প্রচ্ছদ / জুমআ ও ঈদের নামায / ঈদের নামাযে তাকবীর ভুল হলে সাহু সেজদা দেবার হুকুম কী?

ঈদের নামাযে তাকবীর ভুল হলে সাহু সেজদা দেবার হুকুম কী?

প্রশ্ন:

মুহতারাম, গত কুরবানির ঈদে আমি ঈদের নামাজ পড়ার জন্য ইদগাহে যাই , সেখানে ৮০০/৯০০ শত মানুষ এক সাথে নামাজ পড়ে , ঈদের নামাজ পড়ার সময় ১ম রাকাতে ইমাম সাহেব অতিরিক্ত ৩ তাকবীরের সাথে ভুলে আরেকটি তাকবীর দিয়ে দেন , এরপর শেষে সাহু সেজদা না দিয়েই নামাজ শেষ করেন , নামাজ শেষে একদল বলে নামাজ হয়নি , ইমাম সাহেবসহ আরেকদল বলে নামাজ হয়ে গেছে, জানার বিষয় হলো উক্ত নামাজের বিধান কি?

নিবেদক:
জাফরুল্লাহ জুনায়েদ
চৌমুহনী, নোয়াখালী

উত্তর:
بسم الله الرحمن الرحيم

প্রশ্নোক্ত কারনে সাহু সেজদা আবশ্যক হয়েছিল । তবে মুসল্লীর আধিক্য ও ফেৎনার আশঙ্কা থাকায় সাহু সেজদা না দেওয়ার সুযোগ ছিল বিধায় নামাজটি সহীহ হয়েছে ।

# وجوب سجدة السهو لزيادة التكبير في العيدين :

جاء في “مختصرالقدوري ” ص 103 ، سجود السهو واجب في الزيادة و النقصان بعد السلام يسجد سجدتين ثم يتشهد و يسلم ، و يلزمه سجود السهو إذا زاد في صلاته فعلا من جنسها ليس منها، انتهى

جاء في ” البحر الرائق ” 2/ 170 ، العاشر تكبيرات العيدين ، قال في البدائع : إذا تركها أو نقص منها أو زاد عليها أو أتى بها في غير موضعها فإنه يجب عليه السجود ، انتهى

و كذا في ” بدائع الصنائع” 1/ 406 ، و في “الفتاوى الهندية” 1/ 128 ، و في ” الفتاوى الخانية ” 1/ 121 ،

# رخصة ترك سجدة السهو في صلاة العيدين و الجمعة :

جاء في ” إمداد الفتاح ” ص 485 ، لا يأتي الإمام بسجود السهو في الجمعة و العيدين دفعا للفتنة بكثرة الجماعة و بطلان صلاة من يرى لزوم المتابعة و فساد صلاة بتركها و درء المفسدة على جلب المصلحة ، انتهى

و كذا في ” مراقي الفلاح مع حاشية الطحطاوي” ص465، و في الفتاوى الهندية 1/ 128

والله اعلم باصواب
উত্তর লিখনে
মুহা. ইসমাঈল
শিক্ষার্থী : ইফতা বিভাগ- মা’হাদুত তালীম ওয়াল বুহুসীল ইসলামিয়া ঢাকা ।

সত্যায়নে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী– মা’হাদুত তালীম ওয়ালবুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

মেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

বিবাহের মাঝে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ব্যয় করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: মোঃ আবুল কাশেম বিষয়ঃ বিয়ের মধ্যে লাইটিং,ডেকোরেটর,গেট,অনেক মানুষ খাওয়ানো এবং সাজ-সজ্জা প্রসেঙ্গ। প্রশ্নঃ …

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস