প্রচ্ছদ / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / দুই ভাই মিলে সাত ভাগের মাঝে এক নামে এক ভাগে শরীক হলে কুরবানী হবে কি?

দুই ভাই মিলে সাত ভাগের মাঝে এক নামে এক ভাগে শরীক হলে কুরবানী হবে কি?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ ৷
প্রশ্নঃ
নিজেদের নামে কুরবানি না দিয়ে দুই ভাই মিলে টাকা দিয়ে মায়ের নামে কুরবানী দেয় এবং গোস্ত দুইভাই ভাগ করে নেয়৷
কোন সময় এক বছৱ এক ভাইয়ের নামে অন্য বছর অন্য ভাইয়ের নামে কুরবানি দিয়ে গোস্ত ভাগ করে নেয়৷
উল্লেখ্য যে দুই ভাই পৃথক৷
এ ক্ষেত্রে যদি তাদের উপর কুরবানি ওয়াজীব হয় তাহলে তার সমাধান কি ৷আর ওয়াজিব না হলে তার সমাধান কি৷
তারা যাদের সাথে শরিকে কুরবান দেয় তাদের কুরবানি হবে কিনা? তারা ও চিন্তিত৷
আমাদের এলাকার এক আলেম বলে হবে।
আরেক জন বলে হবে না ৷
সঠিক সমাধান দিয়ে উপকার করবেন৷

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

আপনার প্রশ্নটি অস্পষ্ট। পুরো প্রশ্ন পড়ে আমাদের যা বুঝে এসেছে, তা লিখে তারপর সেটির উত্তর প্রদান করা হচ্ছেঃ

প্রশ্ন হল,

দুই ভাই পৃথক। কিন্তু তারা প্রতি বছর অন্যের সাথে এক ভাগে শরীক হোন। যেমন গরুতে সাত ভাগে কুরবানী দেয়া যায়। তো সেখানে তারা দুই ভাই মিলে এক ভাগে শরীক হোন। দুইজনে যেহেতু এক নাম দিতে পারে না, তাই তারা কোন বছর মায়ের নামে, কোন বছর এক ভাইয়ের নামে কুরবানী দিয়ে থাকে। নাম একটি দিলেও তারা গোস্ত ভাগ করে নেয় দুইজনে। কারণ টাকা দিয়েছে দুইভাই মিলে।

প্রশ্ন হল, এভাবে দুইজনে টাকা দিয়ে এক নাম দিয়ে এক ভাগে শরীক কুরবানী দেয়া বৈধ কি না?

উত্তর

যেহেতু এতে করে দুইজনে এক অংশে শরীক হচ্ছে। এ কারণে তাদের কুরবানী শুদ্ধ হয় না। কেননা এতে করে প্রতিজনের অংশ সাত অংশের চেয়ে কম হয়ে যাচ্ছে।

তাদের কুরবানী শুদ্ধ না হওয়ায় তাদের সাথে কোন শরীকেরই কুরবানী বিশুদ্ধ হবে না। কেননা, শরীক সাতজন থেকে আটজন হয়ে গেছে। [কিতাবুন নাওয়াজেল-১৪/৫৩২]

মোটকথা,এভাবে কুরবানী দিলে না উক্ত দুইভায়ের কুরবানী হচ্ছে। না তাদের সাথে শরীকদের কুরবানী হচ্ছে। তাই এ কর্ম থেকে বিরত থাকা আবশ্যক।

عَنْ جَابِرٍ، قَالَ: خَرَجْنَا مَعَ رَسُولِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مُهِلِّينَ بِالْحَجِّ: «فَأَمَرَنَا رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنْ نَشْتَرِكَ فِي الْإِبِلِ وَالْبَقَرِ، كُلُّ سَبْعَةٍ مِنَّا فِي بَدَنَةٍ

জাবির রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনম, আমরা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সাথে হজ্জের ইহরাম বেঁধে রওনা হলাম। অতঃপর তিনি উট ও গরুতে আমাদের মধ্যে সাতজন করে শরীক হবার (ও কুরবানী করার) নির্দেশ দিলেন। [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-১৩১৮, ৩০৪৯]

ولو لأحدهم أقل من سبع لا يجز عن أحد (الدر المختار مع رد المحتار-9/457)

واذا كان الشركاء فى البدنة أو البقرة ثمانية لا يجزئهم، لأن نصيب أحدهم أقل من السبع (الفتاوى التاتارخانية، كتاب الأضحية، الفصل الثامن فيما يتعلق بالشركة فى الضحايحا-17/453، رقم-2780)

الشاة لا تجزئ إلا عن واحد، وإن كانت عظيمة، والبقر والبعير كل واحد منهما يجزئ عن سبعة، إذا كانوا يريدون بها وجه الله اتفقت جهات القربة أو اختلفت، وقال زفر: إذا اختلفت جهات القرب لا يجوز (الفتاوى التاتارخانية، كتاب الأضحية، الفصل الثامن فيما يتعلق بالشركة فى الضحايا-17/450، رقم-27792)

وكذا فى البدائع الصنائع-4/206-207

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

কাবিননামার আঠার নং কলাম অনুপাতে স্ত্রী নিজের উপর তালাক পতিত করার অধিকার পায়?

প্রশ্ন From: Hasan বিষয়ঃ তালাকের ব্যাপারে ফতোয়ার আবেদন প্রশ্নঃ তালাক সম্পর্কে ফতোয়ার আবেদন =================== জনাব, …

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস