প্রচ্ছদ / প্রশ্নোত্তর / কোম্পানীর মালিকের টাকায় হজ্ব করলে নিজের ফরজ হজ্ব আদায় হবে কি?

কোম্পানীর মালিকের টাকায় হজ্ব করলে নিজের ফরজ হজ্ব আদায় হবে কি?

প্রশ্ন

From: মো: ফয়সাল আহমেদ
বিষয়ঃ কোম্পানির কর্মকর্তাদের হজ্ব

সম্মানিত হযরত,
আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ।

আমি একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে জব করি। আমার কোম্পানির মালিক  হজ্ব পালন করার জন্য প্রতি বছর ১ জন করে আমাদের কোম্পানী থেকে লটারির মাধ্যমে বাছাই করে হজ্বে পাঠাবে। হজ্ব সব খরচ ওনি বহন করবেন।

প্রশ্ন হলো:

১. এই টাকা দিয়ে হজ্ব করলে কোম্পানির কর্মকর্তার ফরজ হজ্ব আদায় হবে কিনা?
২.  কোম্পানির কর্মকর্তার নিজস্ব সম্পত্তি / টাকা থাকা সত্বেও কোম্পানির টাকা দিয়া হজ্ব করলে ফরজ হজ্ব কবুল হবে কিনা এবংেএতে করে কোম্পানির মালিক সওয়াবের কমতি হবে কিনা?
৩. অনেক কোম্পানির কর্মকর্তা থাকায় লটারির মাধ্যমে ১ জনকে বাছাই করা পদ্ধতি ঠিক হবে কিনা ?
৪. হজ্ব করানো কারনে কোম্পানির মালিকে কি ফায়দা হবে ?
৫.  হজ্ব করানো কারনে কোম্পানির মালিকের নিয়ত কি করলে কোম্পানির কর্ম কর্তার হজ্ব সুন্দর হবে।
৬. অথবা উভয় পক্ষের জন্য সহিহ তরীকা কি হতে পারে।

হুজুর দয়া করে এই প্রশ্নের উত্তরগুলো দিলে আমাদের অনেক উপকার হবে।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

কোম্পানীর মালিক যদি এভাবে হজ্ব করানো দ্বারা বদলী হজ্ব করানোর ইচ্ছে না করে থাকে, বরং অন্যকে হজ্ব করানোই মাকসাদ থাকে, তাহলে এভাবে যিনি হজ্ব করতে যাচ্ছেন, তার উপর ফরজ হওয়া হজ্ব আদায় হয়ে যাবে।

বাকি টাকাটি কোম্পানীর মালিক হাদিয়া দেয়ায় উপরোক্ত হজ্বের সওয়াবও তিনি পাবেন।

যদিও হজ্ব আদায়কারীর সওয়াবে কোন কমতি হবে না।

আর উপরোক্ত পদ্ধতিতে লটারীর মাধ্যমে একজন কর্মকর্তাকে নির্ধারিত করার মাঝেও শরয়ী কোন বিধিনিষেধ নেই।

যিনি লটারীতে হজ্বের জন্য নির্বচিত হবেন, তিনি নিজের হজ্বেরই নিয়ত করবেন । যদিও মালিকের টাকায় হজ্ব করার কারণে সওয়াব মালিকও পাবে। দুআ কবুলের স্থানসমূহে অর্থদাতা মালিকের জন্য কল্যাণী দুআ করবে।

আর অর্থদাতা অফিসের মালিক টাকা হাদিয়া দেবার সময় আল্লাহর সন্তুষ্টি পাবার আশায়ই উক্ত হাদিয়া প্রদান করবে। ইনশাআল্লাহ তার আমলনামায়ও কবুল হজ্বের সওয়াব লিপিবদ্ধ হবে।

قَالَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «مَنْ دَلَّ عَلَى خَيْرٍ فَلَهُ مِثْلُ أَجْرِ فَاعِلِهِ

রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন,যে ব্যক্তি কোন ভাল কাজের পথ দেখায় সে উক্ত কাজ সম্পাদনকারীর ন্যায় সওয়াব পায়। {সহীহ মুসলিম,হাদীস নং-১৮৯৩}

عمر بن الخطاب رضي الله عنه على المنبر قال سمعت رسول الله صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يقول (إنما الأعمال بالنيات وإنما لكل امرىء ما نوى

উমর ইবনুল খাত্তাব (রাঃ)-কে মিম্বরের ওপর দাঁড়িয়ে বলতে শুনেছিঃ আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে বলতে শুনেছিঃ প্রত্যেক কাজ নিয়তের সাথে সম্পর্কিত। আর মানুষ তার নিয়ত অনুযায়ী ফল পাবে। [বুখারী, হাদীস নং-১]

(وَمِنْهَا الْقُدْرَةُ عَلَى الزَّادِ وَالرَّاحِلَةِ) بِطَرِيقِ الْمِلْكِ أَوْ الْإِجَارَةِ (الفتاوى الهندية، كتاب الحج، الباب الاول-1/217)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

বিবাহের মাঝে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ব্যয় করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: মোঃ আবুল কাশেম বিষয়ঃ বিয়ের মধ্যে লাইটিং,ডেকোরেটর,গেট,অনেক মানুষ খাওয়ানো এবং সাজ-সজ্জা প্রসেঙ্গ। প্রশ্নঃ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস