প্রচ্ছদ / ওয়াকফ/মসজিদ/ঈদগাহ / হাড় পাওয়া যায় এমন পুরাতন কবরস্থানে মসজিদ নির্মাণ করার বিধান কী?

হাড় পাওয়া যায় এমন পুরাতন কবরস্থানে মসজিদ নির্মাণ করার বিধান কী?

প্রশ্নঃ

السلام عليكم و رحمة الله
১। পুরাতন কবরস্থানে মসজিদ বানানোর বিধান সম্পর্কে,বোখারি ও নাসায়ির হাদিসে দেখলাম। কবর খুড়ে হাড় বের করে, সেখানে মসজিদ বানানো যাবে।
কবরস্থানে মসজিদ বানানোর আসল বিধান কি এটাই? দয়া করে দলিল প্রমাণ সহ জানাবেন।
আর কবরস্থানে মসজিদ করতে হলে ১২ বছর বা ১৮ বছরের কি কোনো বিধান আছে?

২। কবরের হাড় বের না করে, কবরের উপর যদি মসজিদ বানানো হয়। তবে সেই মসজিদে নামাজ পড়ার বিধান কী?
اريد الجواب مدللا مفصلا عند خدمتكم العالية.فقد والسلام

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

পুরাতন কবরস্থান। যাতে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত কবর দেয়া হয় না। এমন কবরের উপর মসজিদ নির্মাণ করা জায়েজ আছে।

এখানে শর্ত হল, কবর এতটুকু পুরাতন হওয়া যাতে লাশ মাটির সাথে মিশে যাবার প্রবল ধারণা হয়। এখানে নির্ধারিত কোন বছর হওয়া শর্ত নয়।বরং লাশ মাটির সাথে মিশে যাওয়া হল মূল বিষয়।

হাড় ইত্যাদি না বের করেও যদি মসজিদ করা হয়, তাহলেও তাতে নামায আদায় করা জায়েজ হবে। তবে উচিত হাড় বের করে অন্যত্র দাফন করা।

উপরোক্ত বিধান ওয়াকফহীন কবরস্থানের ক্ষেত্রে। ওয়াকফকৃত কবরস্থানের বিধান হল, তাতে কবর দেয়ার প্রয়োজন বাকি থাকলে তাতে মসজিদ নির্মাণ করা জায়েজ নয়।

فَقَالَ أَنَسٌ فَكَانَ فِيهِ مَا أَقُولُ لَكُمْ قُبُورُ الْمُشْرِكِينَ وَفِيهِ خَرِبٌ وَفِيهِ نَخْلٌ فَأَمَرَ النَّبِيُّ بِقُبُورِ الْمُشْرِكِينَ فَنُبِشَتْ ثُمَّ بِالْخَرِبِ فَسُوِّيَتْ وَبِالنَّخْلِ فَقُطِعَ فَصَفُّوا النَّخْلَ قِبْلَةَ الْمَسْجِدِ وَجَعَلُوا عِضَادَتَيْهِ الْحِجَارَةَ

আনাস (রাযি.) বলেনঃ আমি তোমাদের বলছি, এখানে মুশরিকদের কবর এবং ভগ্নাবশেষ ছিল। আর ছিল খেজুর গাছ। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -এর নির্দেশে মুশরিকদের কবর খুঁড়ে ফেলা হলো, অতঃপর ভগ্নাবশেষ সমতল করে দেয়া হলো, খেজুর গাছগুলো কেটে ফেলা হলো অতঃপর মসজিদের কিবলায় সারিবদ্ধ করে রাখা হলো এবং তার দুই পাশে পাথর বসানো হলো। [সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৪২৮]

لو أن مقبرة من مقابر المسلمين عفت فبنى قوم عليها مسجدا لم أر بذلك بأسا (إلى قوله) فإذا درست واستفنى عن الدفن فيها جاز صرفها إلى المسجد (عمد القارى، كتاب الصلاة، باب هل تنبش قبور مشركى الجاهلية وتيخذ مكانها مساجدا، دار إحياء التراث-4\179، زكريا-3\435، رقم-427)

لو بلى الميت وصار ترابا جاز دفن غيره فى قبره وزرعه والبناء عليه (تبيين الحقائق، كتاب الصلاة، باب الجنائز، قبيل فصل فى التعزير، زكريا-1\589، مكتبه امدادية ملتان-1\246، رد المحتار-3\145، البحر الرائق-2\341)

لو أن مقبرة من مقابر المسلمين عفت فبنى قوم فيها مسجدا لم أر بذلك بأسا، لأن المقابر وقف من أوقاف المسلمين لدفن موتاهم، لا يجوز لأحد أن يملكها فإذا درست واستغنى عن الدفن فيها جاز صرفها إلى المسجد، لأن المسجد أيضا وقف من أوقاف المسلمين، لا يجوز تمليكه لأحد، فمعناهما واحد (عمدة القارى شرح صحيح البخارى، باب هل تنبش قبور مشركى الجاهلية ويتخذ مكانها مسجدا الخ-4/179 دمشق، 3/435 تحت رقم-428 دار الفكر بيروت

وَإِنْ بَقِيَ مِنْ عِظَامِهِمْ شَيْءٌ تُنْبَشُ وَتُرْفَعُ الْآثَارُ وَتُتَّخَذُ مَسْجِدًا، لِمَا رُوِيَ «أَنَّ مَسْجِدَ النَّبِيِّ – صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ – كَانَ قَبْلُ مَقْبَرَةَ الْمُشْرِكِينَ فَنُبِشَتْ» كَذَا فِي الْوَاقِعَاتِ (رد المحتار-2\145-146)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

ইকামত শুরু হলে কখন দাঁড়ানো সুন্নাহ সম্মত?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম। মুফতী সাহেবের কাছে আমার প্রশ্ন হল, চট্টগ্রামসহ বেশ কিছু এলাকায় আমি দেখেছি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *