প্রচ্ছদ / তালাক/ডিভোর্স/হুরমত / ‘তালাক দাও’ এর জবাবে ‘হ্যাঁ দিলাম’ কতোবার বলেছে মনে না থাকলে হুকুম কী?

‘তালাক দাও’ এর জবাবে ‘হ্যাঁ দিলাম’ কতোবার বলেছে মনে না থাকলে হুকুম কী?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম হুজুর,

আমি খুব অল্প বয়সে ছাত্রাবস্থায় বিয়ে করি।

এরপর অভাব এবং পারিবারিক সমস্যার কারনে প্রায়ই আমার স্ত্রীর সাথে আমার ঝগড়া হতো।

আমার স্ত্রী অতিরিক্ত রাগী প্রকৃতির।

সে কিছু হলেই কথায় কথায় তালাক চায়।

আমার একটাই বাচ্চা এবং সে মানসিক প্রতিবন্ধী।

নিজের জীবনের অভাব এবং বাচ্চার প্রতিবন্ধীতা নিয়ে সবসময় দুশ্চিন্তায় থাকি। এর মধ্যে যখন সে তালাক চায় কথায় কথায় আমিও রেগে গিয়ে তাকে বলেছি হ্যা দিলাম।

আমি ঠিক মনে করতে পারছি না কতবার এরকম বলেছি।

তবে ২ বারের কথা স্পষ্ট মনে হচ্ছে এরকম বলেছি।

আমি তালাকের কোনো নিয়মই জানতাম না। এখন জানার পর থেকে খুব দুশ্চিন্তায় আছি।

আমার বাচ্চা মা হারাবে এই ভেবে আমি প্রায়ই মুখ বুজে ওর মার গালাগাল সহ্য করলেও মাঝে মাঝে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মারধর, গালাগাল এবং উপরে উল্লেখিত কার্যাবলি হয়েছে। দু:খের বিষয় আমার পরিবার আমাকে কখনো বোঝায় নি, উল্টো উস্কানি দিয়েছে।

হুজুর,আমার কি করনীয় এখন? আমাকে একটা পরামর্শ দিন অনুগ্রহ করে।

উল্লেখ্য যে, আমার স্ত্রীও আমার বাচ্চার এই সমস্যা এবং পারিবারিক নানান অশান্তির কারণে মানসিকভাবে সুস্থ নন। এবং সে এতিম।

আমি তালাকের নিয়ম জেনেছি কয়েক মাস আগে। এরপর থেকে আমি খুব সাবধানে থাকার চেষ্টা করতেছি।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

স্ত্রী যখনি তালাক চেয়েছে আর এর জবাবে আপনি ‘হ্যাঁ দিলাম’ বলেছেন। ততোবারই এক তালাকে রেজয়ী পতিত হয়েছে।

এভাবে যদি তিনবার হয়ে থাকে, তাহলে উক্ত স্ত্রী তিন তালাকপ্রাপ্তা হয়ে আপনার উপর হারাম হয়ে গেছে।

তার সাথে ঘর সংসার করা আপনার জন্য জায়েজ হবে না।

এক্ষেত্রে ইদ্দত শেষে অন্যত্র বিয়ে হলে, দ্বিতীয় স্বামীর সাথে স্বাভাবিক ঘর সংসার করা অবস্থায় স্বামী কোন কারণে মৃতুবরণ করলে, বা তালাক দিলে ইদ্দত শেষে প্রথম স্বামী বিয়ে করতে পারবে। এছাড়া কোন সুযোগ নেই।

তবে যদি দুইবার হয়ে থাকে, তাহলে তার সাথে সংসার করা জায়েজ হবে। তবে ভবিষ্যতে আর আপনি এক তালাকের মালিক থাকবেন।

যদি কতোবার হয়েছে নিশ্চিত না হয়, তাহলে সর্বনিম্ন যে সংখ্যায় নিশ্চিত বা অধিক ধারণা হয়, সেটি গ্রহণযোগ্য হবে। সেই হিসেবে প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে দুই তালাক পতিত হয়েছে বলে ধর্তব্য হবে।

সেই হিসেবে ভবিষ্যতে আর আপনি এক তালাকের মালিক থাকবেন।


ولو شك أطلق واحدة أو أكثر بنى على الأقل، وفى الشامية: بنى على الأقل أى كما ذكره الاسبجابى، الا أن يستيقن بالأكثر أو يكون أكبر ظنه، (الدر المختار مع رد المحتار، كتاب الطلاق، باب الصريح-3/283، سعيد)

شك الوزج لا يخلو اما أن وقع فى أصل التطليق أطلقها أم لا؟……وان وقع فى القدر يحكم بالأقل لأنه متيقن به وفى الزيادة شك، (بدائع الصنائع، كتاب الطلاق، فصل فى الرسالة فى الطلاق-3/126، سعيد)

لَّقَهَا فَلَا تَحِلُّ لَهُ مِن بَعْدُ حَتَّىٰ تَنكِحَ زَوْجًا غَيْرَهُ ۗ فَإِن طَلَّقَهَا فَلَا جُنَاحَ عَلَيْهِمَا أَن يَتَرَاجَعَا إِن ظَنَّا أَن يُقِيمَا حُدُودَ اللَّهِ ۗ وَتِلْكَ حُدُودُ اللَّهِ يُبَيِّنُهَا لِقَوْمٍ يَعْلَمُونَ (سورة البقرة-230)

وقال الليث عن نافع كان ابن عمر إذا سئل عمن طلق ثلاثا قال لو طلقت مرة أو مرتين فأن النبي صلى الله عليه و سلم أمرني بهذا فإن طلقتها ثلاثا حرمت حتى تنكح زوجا غيرك (صحيح البخارى-2/792، 2/803)

পরামর্শ

স্ত্রীকে মারধর করা, গালাগালা করা যেমন সামাজিকতা ও ভদ্রতার খেলাফ। তেমনি শরীয়তের দৃষ্টিতে গর্হিত অপরাধ। এহেন কর্ম থেকে নিজেকে বিরত রাখা এবং অতীত কর্মের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা ও তওবা করা আবশ্যক।

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com 

আরও জানুন

ইতিকাফের কাযা করার সময় কি রোযা রাখা শর্ত?

প্রশ্ন প্রশ্নকারীর নাম: লুৎফর রহমান ঠিকানা: খৈশাইর জেলা/শহর: নারায়ণগঞ্জ দেশ: বাংলাদেশ প্রশ্নের বিষয়: ইতিকাফ বিষয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস