হোম / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / শরীকানা কুরবানীতে কারো ভাগ এক সপ্তমাংশের কম হলে কুরবানী হবে না?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

শরীকানা কুরবানীতে কারো ভাগ এক সপ্তমাংশের কম হলে কুরবানী হবে না?

প্রশ্ন

মুহাম্মাদ জাহিদ,সাভার,ঢাকা।

আসসালামু আলাইকুম হুযুর,

আমি সম্প্রতি মাসিক আদর্শ নারী পত্রিকায় নিম্মের একটি মাস-আলা জানতে পেরেছি। এটা কী সঠিক?

“সাতজনে মিলে কুরবানী করলে সবার অংশ সমান হতে হবে। কারো অংশ এক সপ্তমাংশের কম হতে পারবে না। যেমন কারো আধা ভাগ, কারো দেড় ভাগ। এমন হলে কোনো শরীকের কুরবানীই সহীহ হবে না। -বাদায়েউস সানায়ে ৪/২০৭”

এখানে প্রশ্ন হলো যে এখানে সহীহ হবে না বলতে কী বোঝানো হচ্ছে? কুরবানী কী তাহলে বাতিল হবে?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

সহীহ হবে না, বলতে উদ্দেশ্য হল, কুরবানীই হবে না। কুরবানীটি বাতিল হয়ে যাবে।

মাসআলাটি বুঝে নিন- একটি গরু বা মহিষে সাত জন ভাগে কুরবানী দিতে পারে। অর্থাৎ প্রতি একজনের ভাগে সাত ভাগের একটি পূর্ণাঙ্গ ভাগ থাকতে হবে।

যদি কারো ভাগে পূর্ণ এক ভাগ না হয়ে এক ভাগের অর্ধেক হয় বা কম হয়, তাহলে কুরবানীটি শুদ্ধ হবে না।

যেমন আটজন মিলে কুরবানী দিল। তাহলে কারো ভাগেই এক সপ্তাংশ পূর্ণ নয়।

তাই কুরবানীটি বাতিল হয়ে যাবে। কুরবানী শুদ্ধ হতে হলে গরু মহিষে সবার ভাগেই একটি ভাগ তথা এক সপ্তমাংশ পূর্ণ থাকতে হবে।

عَنْ جَابِرٍ، قَالَ: خَرَجْنَا مَعَ رَسُولِ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ مُهِلِّينَ بِالْحَجِّ: «فَأَمَرَنَا رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنْ نَشْتَرِكَ فِي الْإِبِلِ وَالْبَقَرِ، كُلُّ سَبْعَةٍ مِنَّا فِي بَدَنَةٍ

জাবির রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনম, আমরা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সাথে হজ্জের ইহরাম বেঁধে রওনা হলাম। অতঃপর তিনি উট ও গরুতে আমাদের মধ্যে সাতজন করে শরীক হবার (ও কুরবানী করার) নির্দেশ দিলেন। [সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-১৩১৮, ৩০৪৯]

ولو لأحدهم أقل من سبع لا يجز عن أحد (الدر المختار مع رد المحتار-9/457)

واذا كان الشركاء فى البدنة أو البقرة ثمانية لا يجزئهم، لأن نصيب أحدهم أقل من السبع (الفتاوى التاتارخانية، كتاب الأضحية، الفصل الثامن فيما يتعلق بالشركة فى الضحايحا-17/453، رقم-2780

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

অমুসলিমের দেয়া হাদিয়া-গিফট গ্রহণের হুকুম কী?

প্রশ্ন From: মোঃ মনিরুল ইসলাম বিষয়ঃ অমুসলিমদের হাদিয়া জায়েয কি না। প্রশ্নঃ কোন অমুসলিম এর …