প্রচ্ছদ / অজু/গোসল/পবিত্রতা/হায়েজ/নেফাস / পেশাবের পর ঢিলা নিয়ে চল্লিশ কদম হাটা সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত?

পেশাবের পর ঢিলা নিয়ে চল্লিশ কদম হাটা সহীহ হাদীস দ্বারা প্রমাণিত?

প্রশ্ন

From: মোঃ নিজাম উদ্দিন
বিষয়ঃ পেশাব করার পর ডিলা-কুলুখ নিয়ে 40 কদম হাটতে হয় এটা কি কোন সহীহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত ? এবং সুন্নাত তরিকা কোনটি বিস্তারিত দলিল সহকারে জানালে খুশি হবো.

প্রশ্নঃ
পেশাব করার পর ডিলা-কুলুখ নিয়ে 40 কদম হাটতে হয় এটা কি কোন সহীহ হাদিস দ্বারা প্রমাণিত ? এবং সুন্নাত তরিকা কোনটি বিস্তারিত দলিল সহকারে জানালে খুশি হবো,সূরা তওবা এর 108 নং আয়াতের ব্যাখ্যা কি?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

পেশাব করার পর চল্লিশ কদম হাটার বিষয়ে কোন হাদীস নেই। সহীহ হবেতো দূরে থাক।

সুতরাং এটিকে হাদীসের কথা বলা হাদীসের নামে মিথ্যাচার হবে।

তবে হাদীসে পেশাব থেকে অধিক পরিমাণ সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হয়েছে।

কবরে অধিকাংশ ব্যক্তির আযাবের কারণ এই পেশাবের ছিটা থেকে বেঁচে না থাকা।

এখন প্রত্যেক ব্যক্তি তার নিজের অবস্থা ও বয়স অনুপাতে কতক্ষণ পর্যন্ত পেশাব ঝরে সেই হিসেবে পেশাবের ফোটা থেকে বাঁচতে যা করণীয় তা করবে।

যদি ঢিলা বা টিস্যু নিয়ে হাটার মাধ্যমে পেশাবের ফোটা বন্ধ হয়, তাহলে তা করবে। আর যাদের টিস্যু নিয়ে হাটাচলা ছাড়াই পেশাবের ফোটা বন্ধ হয়ে যায়, তাদের জন্য এটার প্রয়োজন নেই।

আর সূরা তওবার ১০৮ নং আয়াতের ব্যাখ্যা হল, এ আয়াতে কুবাবাসীর প্রশংসায় নাজিল হয়েছে। যারা ঢিলার সাথে পানি ব্যবহার করতো। তাই যেহেতু এর মাধ্যমে অধিক পরিচ্ছন্নতা অর্জিত হয় এজন্য আল্লাহ তাআলা তাদের পবিত্রতার প্রশংসা করে উক্ত আয়াত নাজিল করেছেন।

عَنِ ابْنِ عَبَّاسٍ، قَالَ: مَرَّ النَّبِيُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ بِقَبْرَيْنِ، فَقَالَ: ” إِنَّهُمَا لَيُعَذَّبَانِ، وَمَا يُعَذَّبَانِ فِي كَبِيرٍ، أَمَّا أَحَدُهُمَا: فَكَانَ لَا يَسْتَنْزِهُ مِنَ البَوْلِ – قَالَ وَكِيعٌ: مِنْ بَوْلِهِ – وَأَمَّا الْآخَرُ: فَكَانَ يَمْشِي بِالنَّمِيمَةِ .

হযরত আব্দুল্লাহ বিন আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, একদা রাসূল সাঃ দু’টি কবরের পাশ দিয়ে অতিক্রম হচ্ছিলেন। বললেন, এ দু’টি কবরে আযাব হচ্ছে। কোন বড় কারণে আজাব হচ্ছে না। একজনের কবরে আজাব হচ্ছে সে পেশাব থেকে ভাল করে ইস্তিঞ্জা করতো না। আরেকজন চোগোলখুরী করতো। {মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-১৯৮০, বুখারী, হাদীস নং-১৩৬১}

عَنْ عِيسَى بْنِ يَزْدَادَ الْيَمَانِيِّ، عَنْ أَبِيهِ، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «إِذَا بَالَ أَحَدُكُمْ فَلْيَنْتُرْ ذَكَرَهُ ثَلَاثَ مَرَّاتٍ»

হযরত ঈসাব বিন ইয়াযদাদ আলইয়ামানী তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন, যখন তোমাদের কেউ পেশাব করে, তখন সে যেন তার লজ্জাস্থানকে তিনবার ঝেড়ে নেয় বা পবিত্র করে নেয়। {সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-৩২৬}

عَنِ ابْنِ عَبَّاسٍ، قَالَ: نَزَلَتْ هَذِهِ الآيَةُ فِي أَهْلِ قُبَاءَ: {فِيهِ رِجَالٌ يُحِبُّونَ أَنْ يَتَطَهَّرُوا وَاللَّهُ يُحِبُّ الْمُطَّهِّرِينَ} [التوبة: 108] ، فَسَأَلَهُمْ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ، فَقَالُوا: إِنَّا نُتْبِعُ الْحِجَارَةَ الْمَاءَ.

হযরত আব্দুল্লাহ বিন আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, কুবাবাসীর শানে এ আয়াতে কারীমা যখন নাজিল হল,সেখানে রয়েছে এমন লোক,যারা পবিত্রতাকে ভালবাসে। আর আল্লাহ পবিত্র লোকদের ভালবাসেন। [সূরা তাওবা-১০৮] তখন রাসূল সাঃ তাদের [এ মর্তবা পাবার কারণ] জিজ্ঞাসা করলেন, তখন তারা বললেন, আমরা ঢিলার সাথে সাথে পানি ব্যবহার করি। [মুসনাদুল বাজ্জার, হাদীস নং-২৪৭]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

ফজরের নামাযে কুনুতে নাজেলা কি হযরত উমর রাঃ সারা বছর পড়তেন?

প্রশ্ন From: মাহমুদ বিষয়ঃ কুনূতে নাযেলা প্রশ্নঃ উমার রাঃ এর আমল হিসেবে আমাদের মসজিদে ফজর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস