হোম / আহলে হাদীস / তারাবীহ শব্দ কি হাদীস দ্বারা প্রমাণিত নয়?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

তারাবীহ শব্দ কি হাদীস দ্বারা প্রমাণিত নয়?

প্রশ্ন

তারাবীহ শব্দটি কোন হাদিস দ্বারা প্রমাণিত কি?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

তারাবীহ শব্দটি সাহাবায়ে কেরাম এবং তাবেয়ীগণের বক্তব্যের আলোকে প্রমাণিত।

তারাবীহ শব্দটি বহুবচন। যার এক বচন হল, ‘তারবীহাতুন’। যার অর্থ হল, চার রাকাআত পর একবার বিশ্রাম নেয়া।

তিনের অধিক পরিমাণ চার রাকাআত পরপর বিশ্রাম নেবার নাম হল, ‘তারাবীহ’।

عَنْ أَبِي الْحَسْنَاءِ أَنَّ عَلِيَّ بْنَ أَبِي طَالِبٍ ” أَمَرَ رَجُلًا أَنْ يُصَلِّيَ، بِالنَّاسِ خَمْسَ تَرْوِيحَاتٍ عِشْرِينَ رَكْعَةً “

হযরত আবুল হাসনা বলেনঃ হযরত আলী রাঃ এক ব্যক্তিকে পাঁচ তারবীহা এর সাথে বিশ রাকাত পড়াতে হুকুম দিয়েছেন। {সুনানে কুবরা লিলবায়হাকী, হাদীস নং-৪২৯২, ৪৩৯৭, কানযুল উম্মাল, হাদীস নং-২৩৪৭৪}

عَنْ إِبْرَاهِيمَ، «أَنَّ النَّاسَ كَانُوا يُصَلُّونَ خَمْسَ تَرْوِيحَاتٍ فِي رَمَضَانَ»

তাবেয়ী হযরত ইবরাহীম নাখয়ী রহঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নিশ্চয় লোকেরা রমজানে পাঁচ তারবীহায় (তারাবীর) নামায আদায় করতো। [কিতাবুল আছার লিআবী ইউসুফ, বর্ণনা নং-২১১]

عَنْ إِسْمَاعِيلَ بْنِ عَبْدِ الْمَلِكِ قَالَ: «كَانَ سَعِيدُ بْنُ جُبَيْرٍ يَؤُمُّنَا فِي شَهْرِ رَمَضَانَ، فَكَانَ يَقْرَأُ بِالْقَرَاءَتَيْنِ جَمِيعًا، يَقْرَأُ لَيْلَةً بِقِرَاءَةِ ابْنِ مَسْعُودٍ فَكَانَ يُصَلِّي خَمْسَ تَرْوِيحَاتٍ،

হযরত ইসমাইল বিন আব্দিল মালিক রহঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, হযরত সাঈদ বিন যুবায়ের রমজান মাসে আমাদের ইমামতি করতেন।তিনি দুই কিরাতেই তিলাওয়াত করতেন। এক রাতে পড়তেন ইবনে মাসঈদ রাঃ কিরাতে। তিনি পাঁচ তারবীহায় নামায পড়াতেন। [মুসান্নাফ আব্দুর রাজ্জাক, বর্ণনা নং-৭৭৪৯]

أَبُو الْخَصِيبِ قَالَ: ” كَانَ يَؤُمُّنَا سُوَيْدُ بْنُ غَفَلَةَ فِي رَمَضَانَ فَيُصَلِّي خَمْسَ تَرْوِيحَاتٍ عِشْرِينَ رَكْعَةً “

আবুল খাছীব রহঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমাদের সুয়াইদ বিন গাফালাহ রাঃ রমজান মাসে আমাদের ইমামতী করতেন। তিনি পাঁচ তারবীহায় বিশ রাকাআত পড়াতেন। [আসসুনানুল কুবরা লিলবায়হাকী, হাদীস নং-৪২৯০]

عَنْ أَبِي الْبَخْتَرِيِّ: «أَنَّهُ كَانَ يُصَلِّي خَمْسَ تَرْوِيحَاتٍ فِي رَمَضَانَ، وَيُوتِرُ بِثَلَاثٍ»

আবুল বাখতারী রহঃ (বুখারী মুসলিমের রাবী) থেকে বর্ণিত। তিনি রমজান মাসে পাঁচ তারবীহায় নামায পড়তেন এবং তিন রাকাআত বিতর পড়তেন। [মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-৭৬৮৬]

عَنْ سَعِيدِ بْنِ عُبَيْدٍ، «أَنَّ عَلِيَّ بْنَ رَبِيعَةَ كَانَ يُصَلِّي بِهِمْ فِي رَمَضَانَ خَمْسَ تَرْوِيحَاتٍ، وَيُوتِرُ بِثَلَاثٍ»

হযরত সাঈদ বিন উবায়েদ রহঃ থেকে বর্ণিত। নিশ্চয় আলী বিন রাবীয়া রমজান মাসে পাঁচ তারবীহায় নামায পড়তেন এবং তিন রাকাআত বিতর পড়তেন। [মুসান্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-৭৬৯০]

তারাবীহ শব্দ উল্লেখ করে এরকম বর্ণনা হাদীসের কিতাবে ও হাদীসের ব্যাখ্যাগ্রন্থে ভরপুর। তাই এ শব্দটি পরবর্তী যুগে আবিস্কার বলার কোন সুযোগ নেই। বরং সাহাবায়ে কেরাম এবং তাবেয়ীগণের বর্ণিত শব্দের নাম তারাবীহ।

আর সবচে’ বড় বিষয় হল, এখানে শব্দ মুখ্য বিষয় নয়, বরং মূল বিষয় হল, রমজান মাসের বিশেষ নামায। যা বিশ রাকাআত। এ নামাযটি যে নামেই প্রসিদ্ধ পাক না কেন, এটি কখনোই মূল বিষয় হতে পারে না। মূল বিষয় হল, এ নামাযের অস্তিত্ব নববী যুগ এবং সাহাবাযুগে অস্তিত্ব আছে কি না?

আর আমাদের সাইটে প্রকাশিত একাধিক প্রশ্নোত্তর ও প্রবন্ধে আমরা প্রমাণ করেছি যে, রমজানের বিশেষ নামায যা তারাবীহ নামে পরিচিত তা নববী যুগ থেকে নিয়ে সাহাবা ও তাবেয়ীযুগ এবং অধ্যবধি পড়ে আসা হচ্ছে। যা উক্ত নামাযটি শরীয়তসিদ্ধ আমল হবার প্রমাণ বহন করে। কারণ, উম্মতের আমলী পরম্পরা কোন আমল সহীহ এবং বিশুদ্ধ হবার সবচে’ বড় দলীল।

তারাবীহ সম্পর্কে দালিলীক বুৎপত্তি অর্জন করতে হলে পড়ুন-

১-  তারাবীহ নামায বিশ রাকাতঃ একটি দলীল ভিত্তিক পর্যালোচনা

২- তারাবীহ এর রাকাত সংখ্যা এবং লা-মাযহাবী বন্ধুদের জালিয়াতিসমূহ

৩- তারাবীর রাকাত বিষয়ে আহলে হাদীস ও আহলে সুন্নাহ বাহাস

৪- তারাবীহ ও তাহাজ্জুদ কি একই নামায

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

হায়েজ চলাকালীন সময়ে তালাক দিলে তালাক পতিত হয় না?

প্রশ্ন আমার স্বামী আমাকে আমার পিরিয়ড চলার সময় তালাক প্রদান করেছে। আমার প্রশ্ন হল, মাসিক …