প্রচ্ছদ / অপরাধ ও গোনাহ / একাধিকবার গোনাহ করার পর তওবা করলে কি গোনাহ মাফ হবে না?

একাধিকবার গোনাহ করার পর তওবা করলে কি গোনাহ মাফ হবে না?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম,

হুজুর আমি আপনার খুব ভক্ত। মহান আল্লাহর কাছে আপনার জন্য দোয়া করি।

আপনার কাছে একটি বিষয়ে জানতে চাই।

আমার এক ফুফাতো বোন জানতো যে,কেউ যদি বার বার বড় কুফরী ও করে এবং মৃত্যুকষ্ট শুর হওয়ার আগে তাওবা করে তাহলে আল্লাহ সবগুনাহ মাপ করে দিবেন।

শয়তানের ফাঁদে পড়ে  আমার বড় ফুফাতো বোন  আখেরাতকে পুরোপুরি অবিশ্বাস করলো এবং তার ছোট বোনকে ও আখেরাতকে অবিশ্বাস করতে বললো।

ফলে তার ছোট বোন ও আখেরাতকে অবিশ্বাস  করতে লাগলো।

এভাবে কিছুদিন যাওয়ার পর বড় ফুফাতো বোনটির মধ্যে অনুশোচনা আসলো , সে আবার ঈমান আনলো কিন্তু কিছুদিন পর আবার বড় কুফরি করে বসলো।এভাবে ৫ বার ঈমান আনলো আবার বড় কুফরী করলো।

এরপর একপর্যায়ে তাদের মধ্যে অনুশোচনা আসলো ফলে  তারা  আবার ঈমান আনলো এবং  তারা আর কখনো বড় কুফরি করেনি। কিছুদিন আগে আমার বড় ফুফাতো বোনটি অনুবাদসহ কুরআন মাজীদ পড়তে গিয়ে সুরা নিসার ১৩৭, ১৬৭,১৬৮ নং আয়াতের অনুবাদ পড়ে ভয় পেয়ে যায়।

তারপর আমার কাছে সবকিছু খুলে বলে।অনেক কান্না করতেছে তারা বলতেছে তারা তো এখন আর কুফরী করেনা।তাদের তাওবা মহান আল্লাহ কবুল করেছেন কিনা?

তাদের জন্য কি আর কোন পথ খোলা নেই?

তারা আমাকে বলতেছে আমার কোন পরিচিত কোন  ভালো আলেম আছে কিনা?

তাই আপনার কাছে আমার প্রশ্ন তাদের এখন কি করনীয়? তাদের এই ব্যাপারটি তারা আর আমি ছাড়া কেউ জানেনা।তারা মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহন করছে।

তারা যদি সত্যিকার তওবা করে থাকে আর জীবনে কখনোই কুফরী না করে তাহলে মহান আল্লাহ তাদেরকে মাপ করবেন কিনা?

আমার বড় ফুফাতো বোন যে জানতো বার বার কুফরী করলে ও তওবা আল্লাহ মাপ করে দিবেন  সেটা সঠিক কিনা?

তারা দুজনে মহান আল্লাহর ভয়ে অস্থির হয়ে আছে।

উত্তরটি জানালে উপকৃত হবো।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

যদি তিনি খাঁটি দিলে তওবা করে থাকেন। অতীত গোনাহের জন্য অনুতপ্ত হয়ে ক্ষমাপ্রার্থনা করেন। ভবিষ্যতে আর কখনো উক্ত গোনাহ না করার দৃঢ় সংকল্প করেন, তাহলে ইনশাআল্লাহ আল্লাহ তাআলা তার পিছনের যাবতীয় গোনাহ ক্ষমা করে দিবেন।

যেহেতু তিনি কুফরীর মত গোনাহ করেছেন। তাই তার উচিত নতুন করে কালিমায়ে শাহাদত পড়ে নেয়া। ভবিষ্যতে এহেন গোনাহ না করার দৃঢ়  সংকল্পের সাথে তওবা করা।

ইনশাআল্লাহ মহান রব্বে কারীম তার পিছনের গোনাহ ক্ষমা করে দিবেন।

إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ التَّوَّابِينَ وَيُحِبُّ الْمُتَطَهِّرِينَ [٢:٢٢٢

নিশ্চয়ই আল্লাহ তওবাকারী এবং অপবিত্রতা থেকে যারা বেঁচে থাকে তাদেরকে পছন্দ করেন। [বাকারা-২২২]

إِنَّمَا التَّوْبَةُ عَلَى اللَّهِ لِلَّذِينَ يَعْمَلُونَ السُّوءَ بِجَهَالَةٍ ثُمَّ يَتُوبُونَ مِنْ قَرِيبٍ فَأُولَٰئِكَ يَتُوبُ اللَّهُ عَلَيْهِمْ ۗ وَكَانَ اللَّهُ عَلِيمًا حَكِيمًا [٤:١٧]

অবশ্যই আল্লাহ তাদের তওবা কবুল করবেন,যারা ভূলবশতঃ মন্দ কাজ করে,অতঃপর অনতিবিলম্বে তওবা করে; এরাই হল সেসব লোক যাদেরকে আল্লাহ ক্ষমা করে দেন। আল্লাহ মহাজ্ঞানী,রহস্যবিদ। {সূরা নিসা-১৭ }

وَإِنِّي لَغَفَّارٌ لِّمَن تَابَ وَآمَنَ وَعَمِلَ صَالِحًا ثُمَّ اهْتَدَىٰ [٢٠:٨٢]

আর যে তওবা করে,ঈমান আনে এবং সৎকর্ম করে অতঃপর সৎপথে অটল থাকে,আমি তার প্রতি অবশ্যই ক্ষমাশীল। [সূরা ত্বহা-৮২]

وَتُوبُوا إِلَى اللَّهِ جَمِيعًا أَيُّهَ الْمُؤْمِنُونَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ [٢٤:٣١]

মুমিনগণ,তোমরা সবাই আল্লাহর সামনে তওবা কর,যাতে তোমরা সফলকাম হও। [সূরা নূর-৩১]

إِلَّا مَن تَابَ وَآمَنَ وَعَمِلَ عَمَلًا صَالِحًا فَأُولَٰئِكَ يُبَدِّلُ اللَّهُ سَيِّئَاتِهِمْ حَسَنَاتٍ ۗ وَكَانَ اللَّهُ غَفُورًا رَّحِيمًا [٢٥:٧٠]

কিন্তু যারা তওবা করে বিশ্বাস স্থাপন করে এবং সৎকর্ম করে, আল্লাহ তাদের গোনাহকে পুন্য দ্বারা পরিবর্তত করে এবং দেবেন। আল্লাহ ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু। [সূরা ফুরকান-৭০]

হযরত উবাদা বিন আব্দুল্লাহ তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন,রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেনঃ

التَّائِبُ مِنَ الذَّنْبِ، كَمَنْ لَا ذَنْبَ لَهُ

গোনাহ থেকে তওবাকারী এমন,যেন সে গোনাহ করেইনি। [সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-৪২৫০]

হযরত আয়শা রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন,

فَإِنَّ العَبْدَ إِذَا اعْتَرَفَ ثُمَّ تَابَ، تَابَ اللَّهُ عَلَيْهِ

বান্দা গোনাহ স্বীকার করে মাফ চাইলে আল্লাহ পাক তা কবুল করেন। [সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৪১৪১]

عَنْ أَبِي بَكْرٍ الصِّدِّيقِ، رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «مَا أَصَرَّ مَنِ اسْتَغْفَرَ، وَإِنْ عَادَ فِي الْيَوْمِ سَبْعِينَ مَرَّةٍ

হযরত আবু বকর রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেছেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, যদি কেউ ক্ষমা প্রার্থনা করে, তবে সে দৈনিক সত্তর বার গোনাহ করলেও সে যেন আসলে গোনাহই করেনি। [সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-১৫১৪]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

নারীকে শুধু সন্তান জন্ম আর স্বামীর তৃপ্তির জন্যই সৃষ্টি করা হয়েছে?

ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস