প্রচ্ছদ / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / ট্রেন বা গাড়ী একসিডেন্টে নিহত পশু খাওয়া কি হালাল?

ট্রেন বা গাড়ী একসিডেন্টে নিহত পশু খাওয়া কি হালাল?

প্রশ্ন

From: মোঃনেছার উদ্দিন
বিষয়ঃ ট্রেন একসিডেন্ট কাটা যাওয়া পশু খাওয়া হালাল কিনা?

প্রশ্নঃ
আমাদের বাড়ির পাশে রেলপথ, প্রায় সময় গরু ছাগল ট্রেন একসিডেন্ট হয়, কখনো পশুর আংশিক কাটা যায় যেমন দুই পা বা মাথা আবার কখনো দেখা যায় আমরা যেভাবে জবাই করি ঔ রকম ই হয়।

এখন প্রশ্ন হলো  অনেকেই খাচ্ছে বিভিন্ন যুক্তি দিয়ে, প্রকৃত পক্ষে  এই প্রাণী খাওয়া কি বৈধ হচ্ছে? যদি হয় অথবা না হয় তবে এর দলিল কি?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

পশু খাওয়া হালাল হবার জন্য প্রধানতম শর্ত হল, আল্লাহর নামে তা জবাই করতে হবে। জবাইয়ের মাধ্যমে তার শরীর থেকে রক্ত প্রবাহিত করতে হবে।

সেই হিসেবে পশুর গলার পাশে যে চারটি রগ আছে, এর মাঝে কমপক্ষে তিনটি রগ কাটতে হবে।

এছাড়া পশু খাওয়া হালাল নয়।

সুতরাং যেসব পশু একসিডেন্ট হয়, একসিডেন্টের পরও যদি উক্ত পশু জীবিত থাকে, তাহলে দ্রুত তাকে আল্লাহর নামে জবাই করতে হবে। জবাই করলে রক্ত প্রবাহিত হতে হবে। যদি জবাই করার আগেই মারা যায়, তাহলে সেটি মৃত বলে সাব্যস্ত হবে। আর মৃত প্রাণী খাওয়া হালাল নয়।

حُرِّمَتْ عَلَيْكُمُ الْمَيْتَةُ وَالدَّمُ وَلَحْمُ الْخِنزِيرِ وَمَا أُهِلَّ لِغَيْرِ اللَّهِ بِهِ وَالْمُنْخَنِقَةُ وَالْمَوْقُوذَةُ وَالْمُتَرَدِّيَةُ وَالنَّطِيحَةُ وَمَا أَكَلَ السَّبُعُ إِلَّا مَا ذَكَّيْتُمْ [٥:٣]

তোমাদের প্রতি হারাম করা হয়েছে মৃত জন্তু, রক্ত, শূকরের গোশত, সেই পশু যাতে আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো নাম উচ্চারিত হয়েছে, শ্বাসরোধে মৃত জন্তু, প্রহারে মৃত জন্তু, উপর হতে পতনে মৃত জন্তু, অন্য কোন পশুর শিংয়েল আঘাতে মৃত জন্তু এবং হিংস্র পশুতে খেয়েছে এমন জন্তু, তবে (মরার আগে তোমরা) যা জবাহ করেছো তা ছাড়া। [সূরা মায়েদা-৩]

عَنْ مُعَاذِ بْنِ سَعْدٍ أَوْ سَعْدِ بْنِ مُعَاذٍ، أَخْبَرَهُ: أَنَّ جَارِيَةً لِكَعْبِ بْنِ مَالِكٍ كَانَتْ تَرْعَى غَنَمًا بِسَلْعٍ، فَأُصِيبَتْ شَاةٌ مِنْهَا، فَأَدْرَكَتْهَا فَذَبَحَتْهَا بِحَجَرٍ، فَسُئِلَ النَّبِيُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَقَالَ: «كُلُوهَا»

এক আনসারী থেকে তিনি মু‘আয ইবনু সা‘দ কিংবা সা‘দা ইবনু মু‘আয (রাঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, কা‘ব ইবনু মালিক (রাঃ)-এর একটি দাসী ‘সালা’ পর্বতে বকরী চরাত। বকরীগুলোর মধ্যে একটিকে মরার উপক্রম দেখে সে একটি পাথর দ্বারা সেটিকে যবহ্ করল। এ ব্যাপারে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে জিজ্ঞেস করা হল। তিনি বললেনঃ সেটি খাও। [সহীহ বুখারী, হাদীস নং-৫৫০৫]

عن أبى مرة، مولى عقيل أنه وجد شاة لهم تموت فذبحها فتحركت قال: فسألت زيد بن ثابت فقال: إ، الميتة للتحرك، قال: وسأل أبا هريرة فقال: كلها إذا طرفت عينها أو تحركت قائمة من قوائمها (مصنف عبد الرزاق-4/499، رقم-8636)

ذبح شاة مريضة فتحركت أو خرج الدم كما يخرج من الحيى حلت وإلا لا إن لم يدر حياته عند الذبح وإن علم حياته حلت مطلقا وفى شرح الطحاوى خروج الدم لا يدل على الحياة إلا إذا كن يخرج من الحي عند الإمام وهو ظاهر ا لرواية (رد المحتار-9/447، مجمع الأنهر-2/515، بيروت-4/164، تبيين الحقائق-6/471-472)

اذا قطع الحلقوم والمرئي والأكثر من كل ودجين يؤكل ومالا فلا (رد المحتار-9/426)

وعن محمد إذا قطع الحلقوم والمرئى والأكثر من كل ودجين يحل ومالا فلا، قال مشائخنا: وهو أصح الجوابات (الفتاوى الهندية-5/287، جديد-5/330)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক -তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

মুসলমানের জন্য কাফেরের সাথে বিবাহ করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: সারওয়ার বিষয়ঃ অমুসলিম বা কাফের এর সাথে সম্পর্ক করা যাবে কি না?? প্রশ্নঃ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস