প্রচ্ছদ / কিতাব/বই ও লেখক পরিচিতি / আল্লামা শিবলী নুমানী মারহুমকে আশরাফ আলী থানবী রহঃ কাফের ফাতওয়া দিয়েছেন?

আল্লামা শিবলী নুমানী মারহুমকে আশরাফ আলী থানবী রহঃ কাফের ফাতওয়া দিয়েছেন?

প্রশ্ন

প্রশ্নকর্তা : Principal NurunNabi

মুহতারাম মুফতি সাহেব! আমাকে জনৈক বেরলভি আলেম আল্লামা থানবি রহঃ সম্পর্কে অভিযোগ তুলে বলেছেন, তিনি নাকি আল্লামা শিবলী নোমানী রহঃ কে তাকফির করেছেন। বিস্তারিত নিচের স্কিনশটে দেখুন। আমার নিকট তার এ অভিযোগ সত্য মনে হচ্ছেনা। তাই প্রকৃত সত্য জানতে চাই। ওয়াসসালাম।

সাইফুল ইসলাম রুবায়েত: আরেকটি ব্যাপার জানেন কি না? আশরাফ আলী থানবী শিবলী নুমানী ও হামিদুদ্দীন ফারাহীকে কাফের ফতোয়া দিয়েছিলেন। থানবীর ছাত্র ও খলীফা আব্দুল মজিদ দারিয়াবাদী তার “হাকীমুল উম্মত” কিতাবে একটি চিঠির কথা লিখেছেন। যা তিনি মৌং আমিন আহমেদ ইসলাহী হতে গ্রহণ করেন। মৌং ইসলাহী ছিলেন মৌং শিবলী নুমানী ও হামিদুদ্দীন ফারাহীর প্রবর্তিত আজমগড়ের মাদরাসাতুল ইসলাহ’র ইনচার্জ। ঐ চিঠিতে লেখা ছিল:

মাওলানা (আশরাফ আলী) থানবীর ফতোয়া দিয়েছেন যে, মাওলানা শিবলী নুমানী ও মাওলানা হামিদুদ্দীন ফারাহী কাফের। আর যেহেতু এ দু’জন মাদরাসাতুল ইসলাহ চালু করেছেন এবং এর ব্যবস্থাপনা করেছেন, সেহেতু মাদরাসাতুল ইসলাহ হচ্ছে, (আসলে) মাসরাতুল কুফর ও জিন্দিকা! যেসব আলেম এ মাদরাসা উন্নয়ন করছেন এবং যারা এতে অংশ নিচ্ছেন, তারা সবাই ধর্ম থেকে খারিজ (মুলহিদ ও বেদ্বীন)!”। (হাকীমুল উম্মত, পৃঃ ৪৭৫)

এ চিঠি পেয়ে মৌং দারিয়াবাদী থানবীকে লিখেন: ঐ দু’ হযরত কিকরে কাফের হতে পারেন, যেখানে তারা তাহাজ্জুদগুযার এবং তাদের যুহুদ ও তাকওয়া প্রসিদ্ধ?

জবাবে থানবী লিখেন: এসব তো আমল। আকীদা এসব থেকে আলাদা। বদ আমল  ভালো আকীদায় থাকতে পারে এবং নেক আমল খারাপ আকীদায় থাকতে পারে। (প্রাগুক্ত-৪৭৬)।

 

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

একথা ঠিক যে, হাকীমুল উম্মত আশরাফ আলী থানবী রহঃ এবং শিব্বীর আহমাদ উসমানী রহঃ সহ আকাবির অনেক উলামা মাওলানা শিবলী নুমানী রহঃ ও হামিদুদ্দীন ফারাহী মারহুমের বিষয়ে কুফরের ফাতওয়া দিয়েছেন।

তারপর তাদের পক্ষ থেকে তাদের পক্ষ থেকে বাতিল আকীদা থেকে বারাআত এবং হক আকীদার পক্ষে থাকার ইশতিহারও তারা প্রকাশ করেন।

এ ইশতিহার মাওলানা আশরাফ আলী থানবী রহঃ এর খলীফা মাওলানা সুলাইমান নদবী রহঃ প্রকাশ করেন।

তাছাড়া শাইখুল ইসলাম হুসাইন মাদানী রহঃ মাদরাসাতুল ইসলাহ সফর করে কুফর ফাতওয়া ইবারত দেখে। আগপর মিলিয়ে বলেন, এর দ্বারা কুফর হবে না। সুতরাং তাদের কাফের বলা মুনাসিব নয়।

হুসাইন আহমাদ মাদানী রহঃ এর উক্ত বক্তব্যের পর থানবী রহঃ ও অন্যান্যরা তাদের ফাতওয়া থেকে রুজু করেন।

বিস্তারিত দেখুন: মাকতুবাতে শাইখুল ইসলাম হুসাইন আহমাদ মাদানী-২/৩৮৮-৩৯২, হাশিয়ায়ে মাকতুব নং-১৩৭।

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

বিয়ের পর সহবাস না করে আলাদা থাকলে কি তালাক হয়ে যায়?

প্রশ্ন From: মাসুদ বিষয়ঃ বিবাহ প্রশ্নঃ আসসালামুয়ালিকুম আমি যাত্রাবাড়িতে থাকি। আমি একজন ছাত্র। টেক্সটাইল নিয়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস