প্রচ্ছদ / অজু/গোসল/পবিত্রতা/হায়েজ/নেফাস / বারবার বীর্য বের হলে বারবারই কি গোসল করতে হবে?

বারবার বীর্য বের হলে বারবারই কি গোসল করতে হবে?

প্রশ্ন

From: shirin
বিষয়ঃ গোসলের ফরজ সম্পর্কে |

প্রশ্নঃ
আসসালামুয়ালাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ |

মুহতারাম,

একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের যৌন উত্তেজনার সাথে যদি লজ্জা স্থান ভিজে যায়।
তবে কি তার জন্যে গোসল ফরজ হবে?
কারও যদি  রোজ চার- ছয় বার এইরকম হয় এবং তার অসুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তার ব্যাপারে কি হুকুম আসবে?
তার কি প্রতিবার-ই গোসল করতে হবে?
নাকি তাইম্মুম করে নিলেও চলবে?
পরে যখন সে গোসল করবে,তখন কি তার জন্যে গোসলের ফরজগুলো আদায় করতে হবে?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله  وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

যত বারই উত্তেজনার সাথে লজ্জাস্থান দিয়ে বীর্যপাত হবে, ততোবারই গোসল করতে হবে। যদি গোসল না করে, একাধিকবার বীর্যপাত হয়, তাহলে একবার ফরজ গোসল করার দ্বারাই পবিত্র হয়ে যাবে।

উত্তেজনার সাথে বীর্যপাত হলে পানি থাকা অবস্থায় তায়াম্মুম করলে পবিত্র হবে না, বরং গোসলের ফরজ আদায়সহ গোসল সম্পন্ন করতে হবে।


إِنَّمَا الْمَاءُ مِنَ الْمَاءِ

তথা পানি [বের হবার দ্বারা] পানি {শরীরে ঢালা তথা গোসল] আবশ্যক হয়। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৩৪৩}

وفرض الغسل عند خروج منى منفصل عن مقره بشوهة وإن لم يخرج من رأس الذكر بها (الدر المختار مع رد المحتار-1/295-297، هندية-1/14، المحيط البرهانى-1/229)

وفرض الغسل عند خروج المنى من العضو……، بشهوة أى لذة ولو حكما كمحتلم….، وعند إيلاج حشفة هى ما فوق الختان آدمى…….، وإن لم ينزل منيا بالإجماع (الدر المختار مع رد المحتار-1/295-299)

عن على رضى الله عنه مرفوعا قال: إنما الغسل من الماء الدافق (السنن الكبرى للبيهقى، كتاب الطهارة، باب وجوب الغسل بخروج المنى-1/282، رقم-811)

وَلَا جُنُبًا إِلَّا عَابِرِي سَبِيلٍ حَتَّىٰ تَغْتَسِلُوا ۚ وَإِن كُنتُم مَّرْضَىٰ أَوْ عَلَىٰ سَفَرٍ أَوْ جَاءَ أَحَدٌ مِّنكُم مِّنَ الْغَائِطِ أَوْ لَامَسْتُمُ النِّسَاءَ فَلَمْ تَجِدُوا مَاءً فَتَيَمَّمُوا صَعِيدًا طَيِّبًا فَامْسَحُوا بِوُجُوهِكُمْ وَأَيْدِيكُمْ ۗ إِنَّ اللَّهَ كَانَ عَفُوًّا غَفُورًا [٤:٤٣]

আর (নামাযের কাছে যেও না) ফরয গোসলের আবস্থায়ও যতক্ষণ না গোসল করে নাও। কিন্তু মুসাফির অবস্থার কথা স্বতন্ত্র আর যদি তোমরা অসুস্থ হয়ে থাক কিংবা সফরে থাক অথবা তোমাদের মধ্য থেকে কেউ যদি প্রস্রাব-পায়খানা থেকে এসে থাকে কিংবা নারী গমন করে থাকে,কিন্তু পরে যদি পানিপ্রাপ্তি সম্ভব না হয়, তবে পাক-পবিত্র মাটির দ্বারা তায়াম্মুম করে নাও-তাতে মুখমন্ডল ও হাতকে ঘষে নাও। নিশ্চয়ই আল্লাহ তা’আলা ক্ষমাশীল। [সূরা নিসা-৪৩]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

মুসলমানের জন্য কাফেরের সাথে বিবাহ করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: সারওয়ার বিষয়ঃ অমুসলিম বা কাফের এর সাথে সম্পর্ক করা যাবে কি না?? প্রশ্নঃ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস