প্রচ্ছদ / ইতিহাস ও ঐতিহ্য / আইয়্যূব আলাইহিস সালামের শরীর পচন ধরা সম্পর্কিত ঘটনা কি সত্য?

আইয়্যূব আলাইহিস সালামের শরীর পচন ধরা সম্পর্কিত ঘটনা কি সত্য?

প্রশ্ন

হযরত আইয়ুব আলাইহিস সালামের বিষয়ে একটি প্রশ্ন করতে চাই। সময় সুযোগ করে উক্ত প্রশ্নের জবাবটি জানাতে সম্মানিত মুফতী সাহেবের কাছে আবেদন থাকবে। প্রশ্নটি হল,

আমরা ছোটকাল থেকেই বিভিন্ন বক্তা ওয়াজের মুখে একটি কথা শুনি। সেটি হল, হযরত আইয়ুব আলাইহিস সালাম এর সারা শরীরে পচন ধরেছিল। পোকায় তার শরীরের গোস্তগুলো একে একে খেয়ে ফেলে। কিন্তু কিন্তু সর্বদা জিকির করতেন বলে তার জিহ্বা পোকা খায়নি।

এ ঘটনাটির সত্যতা কতটুকু? দয়া করে জানালে কৃতার্থ হবো।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

কুরআন ও হাদীসে হযরত আইয়্যুব আলাইহিস সালামের বিপদ আপদে আপতিত হবার সংক্ষিপ্ত বিবরণ এসেছে। তিনি অনেক কষ্ট করেছেন।

প্রধান্য পাওয়া বক্তব্য অনুপাতে তিনি তের বছর পর্যন্ত পরীক্ষা ও মুসিবতে ছিলেন। এরপর তাকে আল্লাহ মুসিবত থেকে উদ্ধার করেন।

কিন্তু তার শরীরে পোকায় ধরা সংক্রান্ত কোন বিশুদ্ধ হাদীস নেই। বরং কিছু বর্ণনা দ্বারা এটাকে অস্বিকার করা হয়েছে।

তবে কিছু দুর্বল এবং ইজরাঈলী বর্ণনায় পোকায় ধরার বিষয়টি এসেছে।

যেহেতু বর্ণনাগুলো দুর্বল এবং ইজরাঈলী বর্ণনা। তাছাড়া সহীহ বর্ণনা এসবকে সমর্থন করে না। তাই আইয়্যুব আলাইহিস সালামের ব্যাপারে এসব কথা বলা থেকে বিরত থাকা জরুরী।

وإذ لم يصح عنه فيه قرآن ولا سنة إلا ما ذكرناه (تفسير قرطبى، سورة ص-41، بيروت-15/137، صحيح البخارى-2/1116، رقم-7193، 7493)

وأصح ما ورد فى قصته ما أخرجه ابن أبى حاتم وان جريج، وصححه ابن حبان والحاكم من طريق نافع بن يزيد عن عقيل عن الزهرى عن أنس “إن أيوب عليه السلام ابتلى، فلبث فى بلائه ثلاث عشرة سنة (فتح البار، كتاب الأنبياء، باب قول الله “وأيوب إذ نادى ربه أنى مسنى الضر”-6/474، دار الفكر-6/421، اشرفية-6/520، رقم-3391

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

করোনা পরিস্থিতির কারণে এক মসজিদে একাধিক ঈদের জামাত করার হুকুম কী?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম হুযুর, আল্লাহ আপনাদের দ্বীনি খেদমতকে কবুল করুক। আমিন। বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার মসজিদে একাধিক জামাতে ঈদের নামাজ পড়ার জন্য আদেশ …