প্রচ্ছদ / নাম ও বংশ/নবজাতক / আছিয়া নাম রাখার হুকুম কী?

আছিয়া নাম রাখার হুকুম কী?

প্রশ্ন

আছিয়া নাম রাখার হুকুম কী?

কেউ কেউ বলেন যে, এ নাম রাখলে তার উপর হযরত আছিয়ার মত বিপদ আপদ নেমে আসে। কিছু কিছু আছিয়া নামের মহিলাকে দেখা গেছে যে, তারা বেশিরভাগ সময় অসুস্থ্য ও বিপদগ্রস্ত থাকে।

এখন প্রশ্ন হল, আসলেই এ নাম রাখলে এমন বিপদ আপদ আসে?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

আছিয়া দুনিয়ার নেক ও মকবুল একজন নারীর নাম। যার কোলে হযরত মুসা আলাইহিস সালাম লালিত পালিত হয়েছেন।

যদিও তিনি ফেরাউনের স্ত্রী ছিলেন। কিন্তু আল্লাহর কাছে তিনি অত্যান্ত প্রিয় এবং নেকবখত নারী ছিলেন।।

জান্নাতে হযরত আছিয়া রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের স্ত্রী হবেন।

তার নামে কন্যার নাম রাখা অবশ্যই জায়েজ।

নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পূর্ববর্তী নবীগণ এবং নেকলোকদের নামে নাম রাখাকে পছন্দ করতেন।

যারা মনে করে যে, আছিয়া নাম রাখলে রোগব্যাধী হয়, বিপদ আপদ আসে, এ ধারণা সম্পূর্ণরূপে অহেতুক ও বাতিল।

আছিয়া অর্থ হল, সান্ত্বনা লাভ করা, দৃঢ়তা।

সুতরাং আছিয়া নামের অর্থের মাঝেও কোন খারাবী নেই।

عن سعد بن جنادة، قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم: إن الله زوجنى فى الجنة مريم بنت عمران، وإمرأة فرعون، وأخت موسى عليه السلام (المعجم الكبير للطبرانى-6/52، رقم-5485)

عن عبد الرحمن بن أبى ليلى قال: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم : فاطمة سيدة نساء العالمين، بعد مريم ابنة عمران، وأسية امرأة فرعون، وخديجة ابنة خويلد (المصنف لابن أبى شيبة، كتاب الفضائل-17/214، رقم-32939)

عن عائشة قالت: دخل على رسول الله صلى الله عليه وسلم مسرورا، فقال: يا عائشة: إن الله عزوجل زوجنى مريم بنت عمران، وآسية بنت مزاحم فى الجنة (عمل اليوم والليلة لإبن السنى، باب الرخصة فى ذلك-1/556، رقم-603

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

স্বামী তালাক দিতে না চাইলে স্ত্রী নিজে নিজে খোলা তালাক করতে পারবে?

প্রশ্ন আমার জিজ্ঞাসা হল, এক স্বামী মারাত্মক পর্যায়ের জালেম। অত্যাচার করে। স্ত্রী স্বামী থেকে তালাক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *