হোম / আদব ও আখলাক / জামাতে নামাযে ভিড়ের সময় সামনের মুসল্লির পিঠের উপর সেজদা দেয়া যাবে কি?

জামাতে নামাযে ভিড়ের সময় সামনের মুসল্লির পিঠের উপর সেজদা দেয়া যাবে কি?

প্রশ্ন

আস্‌-সালামু আলাইকুম।

ভিড় প্রচণ্ড হলে সামনের মুসুল্লীর পিঠের উপর সিজদা দেওয়া যায়।

​” – বৃষ্টির দিনে জুমুয়ার নামাযে মুসুল্লীদের ভীড়ের কারণে জায়গা​র সমস্যা হওয়ায় ইমাম সাহেব উক্ত কথাটি বললেন।

উপস্থিত এক মুসুল্লী সাথে সাথে কথাটির দলীল জানতে চেয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। উল্লেখ্য, প্রশ্নকারী ব্যক্তি মাযহাব মানেন না কিন্তু তাকে কেউ “আহলে হাদীস” বললেও কষ্ট পান। ইমাম সাহেবও উপস্থিত তাকে “আহলে হাদীস” বললে তিনি তা অস্বীকার করে বলেনঃ “আহলে হাদীসও নই”।

জানতে চাচ্ছিঃ

(১) ইমাম সাহেবের উক্ত কথার আসলে কোন দলীল আছে কিনা?

(২) পিঠের উপর কপাল না পড়ে যদি সামনের কাতারের মুসুল্লীর পায়ের/নিতম্বের উপর সিজদা হয় তাহলে কি হবে?

(৩) ইমাম সাহেবের জন্য এরুপ পরিস্থিতিতে বিব্রত না হয়ে কি কি পদক্ষেপ নেয়া উচিত ছিল?

(৪) কোন কোন লা মাযহাবী (গাইরে মুকাল্লীদ) – কে “আহলে হাদীস” বললে তারা ক্ষেপে যান/অস্বীকার করেন। এর কারণসমূহ কি কি?

নামঃ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক (ময়মনসিংহ)

[একটি নিবেদনঃ ওয়েবসাইটে আমার নামটি প্রকাশ না করলে কৃতজ্ঞ হব।]

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

ইমাম সাহেব যা বলেছেন, তা বিশুদ্ধ। ভিড়ের সময় সামনের মুসল্লির পিঠের উপর সেজদা দেয়া জায়েজ। এতে সামনের মুসল্লির নিতম্ব বা পায়ের কাছে সেজদা হলেও সমস্যা নেই।

এমনটিই বিশুদ্ধ সূত্রে বর্ণিত হয়েছে।

হযরত উমর রাঃ জুমআর খুতবায় একদা বলেনঃ

فَإِذَا اشْتَدَّ الزِّحَامُ فَلْيَسْجُدِ الرَّجُلُ مِنْكُمْ عَلَى ظَهْرِ أَخِيهِ.

যদি ভিড় বেশি হয়, তাহলে একজন অপরজনের পিঠের উপর সেজদা কর। [মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-২০১৭]

হাদীসটি সহীহ।

قَالَ عُمَرُ: «إِذَا لَمْ يَقْدِرْ أَحَدُكُمْ عَلَى السُّجُودِ يَوْمَ الْجُمْعَةِ فَلْيَسْجُدْ عَلَى ظَهْرِ أَخِيهِ»

হযরত উমর রাঃ বলেছেনঃ যখন তোমাদের কেউ জুমআর দিন সেজদা দিতে না পারে [ভিড়ের কারণে] তাহলে সে তার অপর ভাইয়ের পিঠের উপর সেজদা দিবে। [মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-২৭২০]

عَنْ طَاوُسٍ، قَالَ: «إِذَا لَمْ يَسْتَطِعْ يَوْمَ الْجُمْعَةِ عَلَى الْأَرْضِ، فَأَهْوَى بِرَأْسِهِ فَلْيَسْجُدْ عَلَى ظَهْرِ أَخِيهِ»

তাউস রহঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, জুমআর দিন [ভিড়ের কারণে] জমিনে সেজদা দিতে না পারলে মাথা উঠিয়ে সামনের মুসল্লির পিঠে সেজদা করবে। [মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-২৭২৩]

এরকম অনেক আছারে সাহাবা প্রমাণ করে ভিড়ের সময় জমিনে সেজদা না দিতে পারলে সামনের মুসল্লির পিঠের উপর সেজদা দেবার বিধান।

সুতরাং আপনাদের ইমাম সাহেব কোন ভুল তথ্য দেননি।

বিজ্ঞ আলেম কোন মাসআলা বললে প্রকাশ্য দলীল জানতে চাওয়া এক ধরণের বেআদবী। প্রয়োজনে একান্তভাবে সাক্ষাৎ করে দলীল চাওয়া যায়। দলীল চাওয়া কোন অন্যায় নয়। কিন্তু আলেম বা ইমামকে লজ্জিত করার জন্য এমন আচরণ করা ধৃষ্টতা ছাড়া কিছু নয়।

যখন কোন মজলিসে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়, তখন সংশ্লিষ্ট আলেমের উচিত ঠান্ডা মাথায় বলা যে, এ কথার দলীল রয়েছে। তবে ঠিক এই মুহুর্তে আমার রেফারেন্স মনে নেই। আপনি পরে আমার সাথে দেখা করুন। আমি দলীল দেখিয়ে দেবো।

#

মাযহাব অস্বিকারকারী ফিরক্বা অনেক দলে বিভক্ত। তাদের অনেকে নিজেকে আহলে হাদীস দাবী করে। কেউবা নিজেদের শুধু মুসলিম বলে পরিচয় দেয়। কেউবা নিজেদের মুআহহিদীন বলে থাকেন। আরো অনেক দলে বিভক্ত এ গায়রে মুকাল্লিদ ফিরক্বা।

তাদের সঠিক পরিচয় হল, তারা লা-মাযহাবী বা গায়রে মুকাল্লিদ।

যেহেতু তারা অনেক দলে বিভক্ত। তাই তাদের নিদৃষ্ট একটি দলের নামে বললে তারা সেই দলের অন্তর্ভূক্ত না হলে ক্ষিপ্ত হন।

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

তারাবীহ নামাযের চার রাকাতের পর বসে মুনাজাত করা যাবে কি?

প্রশ্ন তারাবীহ নামাজে চার রাকাত পর পর মোনাজাত করা কি জায়াজ আছে? উত্তর بسم الله …