প্রচ্ছদ / অজু/গোসল/পবিত্রতা/হায়েজ/নেফাস / স্ত্রীর যৌনাঙ্গ স্পর্শ করার দ্বারাই কি গোসল ফরজ হয়ে যায়?

স্ত্রীর যৌনাঙ্গ স্পর্শ করার দ্বারাই কি গোসল ফরজ হয়ে যায়?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহ ।

হুজুর স্ত্রীর প্রস্রাবের রাস্তায় অথবা পায়খানার রাস্তায় যদি স্বামীর লিঙ্গ স্পর্শ (সরাসরি অথবা কাপড়ের উপর দিয়ে ) হয় তাহলে কি দুজনের ওপরেই গোসল ফরজ হয়ে যায়?

হুজুর স্বামী স্ত্রীর আনন্দময় মুহূর্তে কি কি হয়ে গেলে গোসল ফরজ হয় বিস্তারিত জানিয়ে উপকৃত করবেন।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

শুধু লিঙ্গ স্পর্শ করার দ্বারা গোসল ফরজ হয় না। যদি পুরুষের লিঙ্গের উপরের খানিক অংশ প্রবেশ করে, তাহলে উভয়ের উপরই গোসল করা ফরজ।

আর যদি প্রবেশ করার আগেই বীর্যপাত হয়ে যায়, তাহলে স্বামীর উপর গোসল ফরজ স্ত্রীর উপর নয়।

আর যদি স্ত্রীরও সহবাস করা ছাড়াই বীর্যপাত হয়, তাহলে তার উপরও গোসল ফরজ হবে।

মূলত দুই কারণে  স্বামী স্ত্রীর সম্পর্কের দ্বারা গোসল ফরজ হয়।

পুরুষের লিঙ্গ প্রবেশের কারণে।

বীর্যপাতের কারণে।

এছাড়া আর কোন কারণে স্বামী স্ত্রীর সম্পর্কের দ্বারা গোসল ফরজ হয় না।

وفرض الغسل عند خروج منى منفصل عن مقره بشوهة وإن لم يخرج من رأس الذكر بها (الدر المختار مع رد المحتار-1/295-297، هندية-1/14، المحيط البرهانى-1/229)

وفرض الغسل عند خروج المنى من العضو……، بشهوة أى لذة ولو حكما كمحتلم….، وعند إيلاج حشفة هى ما فوق الختان آدمى…….، وإن لم ينزل منيا بالإجماع (الدر المختار مع رد المحتار-1/295-299)

عن على رضى الله عنه مرفوعا قال: إنما الغسل من الماء الدافق (السنن الكبرى للبيهقى، كتاب الطهارة، باب وجوب الغسل بخروج المنى-1/282، رقم-811)

والمعانى الموجبة للغسل إنزال المنى على وجه الدفق والشهوة (هداية-1/31)

أَبِي هُرَيْرَةَ، أَنَّ نَبِيَّ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: «إِذَا جَلَسَ بَيْنَ شُعَبِهَا الْأَرْبَعِ ثُمَّ جَهَدَهَا، فَقَدْ وَجَبَ عَلَيْهِ الْغُسْلُ» وَفِي حَدِيثِ مَطَرٍ وَإِنْ لَمْ يُنْزِلْ

আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, যখন কেউ তার স্ত্রীর চার হাত-পায়ের মাঝখানে বসবে এবং তার সাথে মিলবে তখন তাঁর ওপর গোসল ফরয হবে। মাতার এর হাদীসে যদিও বীর্য নির্গত না করে-বাক্যটি অতিরিক্ত রয়েছে। [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৩৪৮]

عَنْ عَائِشَةَ، زَوْجِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَتْ: إِنَّ رَجُلًا سَأَلَ رَسُولَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ عَنِ الرَّجُلِ يُجَامِعُ أَهْلَهُ ثُمَّ يُكْسِلُ هَلْ عَلَيْهِمَا الْغُسْلُ؟ وَعَائِشَةُ جَالِسَةٌ. فَقَالَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «إِنِّي لَأَفْعَلُ ذَلِكَ، أَنَا وَهَذِهِ، ثُمَّ نَغْتَسِلُ»

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর সহধর্মিনী আয়িশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একবার কোন এক ব্যাক্তি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে জিজ্ঞাসা করল, যদি কেউ তার স্ত্রীর সাথে সহবাস করে তারপর বীর্য নির্গত হবার পূর্বেই তার পুরুষাঙ্গ বের করে ফেলে তাহলে কি তাদের উভয়ের ওপর গোসল ফরয হবে? এ সময়ে আয়িশা (রাঃ) সেখানে উপবিষ্ট ছিলেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, আমি এবং এ (আয়িশা (রাঃ) ঐরুপ করি এরপর আমরা গোসল করে ফেলি। [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৩৫০]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

তোকে তালাক দিলাম তিনবার বললে কয় তালাক পতিত হয়?

প্রশ্ন বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম শ্রদ্ধেয় মুফতি সাহেব। আস্সালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ। আমি মোঃ …….., পিতাঃ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস