প্রচ্ছদ / অপরাধ ও গোনাহ / ঘুষ দিয়ে সরকারী চাকুরী নেয়ার বিধান কী?

ঘুষ দিয়ে সরকারী চাকুরী নেয়ার বিধান কী?

প্রশ্ন

From: মুহাম্মাদ মুনযির খান
বিষয়ঃ ঘুষ দিয়ে চাকুরী নেয়া

প্রশ্নঃ
আসসালামু আলাইকুম হুযুর..
আমি এইচ .এস .সি কমপ্লিট করার পর অনার্সে ভর্তি হই পরে  ২ বছর পর. আমি একটা প্রেমে ছ্যাঁকা খেয়ে আমার
অনার্স গোল্লায় যায়,এরপর আমার মানসিকতা দূর্বল হয়ে পড়ে .আবার ভর্তি হই কিন্তু আমার পড়ালেখা আর করতেই ইচ্ছে করতেছেনা..আমার বাবা আমাকে ঘুষ দিয়ে সরকারী চাকুরী নিতে বলতেছে..
ঘুষ দিয়ে চাকরি নিলে কি বেতন হালাল থাকবে ?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

যদি আপনি প্রার্থিত পদের যোগ্য হোন, তাহলে বাধ্য হয়ে ঘুষ দিয়ে চাকুরী নেয়া জায়েজ আছে। কিন্তু ঘুষ গ্রহণ কোনভাবেই জায়েজ নয়।

আর যদি উক্ত পদের যোগ্য না হোন, তাহলে ঘুষ দিয়ে চাকুরী নেয়া জায়েজ হবে না।


عَنْ عَبْدِ اللهِ بْنِ عَمْرٍو، قَالَ: ” لَعَنَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ الرَّاشِيَ وَالْمُرْتَشِيَ (مسند احمد، رقم الحديث- 6830، سنن ابن ماجه، رقم الحديث- 2313 ، سنن ابى داود، رقم الحديث- 3580، سنن ترمذى، رقم الديث- 1336)

دفع المال للسلطان الجائر لدفع الظلم عننفسه وماله ولاستخراج حق له ليس برشوة يعني في حق الدافع (رد المحتار، كتاب الحظر ولاباحة-9/607، فتح القدير، كتاب ادب القاضى-7/255، البحر الرائق، كتاب القضاء-6/262)

ما يدفع لدفع الخوف من المدفوع إليه على نفسه أو ماله حلال للدافع، حرام على الأخذ (رد المحتار-8\35)

فأما إذا أعطى ليتوصل به إلى حق أو يدفع عن نفسه ظلما، فأنه غير داخل فى هذا الوعيد (بذل المجهود-11\206)

والرشوة إ ذا كانت لدفع الضرر عن نفسه وعن رب المال كانت جائزة للدافع مأذونا فيها عادة من المالك، وإن حرمت على الآخذ انتهى (قرة عين الأخيار لتكملة رد المحتار، دار الفكر بيروت-8\460)

اتفقوا جميع المتأولين لهذه الآية على أن قبول الرشاء محرم، واتفقوا على أنه من السحت التى حرمه الله تعالى، والرشوة تنقسم إلى وجوه، منها: الرشوة فى الحكم، وذلك محرم على الراشى والمرتشى جميعا، وهو الذى قال فيه النبى صلى الله عليه وسلم: لعن الله الراشى والمرتشى، وهو الذى يمشى بينهما، فذلك لا يخلو من أن يرشوه ليقض له بحقه أو بما ليس بحق له (الجامع لأحكام القرآن الكريم للجصاص-2\433)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

গাইরুল্লাহকে সেজদা করা ও ফাতিমা রাঃ এর মূর্তি বানিয়ে সেজদা দেয়ার হুকুম কী?

প্রশ্ন আস্সালামুআলাইকুম হযরত। কেমন আছেন? দ্বীনের বিভিন্ন সমস্যায় সর্বদাই আপনার পরিচালিত ওয়েবসাইট হতে সাহায্য নেই। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস