প্রচ্ছদ / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / মুসা আলাইহিস সালাম মালাকুল মওত ফিরিশতাকে ঘুষি দিয়ে অন্ধ করে দেবার ঘটনার সত্যতা কতটুকু?

মুসা আলাইহিস সালাম মালাকুল মওত ফিরিশতাকে ঘুষি দিয়ে অন্ধ করে দেবার ঘটনার সত্যতা কতটুকু?

প্রশ্ন

অনেক উলামায়ে কেরামের মুখে শুনেছি যে, হযরত মুসা আলাইহিস সালামে রূহ কবজ করতে যখন আজরাইল ফিরিস্তা আসল, তখন, মুসা আলাহিস সালাম তাকে ঘুষি দিয়ে চোখ অন্ধ করে দিয়েছিলেন।

আমার প্রশ্ন হল, এ ঘটনাটি কি সত্য ঘটনা নাকি বানোয়াট?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

এটি বিশুদ্ধ হাদীসে বর্ণিত সত্য ঘটনা। সন্দেহ করার কোন সুযোগ নেই।

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ، قَالَ: ” أُرْسِلَ مَلَكُ المَوْتِ إِلَى مُوسَى عَلَيْهِمَا السَّلاَمُ، فَلَمَّا جَاءَهُ صَكَّهُ، فَرَجَعَ إِلَى رَبِّهِ، فَقَالَ: أَرْسَلْتَنِي إِلَى عَبْدٍ لاَ يُرِيدُ المَوْتَ، فَرَدَّ اللَّهُ عَلَيْهِ عَيْنَهُ وَقَالَ: ارْجِعْ، فَقُلْ لَهُ: يَضَعُ يَدَهُ عَلَى مَتْنِ ثَوْرٍ فَلَهُ بِكُلِّ مَا غَطَّتْ بِهِ يَدُهُ بِكُلِّ شَعْرَةٍ سَنَةٌ، قَالَ: أَيْ رَبِّ، ثُمَّ مَاذَا؟ قَالَ: ثُمَّ المَوْتُ، قَالَ: فَالْآنَ، فَسَأَلَ اللَّهَ أَنْ يُدْنِيَهُ مِنَ الأَرْضِ المُقَدَّسَةِ رَمْيَةً بِحَجَرٍ “، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «فَلَوْ كُنْتُ ثَمَّ لَأَرَيْتُكُمْ قَبْرَهُ، إِلَى جَانِبِ الطَّرِيقِ، عِنْدَ الكَثِيبِ الأَحْمَرِ»

আবূ হুরাইরাহ্ (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, মালাকুল মাওতকে মূসা (আঃ)-এর নিকট পাঠানো হল। তিনি তাঁর নিকট আসলে, মূসা (আঃ) তাঁকে চপেটাঘাত করলেন। (যার ফলে তাঁর চোখ বেরিয়ে গেল।) তখন মালাকুল মাওত তাঁর প্রতিপালকের নিকট ফিরে গিয়ে বললেন, আমাকে এমন এক বান্দার কাছে পাঠিয়েছেন যে মরতে চায় না। তখন আল্লাহ্ তাঁর চোখ ফিরিয়ে দিয়ে হুকুম করলেন, আবার গিয়ে তাঁকে বল, তিনি একটি ষাঁড়ের পিঠে তাঁর হাত রাখবেন, তখন তাঁর হাত যতটুকু আবৃত করবে, তার সম্পূর্ণ অংশের প্রতিটি পশমের বিনিময়ে তাঁকে এক বছর করে আয়ু দান করা হবে। মূসা (আঃ) এ শুনে বললেন, হে আমার রব! অতঃপর কী হবে? আল্লাহ্ বললেনঃ অতঃপর মৃত্যু। মূসা (আঃ) বললেন, তা হলে এখনই হোক। তখন তিনি একটি পাথর নিক্ষেপ করলে যতদূর যায় বাইতুল মাক্বদিসের ততটুকু নিকটবর্তী স্থানে তাঁকে পৌঁছিয়ে দেয়ার জন্য আল্লাহ্ তা‘আলার কাছে নিবেদন করলেন। আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ আমি সেখানে থাকলে অবশ্যই পথের পাশে লাল বালুর টিলার নিকটে তাঁর ক্ববর তোমাদের দেখিয়ে দিতাম। [সহীহ বুখারী, হাদীস নং-১৩৩৯, সহীহ মুসলিম-২/২৬৭, হাদীস নং-২৩৭২, মুসনাদুল বাজ্জার-১৭/৬৮, হাদীস নং-৯৫৯২, মুস্তাদরাকে হাকেম-৪/১৫৩৯, হাদীস নং-৪১০৭, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-৭৬৪৬]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

করোনা পরিস্থিতির কারণে এক মসজিদে একাধিক ঈদের জামাত করার হুকুম কী?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম হুযুর, আল্লাহ আপনাদের দ্বীনি খেদমতকে কবুল করুক। আমিন। বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার মসজিদে একাধিক জামাতে ঈদের নামাজ পড়ার জন্য আদেশ …