প্রচ্ছদ / প্রশ্নোত্তর / স্বপ্নে খানা খেলে কি রোযা ভঙ্গ হয়ে যায়?

স্বপ্নে খানা খেলে কি রোযা ভঙ্গ হয়ে যায়?

প্রশ্ন

নাম- মোঃরাজীব শরীফ,চট্রোগ্রাম।

আসসালামু আলাইকুম।
জনাব,আমি রোজা থাকা অবস্থায় ঘুমি গেলেই স্বপ্নে দেখি বিভিন্ন রকমের খাদ্য খাচ্ছি।
এভাবে স্বপ্নের ঘরে খাদ্য খেলে রোজা ভেঙ্গে যাবে কিনা?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

ঘুমের মধ্যে যা কিছুই করেন এর দ্বারা দুনিয়া আখেরাতের কোন কিছুই প্রমাণিত হয় না।

ঘুমের মাঝে মানুষ কত কিছুই করে। এর দ্বারা যেমন দুনিয়ার কোন কিছু অর্জিত হয় না। তেমনি শরয়ী কোন বিধানও আরোপিত  হয় না। সেই হিসেবে ঘুমের মাঝে আপনি যত ইচ্ছে খানা খান এর দ্বারা যেমন আপনার পেট ভরে না, তেমনি রোযাও ভাঙ্গবে না।

عن عائشة عن النبي صلى الله عليه وسلم قال رفع القلم عن ثلاثة عن النائم حتى يستيقظ وعن الصغير حتى يكبر وعن المجنون حتى يعقل

হযরত আয়শা রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন-তিন ব্যক্তি থেকে [হিসাব-নিকাশের] কলম উঠিয়ে রাখা হয়েছে, ১-ঘুমন্ত ব্যক্তি যতক্ষণ না সে জাগ্রত হয়, ২-না বালেগ, যতক্ষণ না সে বালেগ হয়, ৩-পাগল ব্যক্তি, যতক্ষণ না সে সুস্থ্য হয়। {তাহাবী শরীফ, হাদীস নং-৩০২৮, সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-৪৪০৫, সুনানে তিরমিযী, হাদীস নং-১৪২৩, সুনানে দারা কুতনী, হাদীস নং-১৭৩, সুনানে দারেমী, হাদীস নং-২২৯৬,  সহীহ ইবনে হিব্বান, হাদীস নং-১৪২, সহীহ ইবনে খুজাইমা, হাদীস নং-১০০৩, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-৯৪০}

عن أبي قتادة قال قال رسول الله صلى الله عليه و سلم : ليس في النوم تفريط إنما التفريط في اليقظة

হযরত কাতাদা রাঃ বলেন-রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন-ঘুমন্ত অবস্থার কোন ভুল হলে এতে কোন গোনাহ নেই, তবে সজাগ অবস্থায় হলে গোনাহ হবে। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-১৫৯৪, সহীহ ইবনে খুজাইমা, হাদীস নং-৯৮৯, সহীহ ইবনে হিব্বান, হাদীস নং-১৪৬০, তাহাবী শরীফ, হাদীস নং-৯০২, সুনানে সাগীর লিল বায়হাকী, হাদীস নং-৭৩৭, সুনানে নাসায়ী কুবরা, হাদীস নং-১৫৮৩, সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-৪৪১, সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-৬৯৮, সুনানে তিরমিযী, হাদীস নং-১৭৭, সুনানে দারা কুতনী, হাদীস নং-১৪, মুসনাদে আবী আওয়ানা, হাদীস নং-২১০১, মুসনাদে ইবনুল জিদ, হাদীস নং-৩০৭৫}

ولذا لا يتصف بصدق أو كذب ولا خبر ولا إنشاء وفي التحرير : وتبطل عبارته من الإسلام والردة والطلاق ، ولم توصف بخبر وإنشاء وصدق وكذب  كألحان الطيور (رد المحتار، كتاب الطلاق-2/855

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

আরও জানুন

বিধর্মীদের সালামের জবাব কিভাবে দিবে?

প্রশ্ন From: মামুন কবীর বিষয়ঃ হিন্দু ব্যক্তি কতৃক সালাম দিলে এর জবাব দেয়া যাবে কি? …

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস