হোম / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / পতিত জমি এবং সমিতিতে জমা টাকার উপর কুরবানী আবশ্যক হয়?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

পতিত জমি এবং সমিতিতে জমা টাকার উপর কুরবানী আবশ্যক হয়?

প্রশ্ন

আমার বাবার হাতে ক্যাশ কোন টাকা নাই,

কিন্তু উনার কিছু জমি আছে,

এমন অবস্থায় কি উনার উপর কোরবানি ওয়াজিব হবে??

প্রশ্ন,

আমার কাছে ক্যাশ কোন টাকা নাই, আমার কিছু করজ ও আছে,

আবার কিছু টাকা সমিতিতে জমাও আছে,

এখন আমার উপর কি কোরবানি ওয়াজিব?

বর্তমান নেসাবের পরিমাণ সমান কত টাকা,

আশাকরি আমার প্রশ্নের উত্তর আমার মেইল পাওয়ার সাথে সাথেই দিবেন, আমি খুভ উপকৃত হব,

আবেদনকারী

মু কাওসার

কাতার,

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

আপনার প্রশ্নটি স্পষ্ট নয়।

আপনার পিতার যে জমি আছে তা দিয়ে তিনি কী করেন? তা স্পষ্ট বলা প্রয়োজন ছিল। যদি তা দিয়ে ফসল করা হয়, তাহলে জমিনের উপর বা মূল্যের উপর কুরবানী বা সদকা আসবে না।

আর যদি তা প্রয়োজন অতিরিক্ত জমি হয়। যা দিয়ে কিছুই করা হয় না। বরং তা পতিত। তাহলে উক্ত জমির মূল্য যদি নিসাব পরিমাণ হয়, তাহলে তার উপর কুরবানী করা আবশ্যক হবে।

কারণ, তখন উক্ত জমিটি প্রয়োজনের অতিরিক্ত হিসেবে সাব্যস্ত হবে।

উপরোক্ত দু’টি হালাত অনুপাতে আপনার বাবার উপর কুরবানী আবশ্যক কি না? তা নির্ণয় করে নিন।

বর্তমান নিসাব হল, সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার মূল্য হিসেবে চল্লিশ হাজার টাকার মত।

আপনার সমিতিতে যে টাকা জমা আছে, তা ঋণ বাদে যদি উপরোক্ত পরিমাণ হয়ে থাকে, তাহলে আপনার উপর কুরবানী করা ওয়াজিব। আর যদি এর চেয়ে কম হয়, তাহলে আপনার উপর কুরবানী করা আবশ্যক নয়।

وكدار لا تكون للسكنى ولا للتجارة، ولو كان له دار واحدة يسكنها وفضلت عن سكناه يعتبر الفاضل إن كانت قيمته نصابا (مجمع الأنهر، كتاب الزكاة، باب صدقة الفطر-1/226، جديد-1/334)

ولو كانت له دور وحوانيت للغلة وهى لا تكفى عياله فهو من الفقراء (مجمع الأنهر، كتاب الزكاة، باب صدقة الفطر-1/227، جديد-1/335)

وعلى هذا الكرم والأرض ولا يعتبر ما قيمته لصاحب من قوت شهر بلا خلاف عندنا (مجمع الأنهر، كتاب الزكاة، باب صدقة الفطر-1/227، جديد-1/335)

(وَأَمَّا) (شَرَائِطُ الْوُجُوبِ) : مِنْهَا الْيَسَارُ وَهُوَ مَا يَتَعَلَّقُ بِهِ وُجُوبِ صَدَقَةِ الْفِطْرِ دُونَ مَا يَتَعَلَّقُ بِهِ وُجُوبُ الزَّكَاةِ،………. وَالْمُوسِرُ فِي ظَاهِرِ الرِّوَايَةِ مَنْ لَهُ مِائَتَا دِرْهَمٍ أَوْ عِشْرُونَ دِينَارًا أَوْ شَيْءٌ يَبْلُغُ ذَلِكَ سِوَى مَسْكَنِهِ وَمَتَاعِ مَسْكَنِهِ وَمَرْكُوبِهِ وَخَادِمِهِ فِي حَاجَتِهِ الَّتِي لَا يَسْتَغْنِي عَنْهَا، فَأَمَّا مَا عَدَا ذَلِكَ مِنْ سَائِمَةٍ أَوْ رَقِيقٍ أَوْ خَيْلٍ أَوْ مَتَاعٍ لِتِجَارَةِ أَوْ غَيْرِهَا فَإِنَّهُ يُعْتَدُّ بِهِ مِنْ يَسَارِهِ، (الى قوله) وملك نصابا تجب عليه الاضحية، (إلى قوله) وجميع ما ذكرنا من الشرائط يستوى فيه الرجل والمرأة (الفتاوى الهندية، كتاب الأضحية، فصل شرائط الوجوب-5/292، رد المحتار، كتاب الاضحية-9/452-453، مجمع الانهر-4/

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা-জামিয়া ফারুকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

অমুসলিমের দেয়া হাদিয়া-গিফট গ্রহণের হুকুম কী?

প্রশ্ন From: মোঃ মনিরুল ইসলাম বিষয়ঃ অমুসলিমদের হাদিয়া জায়েয কি না। প্রশ্নঃ কোন অমুসলিম এর …