প্রচ্ছদ / ইসলামী আইন/শরয়ী শাস্তিবিধান

ইসলামী আইন/শরয়ী শাস্তিবিধান

ধর্ষণ-ব্যভিচার রোধে প্রচলিত আইন বনাম ইসলামী আইন

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী ধর্ষণ ও ব্যভিচার কী? ধর্ষণ হল, জোরপূর্বক কোন নারীর সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করা। আর ব্যভিচার হল, নারী পুরুষের সম্মতিতে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করা। তাহলে ধর্ষণ ও ব্যভিচারের মাঝে পার্থক্য হল, সম্মতি আর অসম্মতির উপর। অসম্মতিতে হলে যা ধর্ষণ, তা’ই সম্মতিতে হলে ব্যভিচার। অবশ্য বাংলাদেশ আইনে ১৬  …

আরও পড়ুন

নিষিদ্ধ সময়ে মাছ ধরা এবং ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক তা জব্দ করে মাদরাসায় দান করার বিধান

প্রশ্ন বরাবর তালিমুল ইসলাম ইনিস্টিটিউট রিসার্স সেন্টার (মুফতি লুৎফুর রহমান হুজুর) প্রশ্ন:- সরকার কর্তৃক কিছু নিষিদ্ধ সময় থাকে, যখন জেলেদের জন্য নদী/সমুদ্রে মাছ ধরা নিষেধ৷ তারপরেও কিছু সংখ্যক জেলেরা নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মাছ ধরে৷ সরকারী বাহীনির কাছে ধরা পরলে,বাহীনির লোকেরা মাছগুলো জব্দ করে নেয়৷ এবং সাথে সাথে জেল-জরিমানা ইত্যাদি শাস্তি …

আরও পড়ুন

আন্তঃধর্মীয় বিবাহ আইনঃ কী বলে ইসলাম?

মাওলানা মুহাম্মদ আনসারুল্লাহ হাসান মানব রচিত আইন ও বিধানে পরিবর্তন তথা পরিবর্ধন-পরিমার্জন ও সংস্কার সাধন হতে পারে এবং হয়েও আসছে। কারণ সীমাবদ্ধ জ্ঞানের অধিকারী মানুষের স্বাভাবিকভাবেই ভুল হয়। তারা বিভিন্ন চিন্তা-চেতনা ও মন-মানসিকতায় আক্রান্ত হয়। নানা পথ ও মতের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়। স্বার্থ ও আবেগের কারণে বিভ্রান্ত হয়। পক্ষান্তরে আল্লাহ রাববুল আলামীন সকল মাখলুকের স্রষ্টা ও বিশ্বজগতের পালনকর্তা। তাঁকে কখনো ভুল-ভ্রান্তি স্পর্শ করে না। তাঁর কোনো ভুলভ্রান্তি ও ত্রুটি-বিচ্যুতি হতে পারে না। তিনি সকল দোষ ও দুর্বলতা এবং সকল সীমা ও সীমাবদ্ধতার উর্ধ্বে মহান পূত-পবিত্র সত্ত্বা। সুতরাং তার নাযিলকৃত আইন ও বিধানে কোনো ধরনের পরিবর্তন ও সংস্কার হতে পারে না। আল্লাহর বিধানে কোনো ধরনের পরিবর্তন সাধন বা কোনো ধরনের বিরুদ্ধাচরণ চরম অন্যায় ও জঘন্যতম অপরাধ। যারা আল্লাহর বিধানে হাত দেওয়ার দুঃসাহস করে, আল্লাহর আইনে পরিবর্তন ও সংস্কারের চিন্তা-ভাবনা করে তারা চরম দুষ্কৃতিকারী, বড় জালিম এবং আল্লাহর জমিনে ফাসাদ সৃষ্টিকারী। তারা ইসলাম থেকে বহিষ্কৃত। আল্লাহ তাআলা কুরআন মজীদে বিবাহ ও তালাকের বিধান বর্ণনা করার পর ইরশাদ করেছেন- تِلْكَ حُدُودُ اللَّهِ فَلَا تَعْتَدُوهَا وَمَنْ يَتَعَدَّ حُدُودَ اللَّهِ فَأُولَئِكَ هُمُ الظَّالِمُونَ (তরজমা) এ সবই আল্লাহর নির্ধারিত সীমারেখা। সুতরাং তোমরা তা লঙ্ঘন করো না। যারা আল্লাহর সীমা লঙ্ঘন করে তারা বড়ই জালিম।-সূরা বাকারা (২) : ২২৯ অনুরূপভাবে উত্তরাধিকার সম্পত্তির বণ্টনে আল্লাহ তাআলা কুরআনে নির্ধারিত অংশগুলোকে ‘আল্লাহর পক্ষ থেকে নির্ধারিত হিস্যা’  আখ্যায়িত  করে ঘোষণা করেছেন- تِلْكَ حُدُودُ اللَّهِ وَمَنْ يُطِعِ اللَّهَ وَرَسُولَهُ يُدْخِلْهُ جَنَّاتٍ تَجْرِي مِنْ تَحْتِهَا الْأَنْهَارُ خَالِدِينَ فِيهَا وَذَلِكَ الْفَوْزُ الْعَظِيمُ * وَمَنْ يَعْصِ اللَّهَ وَرَسُولَهُ وَيَتَعَدَّ حُدُودَهُ يُدْخِلْهُ نَارًا …

আরও পড়ুন

ইসলাম শান্তির ধর্ম হলে ইসলামের অনুসারীগণ যুদ্ধ বিগ্রহ করে কেন?

প্রশ্ন from, sultanul arefin,west Bengal,India আসসালমো আলাইকুম মুফতি সাহেব আমার একটি জানার বিষয় আছে। সেই বিষয়টি হয়ত আপনার কাছে কোনও গরুত্বই নেই কিন্তু বিষয়টি আমার মনে বারবার চলে আসছে এবং ইসলাম ও তার প্রচারকদের সম্পর্কে যে ধারনা এতদিন রেখে আসছিলাম সেই বিষয়ে তিব্র দ্বন্দ তৈরি হচ্ছে , যে ইসলাম শব্দের …

আরও পড়ুন

কবরে শাস্তি পেয়ে হাশরে মুক্তি কি সম্ভব? কিংবা কবরে মুক্তি পেয়ে হাশরে শাস্তি হতে পারে?

প্রশ্ন  এটাও কি হতে পারে যে কবরের জগতে একজন শাস্তি পেল কিন্তু হাশরে সে নাজাত পেল? বা কবরে ঈমানের কারনে সে নাজাত পেল কিন্তু কবিরা গুনাহের কারনে হাশরের মাঠে মিজানের পাল্লা হালকা হওয়ার কারনে সে জাহান্নামি হবে। আমি এই ব্যাপার নিয়ে খুবই কনফিউসড। প্লিজ আমাকে হেল্প করুন। একটু জটিল প্রশ্ন …

আরও পড়ুন

অন্যের নামে সিম রেজিষ্ট্রেশন করে ব্যবহার করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: amir hamza বিষয়ঃ মোবাইল সিম কার্ড প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম আমি বর্তমানে সৌদি আরবে থাকি। এখানে সিম কার্ড এর ব্যবসা করে বিভিন্ন দেশের লোকেরা । তারা অন্নের আকামার নাম্বার দিয়ে সিম কার্ড active করে । সেই ব্যক্তি জানেনা তার আকামা নাম্বার দিয়ে সিম একটিভ করেছে যে। এদেশের সরকারের আইন …

আরও পড়ুন

কবরের আযাব থেকে মুক্তি পেতে কোন উসীলা আছে কি?

প্রশ্ন বয়ানে আলেমরা বলেন যে, হাশরের মাঠে অনেক ধরনের উসিলা থাকবে নাজাত পাবার। কিন্তু কবরেতো আমার আল্লাহ ছাড়া আর কেউ নাই, তখন নাজাতের উসিলা কোথায় খুঁজবো বা পাব? উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم তখন দুনিয়ার রেখে যাওয়া সদকায়ে জারিয়া এবং সন্তান ও আত্মীয় স্বজনদের দুআ ও নেক আমল কাজে লাগবে। …

আরও পড়ুন

কবরের তিন প্রশ্নের উত্তর কি গোনাহগার মুসলমান দিতে পারবে?

প্রশ্ন  কবরে তিনটি প্রশ্ন মূলত কারা দিতে পারবে? শুধু ঈমানের সাথে সম্পর্ক? কারণ, হয়তো আমাদের ঈমান আছে কিন্তু আমরা ইচ্ছা অনিচ্ছায় অনেক কবিরা গুনাহে লিপ্ত থাকি, তারা উত্তর দিতে পারবে নাকি না? উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم শুধুমাত্র কাফেররা কবরের প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবে না। মুসলমানরা দিতে পারবে। যদিও সে …

আরও পড়ুন

হাশরের ময়দানে কোন উসিলায় মুক্তিপ্রাপ্ত ব্যক্তি কি কবরে কৃত গোনাহের শাস্তি পাবে?

প্রশ্ন যেই বান্দা বেশি কবিরা গুনাহ নিয়ে মারা গেছে এবং সে হাশরের মাঠে যে কোন এক উসিলায় মাফ পেয়ে জান্নাতি হলো, তার প্রথমিক বিচার কবরে কি হবে? সে কি নাজাত পাবে কবরে নাকি শাস্তি পাবে? উত্তর بسم الله الرحمن الرحيم যে সকল কারণে কবরে শাস্তি হবে মর্মে হাদীসে এসেছে, উক্ত …

আরও পড়ুন

কবরের তিন প্রশ্নের উত্তর দিতে পারলেও কি আযাব হবে?

প্রশ্ন From: ARFAN HOSSAIN বিষয়ঃ koborer jogot প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম আমি বাংলাদেশি তবে দীর্ঘ তিন বছর ধরে আমেরিকান প্রবাসী হয়েছি. আমার প্রশ্ন কবরের জগত নিয়ে। আমি এই জগত নিয়ে অনেক কনফিউশনে আছি. কারন আমাদের দেশে আলেমরা বা বক্তারা শুধু হাশরের মাঠের আলোচনা খুব বেশি করে. কিন্তু আমাদের আখিরাতের প্রথম ঘাটি …

আরও পড়ুন