প্রচ্ছদ / আধুনিক মাসায়েল / ফুডপান্ডায় মদ ও শুকরের পার্সেল ডেলিভারী দিয়ে টাকা উপার্জন করার হুকুম কী?

ফুডপান্ডায় মদ ও শুকরের পার্সেল ডেলিভারী দিয়ে টাকা উপার্জন করার হুকুম কী?

 প্রশ্ন       

আমি আমেরিকার শিকাগোতে থাকি। এখানে পড়াশোনার পাশাপাশি ফুডপান্ডায় ফুড ডেলিভারীর কাজ করে টাকা উপার্জন করে থাকে। প্রায়ই দেখা যায় যে, অর্ডারকারী ব্যক্তি মদ ও শুকরের গোশত অর্ডার করে থাকে। এখন আমার প্রশ্ন হলো:

বিধর্মীদের কাছে শুকর ও মদের অর্ডার পৌঁছে দেবার হুকুম কী?  দয়া করে জানাবেন।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

মদ ও শুকরের পার্সেল পৌঁছে দেয়া মুসলমানের জন্য জায়েজ নয়। তাই আপনার উচিত যদি জানা থাকে, তাহলে এসব অর্ডার ক্যান্সেল করে দেয়া।

وَتَعَاوَنُوا عَلَى الْبِرِّ وَالتَّقْوَىٰ ۖ وَلَا تَعَاوَنُوا عَلَى الْإِثْمِ وَالْعُدْوَانِ ۚ وَاتَّقُوا اللَّهَ ۖ إِنَّ اللَّهَ شَدِيدُ الْعِقَابِ [٥:٢

সৎকর্ম ও খোদাভীতিতে একে অন্যের সাহায্য কর। পাপ ও সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের সহায়তা করো না। আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা কঠোর শাস্তিদাতা। [সূরা মায়েদা-২]

عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ، قَالَ لَعَنَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم فِي الْخَمْرِ عَشَرَةً عَاصِرَهَا وَمُعْتَصِرَهَا وَشَارِبَهَا وَحَامِلَهَا وَالْمَحْمُولَةَ إِلَيْهِ وَسَاقِيَهَا وَبَائِعَهَا وَآكِلَ ثَمَنِهَا وَالْمُشْتَرِيَ لَهَا وَالْمُشْتَرَاةَ لَهُ

আনাস ইবনু মালিক (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, শারাবের সাথে সম্পৃক্ত দশ শ্রেণীর লোককে রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম অভিসম্পাত করেছেন। এরা হলঃ মদ তৈরিকারী, মদের ফরমায়েশকারী, মদ পানকারী, মদ বহনকারী, যার জন্য মদ বহন করা হয়, মদ পরিবেশনকারী, মদ বিক্রয়কারী, এর মূল্য ভোগকারী, মদ ক্রেতা এবং যার জন্য মদ ক্রয় করা হয়। [সুনানে তিরমিজী,  হাদীস নং-১২৯৫]

ولا تصح الإجارة لعسب التيس ولا لأجل المعاصى مثل الغناء، والنوح والملاهى (رد المحتار-9\75)

وقال أبو حنيفة رحمه الله لا تجوز على شيء من اللهو، والمزامير، والطبل وغيره، لأنها معصية، والإجارة على المعصية باطلة (تاتارخانية-15\132، رقم-22439)

عَنْ ‌عَبْدِ الرَّحْمَنِ بْنِ وَعْلَةَ السَّبَئِيِّ (مِنْ أَهْلِ مِصْرَ) « أَنَّهُ سَأَلَ ‌عَبْدَ اللهِ بْنَ عَبَّاسٍ عَمَّا يُعْصَرُ مِنَ الْعِنَبِ، فَقَالَ ابْنُ عَبَّاسٍ: إِنَّ رَجُلًا أَهْدَى لِرَسُولِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَاوِيَةَ خَمْرٍ، فَقَالَ لَهُ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: هَلْ عَلِمْتَ أَنَّ اللهَ قَدْ حَرَّمَهَا؟ قَالَ: لَا. فَسَارَّ إِنْسَانًا، فَقَالَ لَهُ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: بِمَ سَارَرْتَهُ؟ فَقَالَ: أَمَرْتُهُ بِبَيْعِهَا، فَقَالَ: إِنَّ الَّذِي ‌حَرَّمَ ‌شُرْبَهَا ‌حَرَّمَ ‌بَيْعَهَا. قَالَ: فَفَتَحَ الْمَزَادَةَ حَتَّى ذَهَبَ مَا فِيهَا (صحيح مسلم، رقم-1579)

ولا يجوز بيعها لحديث مسلم “الذى حرم شربها حرم بيعها” (رد المحتار، زكريا-10/29، كرتاشى-6/449)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

গাইরুল্লাহকে সেজদা করা ও ফাতিমা রাঃ এর মূর্তি বানিয়ে সেজদা দেয়ার হুকুম কী?

প্রশ্ন আস্সালামুআলাইকুম হযরত। কেমন আছেন? দ্বীনের বিভিন্ন সমস্যায় সর্বদাই আপনার পরিচালিত ওয়েবসাইট হতে সাহায্য নেই। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস