হোম / অজু/গোসল/পবিত্রতা/হায়েজ/নেফাস / রঙ মিস্ত্রিদের হাত পায়ে রঙ লাগা অবস্থায় কিভাবে অযু করবে?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

রঙ মিস্ত্রিদের হাত পায়ে রঙ লাগা অবস্থায় কিভাবে অযু করবে?

প্রশ্ন

From: শামীম নাটোর
বিষয়ঃ রঙ মেস্ত্রীদের হাত পায়ে রঙ লাগা থাকলে অজু করবে কি করে?

প্রশ্নঃ
ﺍَﻟﺴَّﻼَﻡُ ﻋَﻠَﻴْﻜُﻢْ ﻭَﺭَﺣْﻤَﺔُﺍَﻟﻠﻪِ ﻭَﺑَﺮَﻛَﺎﺗُﻪُ

সম্মানিত মুফতি সাহেব আশা করি আল্লাহুর রহমতে ভালো আছেন আমার একটি বিষয় মনে সন্দেহ বিরাজ করছে। আমরা জানি নামাজে অজু করা ফরজ কিন্তু কর্মক্ষেত্রে কাজ করতে হয়। সেক্ষেত্রে একজন রঙ মেস্ত্রীর দিকে খেয়াল করে বিস্তারিত ভাবে জানাবেন। বিভিন্ন রঙ হাত পায়ে লেগে থাকলে অজুর সময় কি করবে? আপনি যদি বিষয় টা সরাসরি যাচাই করতেন ভালো হতো।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

অযু বিশুদ্ধ হবার জন্য কনুই পর্যন্ত হাত এবং টাখনু পর্যন্ত পা এবং পূর্ণ মূখমণ্ডলে পানি প্রবাহিত করা আবশ্যক। যদি এ অঙ্গসমূহের সামান্যতম স্থানেও পানি না পৌঁছে তাহলে অযু হবে না।

এক্ষেত্রে রঙ যদি এমন পুরু হয় যে, এর নিচে পানি পৌঁছে না, তাহলে উক্ত রঙ যে স্থানে লাগবে তা দূরিভূত করা ছাড়া অজু সম্পন্ন হবে না।

আর আমাদের তাহকীক মতে রঙ মিস্ত্রিরা যে রঙ ব্যবহার করে তা গাঢ় রঙ। যার নিচে পানি  পৌছে না। তাই অযুর সময় রঙ ভালো করে উঠিয়ে তারপর অযু করতে হবে। নতুবা অযু হবে না।

او لزق بأصل ظفره طين يابس او رطب لم يجز (الفتاوى الهندية-1\2

الْعَلَاءُ بْنُ زِيَادٍ، قَالَ: «اغْتَسَلَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مِنْ جَنَابَةٍ فَخَرَجَ، فَأَبْصَرَ لُمْعَةً بِمَنْكِبِهِ لَمْ يُصِبْهَا الْمَاءُ، فَأَخَذَ بِجُمَّتِهِ فَبَلَّهَا بِهِ» (المصنف لابن ابى شيبة-1/375، رقم-447)

عَنِ الْحَسَنِ، أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ رَأَى رَجُلًا تَرَكَ مِنْ قَدَمِهِ مَوْضِعَ ظُفْرٍ، فَقَالَ لَهُ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «أَحْسِنْ وَضُوءَكَ». قَالَ يُونُسُ: «فَكَانَ الْحَسَنُ يَغْسِلُ ذَلِكَ الْمَكَانَ» » (المصنف لابن ابى شيبة-1/375، رقم-448)

أَنَّ عُمَرَ بْنَ الْخَطَّابِ رَأَى رَجُلًا فِي رِجْلِهِ لُمْعَةً لَمْ يُصِبْهَا الْمَاءُ حِينَ يَطَّهَّرُ، فَقَالَ لَهُ عُمَرُ: «بِهَذَا الْوُضُوءِ تَحْضُرُ الصَّلَاةَ؟» وَأَمَرَهُ أَنْ يَغْسِلَ اللُّمْعَةَ وَيُعِيدَ الصَّلَاةَ (المصنف لابن ابى شيبة-1/376، رقم-449)

عَنْ أَبِي قِلَابَةَ، «إِنَّ عُمَرَ رَأَى رَجُلًا يُصَلِّي قَدْ تَرَكَ عَلَى ظَهْرِ قَدَمِهِ مِثْلَ الظُّفْرِ، فَأَمَرَهُ أَنْ يُعِيدَ وَضُوءَهُ وَصَلَاتَهُ» (المصنف لابن ابى شيبة-1/376، رقم-450)

نْ إِبْرَاهِيمَ النَّخَعِيِّ، قَالَ: «مَا أَصَابَهُ الْمَاءُ مِنْ مَوَاضِعِ الطُّهُورِ فَقَدْ طَهُرَ» (المصنف لابن ابى شيبة-1/376، رقم-451

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামী ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

দীর্ঘ সময় শারিরীক সম্পর্ক না থাকলে তালাকের পর ইদ্দত পালন করতে হয় না?

প্রশ্ন মুফতী সাহেবের কাছে আমার প্রশ্ন হল, আমার স্বামী কয়েক বছর ধরে বিদেশ থাকেন। তার …