুযাফফর বিন মুহসিনের আজব প্রতারণা

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু এ মাসআলায় আমাদের লা-মাযহাবী বন্ধু মুযাফফর বিন মুহসিন তার জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের ছালাত নামক বইটিতে বলেছেন: ‘জ্ঞাতব্য : রাফউল ইয়াদায়েনের সুন্নাতকে রহিত করার জন্য আব্দুল্লাহ ইবনু জুবাইর, আব্দুল্লাহ ইবনু আব্বাস, আব্দুল্লাহ ইবনু মাসউদ (রা.) এই অন্যতম শ্রেষ্ঠ কয়েকজন ছাহাবীর নামে উক্ত …

আরো পড়ুন

শুধু তাকবীরে তাহরীমার সময় রফয়ে ইয়াদাইন সুন্নত

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু একাধিক হাদীস ও অধিকাংশ সাহাবী ও তাবেয়ীর আমল একথা প্রমাণ করে যে, নামাযে শুধু প্রথম তাকবীরের সময় কান পর্যন্ত হাত তোলা সুন্নত। রুকুতে যাওয়ার সময় এবং রুকু থেকে ওঠার সময় হাত তোলা সুন্নত নয়। সাহাবীগনের যুগে মদীনা শরীফ এবং কুফা এই দুটি শহরেই অধিকাংশ সাহাবী …

আরো পড়ুন

স্বশব্দে আমীন বলার হাদীসগুলো কী সহীহ?

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু জোরে আমীন বলার হাদীস : একটু পর্যালোচনা জোরে আমীন বলা সম্পর্কিত হাদীসগুলি সম্পর্কে মূল কথা হলো, যেটি সহীহ, সেটি সুস্পষ্ট(صريح) নয়। আর যেটি সুস্পষ্ট সেটি সহীহ নয়। যেমন: ১ বুখারী ও মুসলিম প্রভৃতি গ্রন্থে اذا امن الامام فامنوا হাদীসটি উদ্ধৃত হয়েছে। এ বাক্যটির একটি অর্থ …

আরো পড়ুন

সহীহ হাদীসের আলোকে নামাযে নিরবে আমীন বলা সুন্নত

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু আমীন সম্পর্কেও কিছু লোক বাড়াবাড়ি করে। তারা বলে নামাযে আমীন জোরে বলতে হবে। আস্তে বলা সুন্নতের পরিপন্থী। তাদের একথা সঠিক নয়। হাদীস শরীফ, অধিকাংশ সাহাবী ও তাবেয়ী’র আমল দ্বারা একথাই প্রমাণিত হয় যে, আমীন আস্তে বলাই সুন্নত। নিমস্বরে আমীন বলা অধিকাংশ সাহাবী ও তাবেয়ীর আমল …

আরো পড়ুন

উমরী কাযা মাসআলায় কয়েকটি জরুরী জ্ঞাতব্য

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু আগের লেখাটি পড়ে নিনঃ কুরআন ও সুন্নাহের আলোকে উমরী কাযার বিধান   ১. আলোচ্য মাসআলার শিরোনামটি ‘উমরী কাযা’ সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রসিদ্ধির নিরিখেই অবলম্বন করা হয়েছে। অন্যথায় এর সঠিক নাম হবে قضاء الفوائت ‘কাযাউল ফাওয়াইত’। এ নামটিই বিষয়বস্তুর অধিক উপযুক্ত । কেননা ‘উমরী কাযা’ নামে …

আরো পড়ুন