হোম / ওয়াকফ/মসজিদ/ঈদগাহ / প্রতিষ্ঠানে অগ্রিম বেতন ও খানার টাকা প্রদান করে যদি বছরের মাঝখানে ছাত্রটি চলে যায় তাহলে জমাকৃত টাকার হুকুম কী?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

প্রতিষ্ঠানে অগ্রিম বেতন ও খানার টাকা প্রদান করে যদি বছরের মাঝখানে ছাত্রটি চলে যায় তাহলে জমাকৃত টাকার হুকুম কী?

প্রশ্ন

From: হাফেজ মিনহাজ, শেরপুর।
বিষয়ঃ অগ্রীম বেতন নেওয়া, খানার টাকা অগ্রীম নেওয়া

প্রশ্নঃ
মোহতারাম! আস্সালামু আলাইকুম। আমাকে একটি বিষয় সম্পর্কে জানালে উপকৃত হব। সেটা হলো- বর্তমানে সমাজে ক্লাসে বেতন অগ্রীম নেওয়া হয়। বিভিন্ন মাদ্রাসা/স্কুলে মাসিক বেতন ও খানার টাকা অগ্রীম নেয়া হয়। কেউ অগ্রীম বেতন/ খানার টাকা প্রদান করলে কোন কারণবশত মাদ্রাসা থেকে চলে গেলে উক্ত টাকা ফেরৎ দেওয়া হয় না। প্রশ্ন হলো উক্ত টাকা প্রতিষ্ঠানের জন্য কতটুকু শরীয়ত সম্মত?
এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবেন।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

প্রতিষ্ঠানের নিয়ম করে থাকলে অগ্রীম বেতন বা খানার টাকা নিতে পারবে। তবে যদি মাস শেষ না করে  ছাত্রটি চলে যায়, তাহলে উক্ত অগ্রীম প্রদানকৃত খানার টাকা ছাত্রকে ফেরত দিতে হবে।

যে মাস থেকে ছাত্রটি ক্লাস করা বন্ধ করে দিয়েছে উক্ত মাস থেকে বেতনের টাকা ফেরত দিয়ে দিতে হবে। তবে যদি ভর্তির সময় শর্ত করা থাকে যে, আমি উক্ত প্রতিষ্ঠানে এক বছরের অগ্রিম বেতন প্রদান করে ভর্তি হলাম। যদি বছরের মাঝখানে চলে যাই, তাহলে উক্ত টাকা প্রতিষ্ঠানের নামে অনুদান হিসেবে সাব্যস্ত হবে। এমন চুক্তিপত্রে ওয়াদা করে যদি কেউ ভর্তি হয়, তাহলে বছরের মাঝখান থেকে উক্ত ছাত্র চলে গেলে উক্ত বেতনের টাকা প্রতিষ্ঠানে অনুদান হিসেবে রেখে দিতে পারবে।

لا يستوجب  الأجر قبل الفراغ إلا أن يشترط التعجيل، لما مر أن الشرط فيه لازم (الهداية، باب الاجر متى يستحق-3/295)

وأما النوع الثاني من الاستجرار، فهو أن المشتري يدفع إلى البائع مبلغاً مقدّما، ثم يستجرّ منه الأشياء، وتقع المحاسبة بعد أخذ مجموعة من الأشياء في نهاية الشهر أو في نهاية السنة مثلاً…….

وقد أسلفنا قول الإمام مالك رحمه الله في الموطأ:

(ولا بأس بأن يضع الرجل عند الرجل درههماً، ثم يأخذ منه بثلث أو بربع أو بكسر منه معلوم سلعة معلومة)

وتبين بهذا أن الاستجرار بمبلغ مقدم جائز مثل الاستجرار بثمن مؤخر، ويكون المبلغ قرضاً عند البائع إلى أن يقع البيع عند الأخذ، فتجري مقاصّة القرض بثمن المبيع. والمبلغ مضمون على البائع، إن هلك, هلك من ماله، إلا إذا وضع المبلغ عنده كما هو كأمانة، ولم يتصرف فيه بشيء، فحينئذ يكون قبضه أمانة، فلا يضمنه عند الهلاك. ويخرّج على هذا اشتراك المجلات الدوريّة. ………… فلو انقطعت المجلّة في أثناء السنة لزم على أصحابها ردّ ما بقي من بدل الاشتراك (بحوث فى قضايا فقهية معاصرة-1/68، 71

قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «الْمُسْلِمُونَ عَلَى شُرُوطِهِمْ»

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ মুসলমানদের উচিত কৃত সন্ধির শর্তের উপর স্থির থাকা। [সুনানে আবু দাউদ, হাদীস নং-৩৫৯৪]

فى مجلة مجمع الفقه الإسلاميوأما إذا التزم أنه إن لم يوفه حقه في وقت كذا، فعليه كذا وكذا لفلان، أو صدقة للمساكين، فهذا هو محل الخلاف المعقود له هذا الباب، فالمشهور أنه لا يقضي به كما تقدم، وقال ابن دينار: يقضي به) ، (مجلة مجمع الفقه الإسلامي، العدد السابع، موضوعالبيع بالتقسيط،أحكام البيع بالتقسيط-7/620

وفيه ايضا–  الوعد يكون ملزماً للواعد ديانة إلا لعذر. وهو ملزم قضاء إذا كان معلقاً على سبب ، ودخل الموعود في كلفة نتيجة الوعد ويتحدد أثر الإلزام فى هذه الحالة إما يتنفيذ الوعد وإما بالتعويض عن الضرر الواقع فعلا بسبب عدم الوفاء بالوعد بلا عذر (مجلة مجمع الفقه الإسلامى العدد الخامس-2/1599

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামী ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

বুখারী শরীফে নবীজী নূরের তৈরী হওয়া বিষয়ক হাদীস আছে?

প্রশ্ন From: আবদুল্লাহ আল মামুন বিষয়ঃ গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন নবীজি (সাঃ) নুরের তৈরি কিনা? প্রশ্নঃ হযরত, …