প্রচ্ছদ / তালাক/ডিভোর্স/হুরমত / ‘তুমি ছাড়া কাউকে বিয়ে করলে সে তিন তালাক হয়ে যাবে’ বলার পর অন্য কাউকে বিয়ে করতে পারবে?

‘তুমি ছাড়া কাউকে বিয়ে করলে সে তিন তালাক হয়ে যাবে’ বলার পর অন্য কাউকে বিয়ে করতে পারবে?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়াবারকাতুহু

এক ভাই  বলেছিল তোমাকে ছাড়া আমি যাকে বিয়ে করবো সেই এক তালাক, দুই তালাক, তিন তালাক, বাইন তালাক হয়ে যাবে।

তুমি ছাড়াই কোন মেয়ে আমার জন্য হালাল হবে না আমার জন্য  হারাম হয়ে যাবে ।

যেভাবেই হোক না কেন বিয়েটা ওই মজলিসে ওই নারী এক তালাক,  দুই তালাক, তিন তালাক, বাইন তালাক হয়ে যাবে।

উপরের আল্লাহকে সাক্ষী রেখে কসম করে আবারও বলছি তুমি ছাড়া কোন মেয়ে আমার জন্য হালাল হবে না।

যেভাবে যেই অবস্থায় বিয়েটা হোক না কেন ওই মজলিসে  ওই বউ এক তালাক, দুই তালাক,  তিন তালাক, বাইন তালাক  হয়ে যাবে।

আমি সব মেনে জেনে শুনে  নিজ ইচ্ছায়  তিন তালাক দিয়ে দিলাম।

সম্মানিত মুফতি সাহেব সঠিক মাসালা দিয়ে একটু সাহায্য করুন।

সে কি আর অন্য কোন মেয়েকে বিবাহ করতে পারবে?

দয়া করে জানাবেন খুবই দরকার ফতোয়াটি।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

ফুজুলী তরীকায় বিবাহ করতে পারবে।

ফুজুলী বিয়ের পদ্ধতি হলো: কাউকে নিজের অবস্থা সম্পর্কে জানাবে। মাসআলা সম্পর্কে অবগত এমন ব্যক্তি নির্ধারিত মোহর ঠিক করে যে মেয়েকে বিয়ে করতে চায়, তাকে সাক্ষীদের সামনে প্রস্তাব দিবে। মেয়ে অথবা মেয়ের উকীল সাক্ষীদের সামনে বিয়ের প্রস্তাব কবুল করে নিবে।

তারপর উক্ত বিয়ের প্রস্তাবদাতা কসমকারী ব্যক্তিকে জানাবে যে, উক্ত মেয়ের সাথে আমি তোমার বিয়ে এত টাকা মোহরের বিনিময়ে দিয়েছে। এ ব্যাপারে তোমার মতামত কী? তখন কসমকারী মুখে কোন কিছু না বলে পূর্ণ বা আংশিক মোহর প্রদান করবে। তারপর স্ত্রীর কাছে যেতে পারবে। কারণ, এর দ্বারা বিয়ে সম্পন্ন হয়ে যাবে। সংসার করতে পারবে। কোন প্রকার তালাক পতিত হবে না।

এ পদ্ধতিতে বিয়ে করতে পারবে। এছাড়া সরাসরি কসমকৃত মেয়েকে ছাড়া কাউকে বিয়ে করলে সাথে সাথে তিন তালাক হয়ে যাবে।

 

إذا قال كل امرأة أتزوجها طالق فزوجه فضولى فأجاز بالفعل بأن ساق المهر ونوحه لا تطلق (فتح القدير، كتاب الطلاق، باب الأيمان فى الطلاق، زكريا-4/106، كويته-3/446)

وينبغى أن يجيئ إلى عالم ويقول له: ما حلف واحتياجه إلى نكاح الفضولى فيزوجه العالم امرأة ويجيز بالفعل فلا يحنث (البحر الرائق، زكريا-4/10-11، كويته-4/7)

حلف لا يتزوج فزوجه فضولى، فأجاز بالقول حنث، وبالفعل……. كبعث المهر أو بعضه لا يهنث به يفتى (الدر المختار مع رد المحتار، زكريا-5/672، كرتاشى-3/846، حانية على هامش الهندية-2/34، جديد-2/23)

إذا قال: كل امرأة أتزوجها فهى طالق فزوجه فضولى وأجاز بالفعل بأن ساق المهر ونحوه لا تطلق (الفتاوى الهندية-1/419، جديد-1/488)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

প্রধান মুফতী: জামিয়াতুস সুন্নাহ লালবাগ, ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হক লালবাগ ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com 

আরও জানুন

বিয়ের অনুমতি প্রদানকারীর উপস্থিতিতে উকীল একজন সাক্ষীর সামনে বিয়ে করালে বিবাহ হবে?

প্রশ্ন আসসালামুআলাইকুম। আমার স্বামী আমাকে অজ্ঞাতাবসত তিন তালাক দেন। আমি দ্বীনের পথে আসার পর জানতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস