হোম / জুমআ ও ঈদের নামায / সাধারণ্যের জন্য প্রবেশ নিষিদ্ধ এমন মসজিদে জুমআর নামায পড়ার হুকুম কী?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

সাধারণ্যের জন্য প্রবেশ নিষিদ্ধ এমন মসজিদে জুমআর নামায পড়ার হুকুম কী?

প্রশ্ন:

বরাবর

ইফতা বিভাগ

তালীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার

বিষয়: আমার ভাই নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে পড়া লেখা করে , সেখানের ছাত্র সংখ্যা প্রায় ২০ হাজার , ছাত্রদের সুবিধার্থে ভার্সিটির ভিতরে জুমার ব্যবস্থা করা হয়েছে । তবে এই ভার্সিটির মসজিদে কেবলমাত্র এখানকার শিক্ষক ছাত্র ও উস্তাদরাই নামায পড়তে পারে । তারা ব্যতীত অন্য কেউ ভার্সিটিতে প্রবেশ করতে পারেনা । আমার জানার বিষয় হল , এমতাবস্থায় এখানে জুমার নামায হবে কিনা?

নিবেদক

আব্দুর রহমান মাহদী, ঢাকা

উত্তর:

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

হ্যাঁ, প্রশ্নোক্ত স্থানে জুমআ সহীহ হবে । তবে উত্তম হলো সম্ভব হলে কোনভাবে বহিরাগতদের জুমআর জন্য প্রবেশ করার সুযোগ করে দেওয়া।

1

/ جاء في مجمع الانهر: 1/ 246 كتاب الصلاة ( ط مكتبة رشيدية ) قال : وما يقع في بعض القلاع من غلق أبوابه خوفا من الأعداء أو كانت له عادة قديمة عند حضور الوقت فلا بأس به لأن إذن العام مقرر لأهله ولكن لو لم يكن لكان أحسن كما في شرح عيون المذاهب وفي البحر والمنح خلافه لكن ما قررناه أولى لأن الإذن العام يحصل بفتح باب الجامع وعدم المنع ولا مدخل في غلق باب القلعة وفتحه ولأن غلق بابها لمنع العدو لا لمنع غيره تدبر. انتهى

 2

وفي الدر المختار مع رد المحتار : 3/ 28 كتاب الصلاة ( ط كمتبة الازهر) قال : الإذن العام ….. فلا يضر غلق باب القلعة لعدو أو لعادة قديمة لأن الإذن العام مقرر لأهله و غلقه لمنع العدو ولا المصلي ، نعم لو لم يغلق لكان أحسنت انتهى ، قال ابن عابدين تحت قوله ( الإذن العام ) قال: اعلم أن هذ الشرط لم يذكر في ظاهر الرواية، و لذا لم يذكره في الهداية بل هو مذكور في النوادر ، ومشى عليه في الكنز و الوقاية والنقاية و الملتقي و كثير من المعتبرات . انتهى

3

وفي حاشية الطحطاوي على مراقي الفلاح: ص 51 كتاب الصلاة ( ط دار الكتاب) : قال : قلت اطلعت على رسالة للعلامة ابن الشحنة ، وقد قال فيها بعدم صحة الجمعة في قلعة القاهرة لأنها تقفل  وقت صلاة الجمعة ، و ليست مصرا على حدتها، و أقول في المنع نظر ظاهر لأن وجه القول بعم صحة صلاة الإمام بقفله قصره اختصاصه بها دون العامة ،

و العلة مفقودة في هذه القضية فأن القلعة وإن قفلت لم يختص الحاكم فيها بالجمعة لان عند باب القلعة عدة جوامع في كل منها خطبة لا يفوت من منع من دخول عن قلعة الجامعة ، بل لو بقيت القلعة مقتوحة لايرغب في طلوعها للجمعة لوجودها فيها هو أسهل من التكلف بالعصود لها، في كل محلة من المصر عدة من الخطب فلا وجه لمنع صحة الجمعة بالقلعة عند قفلها. انتهى

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

মুহা. শাহাদাত হুসাইন

শিক্ষার্থী: ইফতা বিভাগ

মা’হাদুত তালীম ওয়াল বুহুসিল ইসলামিয়া রামপুরা, ঢাকা।

সত্যায়নে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

বুখারী শরীফে নবীজী নূরের তৈরী হওয়া বিষয়ক হাদীস আছে?

প্রশ্ন From: আবদুল্লাহ আল মামুন বিষয়ঃ গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন নবীজি (সাঃ) নুরের তৈরি কিনা? প্রশ্নঃ হযরত, …