প্রচ্ছদ / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / মৃত ব্যক্তির নামে কুরবানী দেয়ার হুকুম কী? [সংশোধিত]

মৃত ব্যক্তির নামে কুরবানী দেয়ার হুকুম কী? [সংশোধিত]

প্রশ্ন

From: সুহায়েল আহমদ
বিষয়ঃ কুরবানী

মৃত্যু ব্যক্তির নামে কোরবানী কি মৃত্যু ব্যক্তির পক্ষ থেকে হয় না কুরবানী দাতার পক্ষ থেকে হয়, মৃত্যু ব্যক্তি শুধু ছওয়াব পায়।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

মৃত ব্যক্তির পক্ষ থেকে কুরবানী করার দুই সুরত। যথা-

১) মৃত ব্যক্তি মৃত্যুর পূর্বে তার জন্য কুরবানী করতে অসিয়ত করে গেছে।

২) মৃত ব্যক্তি মৃত্যুর পূর্বে তার জন্য কুরবানী করতে অসিয়ত করে যায়নি।

যদি মৃত ব্যক্তি কুরবানীর ওসিয়ত করে যায়, তাহলে তার নামে কুরবানী করলে, এর গোস্ত পুরোটাই গরীবদের মাঝে দান করে দেয়া আবশ্যক।

لو ضحى عن ميت وارثه بأمره ألزمه بالتصدق بها وعدم الأكل منها وان تبرع بها عنه له الأكل لأنه يقع على ملك الذابح والثواب للميت (رد المحتار، كتاب الاضحية-9/484 ، خانية على الهندية، كتاب الاضحية، فصل فيما يجوز فى الضحايا وما لا يجوز-3/352)

মৃত ব্যক্তি কুরবানীর অসিয়ত করে যায়নি, বরং জীবিত ব্যক্তি নিজের পক্ষ থেকে কুরবানী করে, আর সওয়াব মৃতকে পৌঁছানোর নিয়ত করে, তাহলে কুরবানী জীবিত ব্যক্তির পক্ষ থেকে হবে, আর কুরবানীর সওয়াব মৃত ব্যক্তি পেয়ে যাবে।

من ضحى عن ميت جاز الأكل منها والهدية والصدقة والاجر للميت للذابح (رد المحتار، كتاب الاضحية- 9/472، بزازية على الهندية، كتاب الاضحية، السابع فى الاضحية-6/395)

وان تبرع بها عنه له الاكل لانه يقع على ملك الذابح والثواب للميت ولهذا لو كان على الذابح واحدة سقطت عنه اضحية، (رد المحتار، كتاب الاضحية- ، المحيط البرهانى، كتاب الاضحية، الفصل السابع فى التضحية-8/473

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

মুহাদ্দিস-জামিয়া উবাদা ইবনুল জাররাহ, ভাটারা ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

 

আরও জানুন

কুরবানীর জন্য মান্নত করা পশুতে কাউকে শরীক নিতে পারবে?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম হযরত.. একটি প্রশ্ন জানার ছিলো প্রশ্নটি হলো এক ব্যক্তির একটি গরু ছিলো …

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস