প্রচ্ছদ / প্রশ্নোত্তর / ইসলামী শরীয়তে পোশাক বিষয়ক কোন নীতিমালা নেই?

ইসলামী শরীয়তে পোশাক বিষয়ক কোন নীতিমালা নেই?

প্রশ্ন

আমি মুহাম্মদ সুলতান মাহমুদ।শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এ পড়ি……হযরত আপনার আলোচনা  শুনেআমার অনেক প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গিয়েছি।
প্রশ্নটা আমার  না, ফেজবুকে একজন পোসট  করেছে…. আশাকরি উত্তর টা পাব

একজন সহীহ বা সাধারণ মুসলিম যদি শুধুমাএ ভাল ভাবে
না জেনে টুপি পাগড়ী আর পাঞ্জাবি পরা কে সুন্নত
বলল তাহলে সে বরো ভুল করল। পোশাক মানব সভ্যতার
একটি অংশ।
সব ভাল মানুষেরাই পোশাক পরিধান করে থাকে। তবে
দেশ ভেদে পোশাক বিভিন্ন হয়। আরব দেেশ পুতুল
পুজারী নাসারা ইহুদি কাফের মুশরিক যে পোশাক
পরতো রাসুল (সা) তা পরিধান করতেন। ওহী নাযিল
হওয়ায় পর রাসুল (সা)পুরাতন পোশাক ছেড়ে দিয়ে নুতন
পোশাক পরিধান করেননি। তার মানে নয় যে তিনি
খারাপ ধরণের পোশাক পরতেন। তিনি nice এবং ভাল
পোশাগই সব সময় পরতেন।
তিনি কাউকে কোন পোশাক নির্ধারণ করে দেননি
কারণ তিনি সমগ্র মানব জাতির রাসুল হিসাবে
এসেছিল। মনে করেন এদেশে যদি পাঞ্জাবি কে
সুন্নাতি পোশাক হিসাবে ধরে নেওয়া হয় তাহলে
সাইবেরিয়ায় মত অনেক শীত প্রধান এলাকায় এ পোশাক
মরণ ডেকে আনত।
সহিহ হাদীসে নির্দিষ্ট কোন পোশাক কে সুন্নাত
ঘোষণা করা হয় নাই। ১৪০০বছর পুর্বে আরব এর কোথাও
পাঞ্জাবির ব্যবহার ছিল না। সুতরাং পাঞ্জাবি টুপি
কে সুন্নাতি পোশাক হিসেবে চালিয়ে দিতে চাইলে
রাসুল এর নামে মিথ্যা অপবাদ দেওয়া হবে। রাসুল (সা)
বলেন যে আমার নামে মিথ্যাচার করে সে তার স্থান
জাহান্নাম করে নেয়। পুর্ব কাল থেকে হিন্দু জমিদার
রা পাঞ্জাবি ব্যবহার করত এখনো পরে। পাগড়ী ও পরে।
এদেশে ফাউল মুফতি দারা সুন্নাত ঘোষণা করার ফলে
বুদ্ধিজীবী নাস্তিক রাও ঢালাওভাবে ফাতওয়াবাজ
মৌলবাদি বলে গালি দেওয়ার সাহস পাচ্ছে। যারা
নির্দিষ্ট মনে না করে পাঞ্জাবি টুপি পাগড়ী পরে
তাদেরকে।
দুনিয়ার কোন মুসলিম দেশে সুন্নাতি পোশাক চালু
হয়নি। ইউরোপ আমেরিকা জাপান চীন সউদী ইরান
ইন্দোনেশিয়া মিশর ইরাক আরো অনেক দেশই তাদের
ঐতিহ্য বাহী পোশাক পরিধান করে। সুন্নাতি নামের
পোশাক শুধু ভারতীয় উপমহাদেশের কিছু ফাউল আলেম
মৌলভী এবং পীরেরাই আবিষ্কার করে ফেললেন। পুর্বে
আরব সমাজে একখানা কাপড় দিয়েই সমস্ত শরীর ঢাকার
রীতি চালু ছিল। এমন কি বর্তমানেও আরবদের পোশাক
একই রকম তারা নিচে ছোট খাট একটি প্যান্ট পরে তার
উপর দিয়ে পায়ের গোড়া পর্যন্ত একটি লম্বা কোর্তা
পরিধান করে। সুতরাং নির্দিষ্ট কোন পোশাক কে
সুন্নাত হিসাবে মানুষের উপর চালিয়ে দেওয়া একটি
জঘন্য বিদয়াত। টুপি পাগড়ী মাথায় দিলে ভাল লাগে
সুন্দর লাগে ব্যবহার করুন। সব সময় ব্যবহার করুন। তাতে
কোন আপত্তি নেই কিন্তুু সুন্নাতি কাজ বা সওয়াব এর
আশা করলে তা হবে বিদয়াত। রাসুল (সা)টুপি পানজাবি
পাগড়ী ব্যবহার. করার নির্দেশ দেননি। এবং সহীহ
হাদীসেও নেই। টুপি ১৪০০বছর আগে আরবে ছিল না এখনও
নেই। সুন্নাত বলতে রাসুলের কথা কাজ আদেশ নিষেধ
এগুলই তো বুঝায়।
এর পর পাগড়ী হল সুদান আফগান ইরান এবং ভারতের
শিখদের পোশাক। পাগড়ী পরে সালাত আদায় বেশী
সওয়াব এবং ফাজায়েলে পাগড়ীর যত হাদীস আছে সব
জাল ও গরীব হাদীস। দেশে কিছু লোক বা আলেম মনে
করে টুপি ছারা নামাজ পরলে কম নেকী বা নামাজই
হবে না এসব বিদয়াতি আকিদা গন্ড মুর্খদের।
সহিহ হাদিসে পোশাক সম্পর্কে অনেক হাদীস আছে
তাই নির্দিষ্ট পোশাক কে সুন্নাতি মনে না করে যে
পোশাক পরলে নারি পুরুষ দের শালীনতা বজায় রাখে
রুচিশীল হয় সুন্দর দেখায় বেহায়াপনা না হয় পর্দাশীল
হয় এসব পোশাক উভয়ের পরিধান করতে হবে। এসব কেই
সুননাতি পোশাক বলে।পর্দা শীল পোশাক ই সুন্নাত যা
হউক না কেন।
তার মানে এই নয় যে টুপি পাঞ্জাবি পাগড়ী পরা যাবে
না।
পুরুষ দের পোশাক এর শর্তাবলী
নাভি থেকে হাটু পর্যন্ত ঢাকতে হবে।পুরুষ রা মেয়েদের
আর মেয়েরা পুরুষের পোশাক পরিধান করতে পারবে না।
পোশাক পাতলা বা অটোসাটো হবে না।
পুরুষ রা রেশমী পোশাক পরতে পরবে না।
পোশাক অহংকারী ও টাকনুর নিচে পরা যাবে না।
আরো কিছু শর্তাবলী হাদীসে আছে।
যে পোশাক ই হউক না কেন ।
মেয়েদের পোশাক এমন হতে হবে যাতে কেউ চিনতে না
পারে এবং পর্দাশীলহয়। এবং সহিহ হাদিসের সব
শর্তাবলী পালন করতে হবে। পোশাক সম্পর্কে সহিহ
অনেক হাদিস রয়েছে কিন্তু নির্দিষ্ট কোন সুন্নাতি
পোশাক এর নাম সহিহ হাদীসে নেই।
অনেক ভাল ভাল জ্ঞানী লোক কে হেয় করা হয়
পাঞ্জাবি পরে নামাজ না পরার কারনে। তার মানে
ঐসব অবুঝ ব্যক্তি টুপি পাঞ্জাবি পরা কে সুন্নাত মনে
করে নির্দিষ্ট ভাবে।
পরিশেষে বলা যায় tupi panjabi asob k সুননাত ঘোসনা
করছে ভারতীয় উপমহাদেশের কিছু ভুয়া পীর মৌলভীরা।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

ইসলাম সম্পর্কে চরম অজ্ঞতার কারণে আপনার উক্ত শিক্ষক উপরোক্ত বক্তব্যগুলো প্রদান করেছে। ডাক্তার হয়ে ইঞ্জিনিয়ারী বিষয়ে জ্ঞান দান করলে যেমন আহমকী প্রকাশ পায়, তেমনি উক্ত টিচারের বক্তব্য দ্বারা প্রকাশ পেয়েছে।

পোশাক বিষয়ে ইসলামী নীতিমালা জানতে আমাদের সাইটে প্রকাশিত দু’টি লেখা পড়ুন-

ইসলামী শরীয়তে পোশাক বিষয়ক নীতিমালা

পাঞ্জাবী পাগড়ি টুপি সুন্নত নয় আরবের পোশাক?

আল্লাহ তাআলা এসব অজ্ঞ গবেষকদের মুর্খতাসূলভ গবেষণা থেকে উম্মতে মুসলিমাকে হিফাযত করুন। আমীন।

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

নামাযে মহিলাদের পোশাক কেমন হওয়া আবশ্যক? কোন অঙ্গ খোলা থাকলে নামায হবে না?

প্রশ্ন From: mohammed joynal uddin বিষয়ঃ অজু/নামাজ প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম প্রশ্ন:১। মহিলাদের অজুর সময় মাথায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস