হোম / দিফায়ে আকাবির

দিফায়ে আকাবির

ইসলামের অপব্যাখ্যাকারীদের নাম নিয়ে দোষ বলা কি নিষিদ্ধ গীবতের অন্তর্ভূক্ত?

প্রশ্ন From: মোঃরাসেল বিষয়ঃ গীবত বিষয়ে প্রশ্নঃ হযরত আমার প্রশ্ন হল গীবত করা হরাম তা জানি কিন্তু শুনেছি কিছু গীবত করা জায়েজ তা যানাবেন। আর একটা প্রশ্ন হল আমি যদি ইসলামের অপব্যখ্যা করে (আহলে হাদীস), নবীর নামে ভুল হাদিস বলে এমন ব্যক্তির নাম নিয়ে Facebook ,internet, বা সাধারন মানুষকে তাদের …

আরো পড়ুন

তাবীজ-তামীমা ও ঝাড়ফুঁকঃ কী বলে শরীয়ত? (শেষ পর্ব)

মাওলানা এমদাদুল হক ১ম পর্বটি পড়তে ক্লিক করুন ২য় পর্বটি পড়তে ক্লিক করুন ইমাম মালেক রাহ. ও ইমাম আহমাদ বিন হাম্বল রাহ. ইমাম মালেক রাহ.-কে জিজ্ঞাসা করা হয়- قيل : فيكتب للمحموم القرآن؟ قال: لابأس به، ولابأس أن يرقى بالكلام الطيب، ولا بأس بالمعاذة تعلق، وفيها القرآن وذكر الله إذا …

আরো পড়ুন

তাবীজ-তামীমা ও ঝাড়ফুঁকঃ কী বলে শরীয়ত? (২য় পর্ব)

মাওলানা এমদাদুল হক ১ম পর্বটি পড়তে ক্লিক করুন তাবীয কি শিরক? তাবীয ব্যবহারকারীদের মধ্যে যেমন সীমালঙ্ঘন দেখা যায়; নির্দ্বিধায় ‘মুনকার’ ও শিরকী তাবীয আদান-প্রদান ও ব্যবহার করতে দেখা যায় তেমনিভাবে কাউকে কাউকে দেখা যায়, আল্লাহর নামের যিকির, কুরআনের আয়াত বা দুআ সম্বলিত বৈধ তাবীযকে শিরক বলে বেড়াতে। শত শত তাওহীদী …

আরো পড়ুন

তাবীজ-তামীমা ও ঝাড়ফুঁকঃ কী বলে শরীয়ত? (১ম পর্ব)

মাওলানা এমদাদুল হক সমাজে লক্ষ করলে দেখা যায়, আমরা অন্য অনেক কিছুর মত ঝাড়ফুঁক-তাবীয ব্যবহারের ক্ষেত্রেও বেশ সীমালঙ্ঘন করে চলেছি। আবার ইদানীং কোনো কোনো মহল তাবীযকে ঢালাওভাবে শিরক বলে মুসলমানদের মাঝে এ বিষয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির প্রয়াস চালাচ্ছে। তাই এ বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনামূলক দালীলিক আলোচনা জরুরি মনে হচ্ছে এবং সীমালঙ্ঘনগুলো চিহ্নিত …

আরো পড়ুন

সাহাবায়ে কেরামের মর্যাদা ও সাহাবা সমালোচকদের পরিণতি

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সাহাবাগণের মর্যাদা ও ফযীলত কুরআন ও হাদীসের মাঝে বিস্তারিতভাবে বর্ণনা করা হয়েছে। কুরআন বা হাদীসে কোথাও সাহাবাগণের মাঝে ভাল মন্দের কোন পার্থক্য করা হয়নি। বরং সকলকেই হক ও হক্কানিয়্যাতের প্রতিচ্ছবি হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এখানে সংক্ষিপ্তাকারে সাহাবায়ে কেরামের মর্যাদা ও ফযীলত সম্পর্কে …

আরো পড়ুন

সুবহে সাদিক ও ফজরের সময় নিয়ে বিভ্রান্তি ও প্রমাণিক নিরসন

بسم لله الرحمن الرحيم ভূমিকা মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুল মালেক الحمد لله وسلام على عباده الذين اصطفى، أما بعد! সময়মতো নামায আদায় করা প্রত্যেক মুকাল্লাফ ব্যক্তির উপর ফরয। এজন্য নামাযের সময়ের ব্যাপারে সাধারণ জ্ঞান রাখাও সকলের উপর ফরয। তবে প্রত্যেক নামাযের সময়সূচী বিস্তারিতভাবে জানা, এর শুরু-শেষ সম্পর্কে দালীলিকভাবে অবগত হওয়া এবং …

আরো পড়ুন

নামাযের মধ্যে ইচ্ছেকৃত নবী বা অন্য কাউকে স্মরণ করা যাবে কি?

প্রশ্ন From: নাইন বিষয়ঃ নামাহ প্রশ্নঃ নামাজের মধ্যে ইচ্ছাকৃত ভাবে কাউকে অথবা রাসুল সা: কে স্মরন করা যাবে কি না? ভাই দয়া করে একটু বিস্তারিতভাবে বলবেন। উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم না, যাবে না। কারণ, নামায খালিস আল্লাহর ইবাদত। আর ইবাদতের পূর্ণতা পায় তা এমনভাবে করলে যে, সে সরাসরি আল্লাহকে দেখতে …

আরো পড়ুন

হাজী ইমদাদুল্লাহ মুহাজিরে মক্কী রহঃ কী মিলাদ কিয়াম করতেন?

প্রশ্ন From: আবু আইয়ুব আনছারী, কাশীনগর,১৪ গ্রাম,কুমিল্লা বিষয়ঃ মিলাদ কিয়াম প্রচলিত মিলাদ ও কিয়াম সম্পর্কে জানতে চাই। এক আলেম বলেছে হাজী এমদাদুল্লাহ মুহাজীরে মক্কী রহ: মিলাদ কিয়াম করতেন, এই কথাটুকু সঠিক কিনা? উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم প্রচলিত মিলাদ ও কিয়াম বিদআত। কোন সন্দেহ নেই। কুরআন ও হাদীসে প্রচলিত এ মিলাদ …

আরো পড়ুন

ইমাম আবু হানীফা ছিলেন যুগের সবচেয়ে বড় মুজতাহিদ ও ফকীহ

আল্লামা আব্দুল মতীন দামাত বারাকাতুহু পড়ে নিন- হাদীসের হাফেজগণও ফকীহগণের মুখাপেক্ষী ছিলেন : এই এগার নম্বর ঘটনা ও নয় নম্বরে উল্লেখিত ইবনে মাঈনের বক্তব্য থেকেও বোঝা যায়, ইমাম আবু হানীফা ছিলেন তাঁর যুগের সবচেয়ে বড় মুজতাহিদ ও ফকীহ। ইমাম শাফেয়ীর একথা তো খুবই প্রসিদ্ধ যে, الناس في الفقه عيال على …

আরো পড়ুন

ঈমানের মূল ভিত্তি ইসলামী আকায়েদ

আল্লামা আব্দুল মালেক দামাত বারাকাতুহু আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে বান্দার উপর সবচে’ বড় ফরজ হল, ঈমান। ঈমান বান্দার উপর আল্লাহর সবচে’ বড় হক। ঈমানের পরিচয় হল, ইসলামকে একমাত্র সত্যধর্ম মেনে কবুল করে নেওয়া। ইসলাম আকায়েদ ও আহকামের সমষ্টি। ইসলামের বর্ণিত সঠিক আকায়েদ, ইসলামের প্রদত্ত শরীয়ত মেনে নেওয়ার নাম ঈমান। আকায়েদ …

আরো পড়ুন

ইবনে মানসূর হাল্লাজ রহঃ সম্পর্কে কতিপয় প্রশ্নের উত্তর

মুফতী ইজহারুল ইসলাম কাউসারী -আপনি নাকি ভাই হাল্লাজিস্ট? ইবনে মনসুর হাল্লাজকে ডিফেন্ড করেন? – মৃত ব্যক্তির বিচারের দায়িত্ব তো আমার নয়। আল্লাহ তায়ালা বিচার করবেন। এজন্য মৃত ব্যক্তির নিয়ে ডিফেন্ড করার কিছু আছে বলে মনে করি না। এজন্য কারও ব্যক্তি কেন্দ্রিক আলোচনা আমি পছন্দ করি না। তবে ব্যক্তির সাথে যদি …

আরো পড়ুন