প্রচ্ছদ / প্রশ্নোত্তর / হজ্জ কখন ফরজ হয়? হজ্জের মাসে নাকি হজ্জ নিবন্ধনের সময়?

হজ্জ কখন ফরজ হয়? হজ্জের মাসে নাকি হজ্জ নিবন্ধনের সময়?

প্রশ্ন

االسابع الوقت اي وجود القدرة فيه وهي اشهر الحج او هو وقت خروج اهل بلده ان كانوا يخرجون قبلها غنية الناسك 22

আসসালামু আলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহ।

আশা করি আল্লাহ পাকের অশেষ মেহেরবানীতে ভালো আছেন ।

হুজুরের কাছে আমার জিজ্ঞাসা:

হজের মাসসমূহে অথবা যে দেশ থেকে হাজিরা যখন হজের উদ্দেশ্যে রওয়ানা করে সে সময় যদি কারো কাছে হজ করার মত টাকা থাকে তাহলে তার ওপর হজ ফরজ হবে। উপরোল্লেখিত ইবারত থেকে তাই প্রমাণিত হয়।এখন আমার জানার বিষয় হল, পূর্ববর্তী যুগে হজ নিবন্ধন এর বিষয়টি ছিল না। এখন আমাদের বাংলাদেশে নিবন্ধন ছাড়া হজ করা সম্ভব নয়, তাই আমরা কি বলতে পারি নিবন্ধনের সময় কারো কাছে হজ করার মত সামর্থ্য থাকলে তার ওপর হজ ফরজ হয়ে যাবে? নাকি বলব যখন হজের মাস আসবে অথবা হজের উদ্দেশ্যে হাজীরা রওয়ানা করবে তখনই হজ ফরজ হবে? বিষয়টি বিস্তারিত জানালে উপকৃত হব। বারাকাল্লাহ। 

নাজমুল হাসান সাকিব

বাজিতপুর, কিশোরগঞ্জ। 

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

হজ্জের মাস হওয়া হজ্জ ফরজের জন্য জরুরী নয়। বরং ব্যক্তি যেখানে বসবাস করে, সেখান থেকে হজ্জে রওনা হয়ে হজ্জ করতে পারবে বলে সামর্থ হওয়া।

যেমন বাংলাদেশে নির্দিষ্ট তারিখ পর্যন্ত হজ্জের নিবন্ধন না করলে হজ্জ করতে সক্ষম নয়। তাই সেই নিবন্ধনের সময় যাদের হজ্জের পরিমাণ অর্থ সম্পদ থাকে, তার উপর হজ্জ ফরজ হবে এবং আদায় করাও ফরজ হবে।

আর যাদের কাছে পরবর্তী সময়ে হজ্জ পরিমাণ অর্থ সম্পদ আসে, তাদের উপরও হজ্জ ফরজ হবে। কিন্তু যাওয়ার উপর বাধ্যবাধকতা থাকার কারণে তার উপর আদায় করাটা ফরজ নয়। তাকে মা’জুর ধরা হবে। তার উচিত আগামী বছরের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করা।

এর মানে হলো, হজ্জের পরিমাণ অর্থ সম্পদ ব্যক্তির কাছে থাকলেই হজ্জ ফরজ হয়ে যায়, কিন্তু আদায় ফরজ হয় হজ্জের মাসে।

الوقت أى وجود القدرة فيه وهى أشهر ا لحج أو هو وقت خروج أهل بلده إن كانوا يخرجون قبلها (غنية الناسك-22، الفتاوى الهندية-1\217، البحر الرائق-2\539)

فالمحبوس والخائف من السلطان كالمريض لا يجب عليهما أداء الحج بأنفسهما ولكن يجب عليهما الاحجاج أو الايصاء به عند الموت عنهدها (غنية الناسك-24، فتح القدير، زكريا-2\417-418، هندية-1\218، اعلاء السنن-10\8، البحر الرائق-2\311)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী, নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

বিবাহের মাঝে প্রয়োজনের অতিরিক্ত ব্যয় করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: মোঃ আবুল কাশেম বিষয়ঃ বিয়ের মধ্যে লাইটিং,ডেকোরেটর,গেট,অনেক মানুষ খাওয়ানো এবং সাজ-সজ্জা প্রসেঙ্গ। প্রশ্নঃ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস