প্রচ্ছদ / আধুনিক মাসায়েল / এমাজন এফিলিয়ট মার্কেটিং কি শরীয়তসম্মত?

এমাজন এফিলিয়ট মার্কেটিং কি শরীয়তসম্মত?

প্রশ্ন

From: Khalid Farhan
বিষয়ঃ এমাজন এফিলিয়ট মার্কেটিং

প্রশ্নঃ
আসসালামুয়ালাইকুম,

নিম্নলিখিত প্রশ্নের উত্তর পেলে আমি কৃতজ্ঞ হতাম।

অনলাইনে অনেকেই উপার্যন করে থাকে। অনলাইন উপার্যনের অনেকগুলি মাধ্যমের একটি হচ্ছে এফিলিয়ট মার্কেটিং। এফিলিয়ট মার্কেটিং এর মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে “এমাজন এফিলিয়ট মার্কেটিং”।

এফিলিয়ট মার্কেটিং কি?

অনলাইনে ওয়েব সাইটের মাধ্যমে অনেক কিছু বেচাকেনা হয়। ঐ সব ওয়েব সাইটের মালিকরা তাদের বিক্রি বাড়ানোর জন্য লোকজনের (মার্কেটার) কাছে ঐ গুলি মার্কেটিং করার সুযোগ দেয়। মার্কেটাররা কেনাবেচা সাইটে একাউন্ট করে ট্রেকিং আইডি (Tracking ID) পায়। এই ক্ষেত্রে অনেক মার্কেটাররা নিজে ওয়েব সাইট খুলে এবং নিজের ওয়েব সাইটে ঐসব পন্য গুলোর বৈশিষ্ট, গুনাগুন এমন কি অনেক সময় তার খারাপ দিক ও তুলে ধরে। নিজের সাইটে মার্কেটাররা পন্য বেচার সাইটে লিংক দিয়ে দেয়। লিংকের সাথে ট্রেকিং আইডি থাকে। ঐ লিংকে কোন ভিজিটর যখন ক্লিক করে পন্য বিক্রির সাইটে যায় এবং ভিজিটর যদি কিছু কেনে তাহলে তখন ঐ মার্কেটার পন্য বিক্রি উপর একটি হারের কমিশন পায়। যা থেকে কেনা বেচার সাইট বুঝতে পারে এটা কোন ট্রেকিং আইডি।

কিছু সাইট এমন আছে তাদের পন্য সীমিত যেমনঃ Booking.com এরা প্লেনের টিকিট, হোটেল বুকিং ইত্যাদি পন্য বিক্রি করে।

আবার অন্যদিকে এমন কিছু সাইট আছে তারা প্রায় সব ধরনের (হালাল/হারাম) পন্য বিক্রি করে। যেমনঃ ebay.comalibaba.com এই গুলির মধ্যে বর্তমানে amazon.com সাইটা সবচেয়ে বিখ্যাত। এবং বেশি ভাগ মার্কেটারদের প্রথম পছন্দ।

ব্রউজার কুকি (cookie) কি?

আমরা ব্রউজার যে সাইটে ভিজিট করি ঐ সাইট চাইলে ব্রউজারের কিছু তথ্য সংরক্ষন করে রাখতে পারে। যেমনঃ আমার ইউজার নাম,পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার সময় Remember me করি। প্রবর্তিতে আবার যখন ঐ সাইটে আসি তখন ব্রউজারে ইউজার নাম দেওয়ার প্রয়জন হয়না।

এমাজন এফিলিয়ট কমিশন পদ্ধতিঃ

যখন কোন ভিজিটর মার্কেটারের ওয়েব সাইট থেকে amazon.com site-এ যায়, সাথে এমাজনের ট্রাকিং আইডি নিয়ে যায়। এমাজন এই আইডি ব্রউজার কুকি মধ্যে ২৪ ঘন্টার জন্য সংরক্ষন করে রাখে।
যদি এই ২৪ ঘন্টার মধ্যে ঐ ভিজিটর অন্য কোন মারকেটারের সাইট থেকে অন্য ট্রাকিং আইডি নিয়ে এমাজনে যায় তাহলে এমাজন আগের আইডি মুছে এই নতুন ট্রাকিং আইডি ঐ ব্রউজার কুকি তে সংরক্ষন করে। যখন সংরক্ষন করে তখন থেকে ২৪ ঘন্টা ধরা হয়। ২৪ ঘন্টার মধ্যে ভিজিটর এমাজন থেকে যাই কিনবে ঐ ট্রেকিং আইডি ওয়ালা মার্কেটার সব গুলোই বিক্রির উপর কমিশন পাবে। আর ই কারনে মার্কেটারদের এটা পচ্ছন্দও বেশি।

এমাজনের হালাল/হারাম (গান, সিনেমা ইত্যাদি) উভয় রকমের পণ্য আছে।

মুসলমান হিসাবে মার্কেটার হালাল পণ্য নির্বচন করল। যেমনঃ সাইকেল। সে তার সাইটে বিভিন্ন রকম সাইকেলের বর্ণনা দিল যেখান থেকে ভিজিটর এমাজনে যায় এবং পণ্য কিনে।

এমাজনে সাইটে গিয়ে ভিজিটর ৪ রকমের কাজ করতে পারেঃ

(ক) ভিজিটর কিছুই কিনল না।
(খ) ভিজিটর শুধুই হালাল পণ্য কিনল।
(গ) ভিজিটর শুধু হারাম পণ্য কিনল।
(ঘ) ভিজিটর হালাল এবং হারাম উভয় পণ্য কিনল।

প্রশ্নঃ

মার্কেটারে উপার্জন হালাল হবে কিনা? ভিজিটারের পণ্য কেনা মার্কেটারের নিয়ন্ত্রনে নাই। মার্কেটার উর্পজিত সমস্ত কমিশনি কি হারাম হবে? যদি পুরাটাই হারাম না হয় তাহলে কতটুকু হালাল হবে? যতুটুকু হারাম কমিশন হল তত টুকু বিনা সওয়াবের গরিব কাউকে দিয়ে দিলে?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

যদি মার্কেটার তার সাইটে কেবল হালাল পণ্য এর বিজ্ঞাপন দেয়। তারপর সেখান থেকে ভিজিটর উক্ত সাইটে গিয়ে হালাল যা কিছু ক্রয় করবে এর কমিশন মার্কেটারের জন্য নেয়া জায়েজ আছে।

আর হারাম পণ্যের কমিশন নেয়া জায়েজ নয়।

তাই হালাল পণ্যের কমিশন ব্যবহার করতে পারবে। আর হারাম পণ্যের কমিশন সওয়াবের নিয়ত ছাড়া দান করে দিতে হবে।

وَلَمْ يَرَ ابْنُ سِيرِينَ، وَعَطَاءٌ، وَإِبْرَاهِيمُ، وَالحَسَنُ بِأَجْرِ السِّمْسَارِ بَأْسًا وَقَالَ ابْنُ عَبَّاسٍ: ” لاَ بَأْسَ أَنْ يَقُولَ: بِعْ هَذَا الثَّوْبَ، فَمَا زَادَ عَلَى كَذَا وَكَذَا، فَهُوَ لَكَ ” وَقَالَ ابْنُ سِيرِينَ: ” إِذَا قَالَ: بِعْهُ بِكَذَا، فَمَا كَانَ مِنْ رِبْحٍ فَهُوَ لَكَ، أَوْ بَيْنِي وَبَيْنَكَ، فَلاَ بَأْسَ بِهِ ” وَقَالَ النَّبِيُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «المُسْلِمُونَ عِنْدَ شُرُوطِهِمْ»

ইবনু সীরীন, আতা, ইবরাহীম ও হাসান (রহ.) দালালীর মজুরীতে কোন দোষ মনে করেননি। ইবনু ‘আববাস (রাঃ) বলেন, যদি কেউ বলে যে, তুমি এ কাপড়টি বিক্রি করে দাও। এতো এতো এর উপর যা বেশী হয় তা তোমার, এতে কোন দোষ নেই। ইবনু সীরীন (রহ.) বলেন, যদি কেউ বলে যে, এটা এত এত দামে বিক্রি করে দাও, লাভ যা হবে, তা তোমার, অথবা তা তোমার ও আমার মধ্যে সমান হারে ভাগ হবে, তবে এতে কোন দোষ নেই। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, মুসলিমগণ তাদের পরস্পরের শর্তানুযায়ী কাজ করবে। [সহীহ বুখারী-১/৩০৩]

سئل محمد بن مسلمة عن أجرة السمسار، فقال: أرجوا أنه لا بأس به،….. لكثرة التعامل (رد المحتار، كتاب الإجارة، مطلب فى اجرة الدلال-9/87، تاتارخانية-15/137، رقم-22462)

لو آجره دابته لينقل عليها الخمر، أو آجره نفسه ليرعى له الخنازير يطيب له الأجر عنده، وعندهما يكره (رد المحتار، كتاب الحظر والإباحة، باب الأستبراء وغيره-9\562، البحر الرائق-8\372)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

কবরবাসী জিয়ারতকারীর সালাম শুনতে পায় এবং পরিচিতজনকে চিনতে পারে?

প্রশ্ন প্রশ্নকারীর নাম: —————- ফয়সাল আহমাদ ঠিকানা: —————- গুনবতী,কুমিল্লা জেলা/শহর: —————- কুমিল্লা দেশ: —————- বাংলাদেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস