প্রচ্ছদ / জায়েজ নাজায়েজ / প্রয়োজন ছাড়া ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলা কী জায়েজ?

প্রয়োজন ছাড়া ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলা কী জায়েজ?

প্রশ্ন:

প্রয়োজন ছাড়া ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলা কী জায়েজ? ছবি আঁকা ও ক্যামেরা দিয়ে তোলার মাঝে কোন পার্থক্য আছে কী? দলিলসহ জানালে উপকৃত হব।

জবাব:

بسم الله الرحمن الرحيم

প্রয়োজন ছাড়া ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলা জায়েজ নয়। ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলা আর ছবি আঁকার বিধান একই। উভয়টিই সম্পূর্ণ হারাম। কেননা, শরীয়তে যেই বিষয় মৌলিকভাবে জায়েজ নয় তা করার যন্ত্র পাল্টে গেলেও তার হুকুম পাল্টে না,

যেমন মদ খাওয়া হারাম। হাতে মদ বানালে যেই হুকুম, মেশিনে বানালেও একই হুকুম।

যেমন মানুষ হত্যা করা হারাম, হাতে হত্যা করা যেমন হারাম কোন নব আবিস্কৃত যন্ত্রের মাধ্যমেও হত্যা করলেও একই বিধান প্রযোজ্য।

তবে কম্পিউটার ও মোবাইল স্ক্রীনে থাকা প্রাণীর (অশ্লীল ও নারীর ছবি ছাড়া) ছবি প্রিন্ট করার আগ পর্যন্ত জায়েজ বলেছেন জামিয়া বিন্নুরিয়া পাকিস্তানের ফাতওয়া বিভাগ।

কম্পিউটার স্ক্রীনে বা মোবাইল স্ক্রীনে ছবি না রাখাটাও তাক্বওয়ার দাবী। সুতরাং ওলামায়ে কেরামসহ যারা সমাজের অনুস্বরণীয় ব্যক্তিত্ব তাদের জন্য অবশ্যই একাজটি বর্জনীয়। যেন সাধারণ মানুষরা ছবি তুলে প্রিন্ট করার মাধ্যমে সুস্পষ্ট হারাম কাজে লিপ্ত হতে উদভুদ্ধ না হয়। আল্লাহ তায়ালা আমাদের মেজাজে শরীয়ত অনুযায়ী আমল করার তৌফিক দান করুন।

বিস্তারিত জানতে পড়ুন-শাইখুল ইসলাম মুফতী তাক্বী উসমানী প্রণীত “ফিক্বহী মাক্বালাত”-৪/১২৩-১৩০

দলিল:

فى تفسير آيات الأحكام-فإطلاق الإباحة في التصوير الفوتوغرافي ، وأنه ليس بتصوير وإنما هو حبس للظلّ ، مما لا ينبغي أن يقال ، بل يقتصر فيه على حد الضرورة ، (تفسير آيات الأحكام-2/300

  অনুবাদ-সুতরাং ফটোগ্রাফী ছবিকে মুতলাক জায়েজ বলা এই হিসেবে যে, তা মূলত ছবি না, বরং তা ছায়াকে আটকে ফেলা, এরূপ বলা উচিত নয়, বরং তার বৈধতা প্রয়োজন পর্যন্ত সীমিত থাকবে। (তাফসীরু আয়াতিল আহকাম-২/৩০০)

وفى فتاوى الشيخ عبد الرزاق عفيفي-اما التصوير الشمسى لذوات الأرواح فهو محرم وممنوع لان فيه مضاهان لخلق الله ولان فاعله من اظلم الناس ولانه يمنع من دخول ملائكة الرحمة والبركة الى المكان الذي تكون به هذه الصور ولان تصوير ذوات الأرواح من المعظمين كالأمراء والعلماء ونحوهم هو ذريعة وسبب ووسيلة للشرك (فتاوى الشيخ عبد الرزاق عقيفى-1/305

প্রামান্য গ্রন্থাবলী

১. তাফসীরু আয়াতিল আহকাম-২/৩০০

৩. ফাতওয়া আব্দুর রাজ্জাক আফিফী-১/৩০৫

৩. আল ফাতওয়া লাজনাতুত দায়িমাহ-১/৬৬২

৪. ফিক্বহী মাকালাত-৪/৮৯

৫. জাদীদ ফিক্বহী মাসায়েল-১/৩৫৪

৬. জাওয়াহীরুল ফিক্বহ-৪/৯

৭. www.jamiabinoria.com

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

আরও জানুন

কুরবানীর জন্য মান্নত করা পশুতে কাউকে শরীক নিতে পারবে?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম হযরত.. একটি প্রশ্ন জানার ছিলো প্রশ্নটি হলো এক ব্যক্তির একটি গরু ছিলো …

No comments

  1. জামিয়া বিন্নুরিয়া পাকিস্তানের ফাতওয়া অনুযায়ি video এর ক্ষেত্রেও কি এই হুকুম হবে…???

  2. অনেক উপকৃত হলাম।শাবিব তাশফী সহ সবাইকে ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস