প্রচ্ছদ / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / পরিবার সদস্যের টাকা কমবেশি করে শরীকানা কুরবানী দিলে সবার কুরবানী আদায় হবে কি?

পরিবার সদস্যের টাকা কমবেশি করে শরীকানা কুরবানী দিলে সবার কুরবানী আদায় হবে কি?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম ।

আমার বাড়িতে ৩ জন উপার্জনক্ষম । আমরা দুই ভাই ও আমার বাবা । যদি একজন কোরবানির  পশু কিনে তাহলে কি সবার পক্ষ থেকে আদায় হয়ে যাবে ? যদি তিন জন মিলে পশু কিনি এবং তিনজন অসমান টাকা দিল, তাহলে বিধান কি ?
যেমন – গরুর দাম ৫০ হাজার । একজন দিল ৪০,০০০ টাকা । একজন দিল ৯৫০০ টাকা । আরেক জন দিল শুধু ৫০০ টাকা । এই ক্ষেত্রে সবার কোরবানী আদায় হবে ?

আহালে হক মিডিয়ার প্রচার ও  প্রসার এর জন্য অনেক দুয়া ও শুভ কামনা রইল ।

মোহাম্মদ ফারুক
সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ।
বাসা : খিলক্ষেত , তালের টেক,
ঢাকা – ১২২৯ ।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

এক পরিবারের যত জনের উপর কুরবানী আবশ্যক পরিমাণ সম্পদ থাকে, সবার উপরই কুরবানী করা আবশ্যক।

পরিবারের একজন কুরবানী করার দ্বারা সবার পক্ষ থেকে কুরবানী আদায় হয় না। সবারই আলাদাভাবে কুরবানীতে অংশিদার থাকতে হবে।

তবে যদি একজন কুরবানীর পশু ক্রয় করে, বাকি যাদের উপর কুরবানী ওয়াজিব, তাদের জানিয়ে তাদের অংশও সংশ্লিষ্ট করে নেয়, আর তা যার উপর কুরবানী ওয়াজিব সে অনুমতি প্রদান করে, তাহলে একজন টাকা দিলেও যাকে অন্তর্ভূক্ত করল, তার কুরবানীও আদায় হবে।

যেমন আপনাদের পিতা ও দুই ভাইয়ের প্রত্যেকের উপর যদি কুরবানী ওয়াজিব হয়, আর আপনি একা একটি গরু ক্রয় করে এক অংশ আপনার বাবার ওয়াজিব কুরবানী, আরেক অংশ আপনার ভাইয়ের ওয়াজিব কুরবানীর অংশ তাদের জানিয়ে নিয়ত করে নেন, তাহলে এর দ্বারা আপনার পিতা ও ভাইয়ের কুরবানীও উক্ত পশু কুরবানী দ্বারা আদায় হয়ে যাবে।

তেমনিভাবে একজনের ভাগের টাকা আরেকজন দান করে কুরবানীর পশু ক্রয় করলেও সবার কুরবানী আদায় হবে।

সেই হিসেবে টাকা কমবেশি হলেও ওয়াজিব কুরবানী আদায়ে কোন সমস্যা হবে না। জায়েজ হবে।

তাই প্রশ্নে উল্লেখিত সূরতেও কুরবানী আদায় হয়ে যাবে। যদি তাদের ভাগের টাকা প্রদান করে কুরবানী দেয়ার অনুমতি তারা প্রদান করে থাকে, কিন্তু যদি অনুমতি না দেয়, তাহলে কারো কুরবানী আদায় হবে না।

وَلَوْ ضَحَّى بِبَدَنَةٍ عَنْ نَفْسِهِ وَعُرْسِهِ وَأَوْلَادِهِ لَيْسَ هَذَا فِي ظَاهِرِ الرِّوَايَةِ وَقَالَ الْحَسَنُ بْنُ زِيَادٍ فِي كِتَابِ الْأُضْحِيَّةِ: إنْ كَانَ أَوْلَادُهُ صِغَارًا جَازَ عَنْهُ وَعَنْهُمْ جَمِيعًا فِي قَوْلِ أَبِي حَنِيفَةَ وَأَبِي يُوسُفَ – رَحِمَهُمَا اللَّهُ تَعَالَى -، وَإِنْ كَانُوا كِبَارًا إنْ فَعَلَ بِأَمْرِهِمْ جَازَ عَنْ الْكُلِّ فِي قَوْلِ أَبِي حَنِيفَةَ وَأَبِي يُوسُفَ رَحِمَهُمَا اللَّهُ تَعَالَى، وَإِنْ فَعَلَ بِغَيْرِ أَمْرِهِمْ أَوْ بِغَيْرِ أَمْرِ بَعْضِهِمْ لَا تَجُوزُ عَنْهُ وَلَا عَنْهُمْ فِي قَوْلِهِمْ جَمِيعًا؛ لِأَنَّ نَصِيبَ مَنْ لَمْ يَأْمُرْ صَارَ لَحْمًا فَصَارَ الْكُلُّ لَحْمًا، (الفتاوى الهندية، كتاب الاضحية، الباب السابع فى التضحية عن الغير وفى التضحية بشاة الغير عن نفسه-5/302)

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালকতালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

 

আরও জানুন

পেশাবের দশ পনের মিনিট পর পেশাবের ফোটা আসার সন্দেহ হলে করণীয় কী?

প্রশ্ন From: আব্দুলাহ আনাস বিষয়ঃ পবিত্রতা প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন হুজুর? এক ব্যক্তি বড় দীর্ঘ দিন …

No comments

  1. m m abdullah makkah

    jajakallah

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস