প্রচ্ছদ / তালাক/ডিভোর্স/হুরমত / শর্তযুক্ত তালাক দিয়ে শর্ত তুলে নেয়া যাবে কি না?

শর্তযুক্ত তালাক দিয়ে শর্ত তুলে নেয়া যাবে কি না?

প্রশ্ন

Md Hasan

আস্সালামু আলাইকুম

মুফতি সাহেব

একটা মাসআলা: শর্তের সাথে তালাক দিলে শর্ত ফিরিয়ে নেয়া যায় কি না?

যেমন এক লোক তার স্ত্রীকে বলল “তুমি যদি তোমার দুলা ভাইয়ের সাথে একবার কথা বলো তাহলে তুমি এক তালাক, দুইবার বললে দুই তালাক, তিনবার বললে তিন তালাক”।

পরে ঐ মহিলা তার দুলাভাইয়ের সাথে একবার কথা বলছে, তাহলে তো এক তালাক হয়ে গেছে বুঝলাম।

পরে মহিলা স্বামীর কাছে কান্নাকাটি করছে যাতে এই শর্ত তুলে নেয়, স্বামীও রাজি হয়ে শর্তটি তুলে নেয়।

এখন জানার বিষয় হলো শর্তের সাথে তালাক দিয়ে শর্ত তুলে নেয়া যাবে কি না? বা এই মাসআলার কী হুকুম হবে?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

যদি স্ত্রী দুলাভাইয়ের সাথে কথা বলতে চাচ্ছিল, এমতাবস্থায় তাকে থামানোর জন্য তৎক্ষণাৎ হিসেবে একথা বলে যে, ‘তুমি একবার কথা বললে এক তালাক, দুইবার বললে, দুই তালাক এবং তিনবার বললে তিন তালাক’।

তাহলে স্ত্রী যদি তখন কথা না বলে। পরবর্তীতে স্বামীর সন্তুষ্টিতে কথা বলে, তাহলে কোন তালাক পতিত হবে না।

কিন্তু যদি তৎক্ষণাৎ বারণ করা উদ্দেশ্য নয়, বরং সর্বাবস্থার জন্য বারণ উদ্দেশ্যে বলে থাকে উপরোক্ত কথা, তাহলে যখন কথা বলবে তখনি উপরোক্ত তালাক পতিত হয়ে যাবে। স্বামীর কথা ফিরিয়ে নেয়ার দ্বারা কথা ফিরিয়ে নেয়া গ্রহণযোগ্য হবে না।

তাই পরবর্তীতে কথা বললে তালাক পতিত হয়ে যাবে।

এক্ষেত্রে বাঁচার পদ্ধতি হলো: এক তালাক পতিত হবার পর, ইদ্দত পর্যন্ত উক্ত স্ত্রীকে ফিরিয়ে আনবে না। ইদ্দত শেষে স্ত্রী দুলাভাইয়ের সাথে প্রয়োজনীয় কথা একাধিকবার কথা বলে নিবে।

তারপর উক্ত স্ত্রীকে স্বামী আবার দুইজন স্বাক্ষীর সামনে বিয়ে করে নিবে।

তাহলে পরবর্তীতে আর দুলাভাইয়ের সাথে প্রয়োজনীয় কোন কথা বলার দ্বারা কোন তালাক পতিত হবে না।

 

ولو أرادت المرأة الخروج فقال: إن خرجت فأنت طالق فحبست، ثم خرجت لم يحنث (هداية، اشرفى-2/486)

وشرط للحنث فى قوله “إن خرجت مثلا فأنت طالق”……. لمريد الخروج فعله فورا، لأن قصده المنع عن ذلك الفعل عرفا، ومدار الأيمان عليه وهذه تسمى يمين الفور (الدر المختار مع رد المحتار، زكريا-5/553-554، كرتاشى-3/761-762)

وإذا أضافه إلى الشرط وقع عقيب الشرط اتفاقا (الفتاوى الهندية-1/420، جديد-1/488، هداية-2/385)

وألفاظ الشرط إن، وإذا، وإذاما، وكل، ومتى، ومتى ما، ففى جميعها إذا وجد الشرط انتهت اليمين (ملتقى الأبهر، دار الكتب العلمية بيروت-2/58-59)

وَذَكَرَ مُحَمَّدٌ فِي الْجَامِعِ فِي رَجُلٍ لَهُ امْرَأَتَانِ فَقَالَ لِإِحْدَاهُمَا أَنْتِ طَالِقٌ ‌إنْ ‌دَخَلْت ‌هَذِهِ ‌الدَّارَ ‌لَا ‌بَلْ ‌هَذِهِ فَإِنْ دَخَلَتْ الْأُولَى الدَّارَ طَلُقَتَا وَلَا تَطْلُقُ الثَّانِيَةُ قَبْلَ ذَلِكَ؛ لِأَنَّ قَوْلَهُ لِإِحْدَاهُمَا أَنْتِ طَالِقٌ إنْ دَخَلْت هَذِهِ الدَّارَ تَعْلِيقُ طَلَاقِهَا بِشَرْطِ الدُّخُولِ، وَقَوْلُهُ: ” لَا ” رُجُوعٌ عَنْ تَعْلِيقِ طَلَاقِهَا بِالشَّرْطِ، وَقَوْلَهُ ” بَلْ ” إثْبَاتُ تَعْلِيقِ طَلَاقِ هَذِهِ بِالشَّرْطِ، وَالرُّجُوعُ لَا يَصِحُّ، وَالْإِثْبَاتُ صَحِيحٌ فَبَقِيَتْ فَيَتَعَلَّقُ طَلَاقُهَا بِالشَّرْطِ (بدائع النصائع، زكريا-3/56، كرتاشى-3/34، الفتاوى التاتارخانية-4/63، رقم-6933، الفتاوى الهندية-1/454، جديد-1/519)

فإن وجد الشرط فى الملك طلقت وانحلت لأنه وجد الشرط فى الملك والمحل قابل للجزاء…..(وإلا لا وانحلت) أى وإ، لم يوجد الشرط فى غير الملك (تبيين الحقائق، زكريا-3/118، امدادية ملتان-2/235)

وتنحل اليمين بعد وجود الشرط مطلقا لكن إن وجد فى الملك طلقت وعتق وإلا لا، فحيلة من علق الثلاث بدخول الدار أن يطلقها واحدة، ثم بعد العدة تدخلها فتنحل اليمين فينكحها (الدر المختار مع رد المحتار،زكريا-4/609، كرتاشى-3/355، مجمع الأنهر، دار الكتب العلمية بيورت-2/62، شرح وقاية-2/101)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

প্রধান মুফতী: জামিয়াতুস সুন্নাহ লালবাগ, ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হক লালবাগ ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com 

আরও জানুন

ঈদের খুতবায় ইমাম ও মুসল্লিদের জন্য তাকবীরে তাশরীক পড়ার হুকুম কী?

প্রশ্ন জনাব মুফতি সাহেব আমাদের এলাকায় ঈদের খুতবা হয় এমন। ইমাম সাহেব খুতবার শুরুতে মাঝে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস