প্রচ্ছদ / ঈমান ও আমল / মৃতের বাড়িতে কুরআন পড়ে খানা খেতে মাদরাসা ছাত্রদের প্রেরণ করা কী শরীয়তসম্মত?

মৃতের বাড়িতে কুরআন পড়ে খানা খেতে মাদরাসা ছাত্রদের প্রেরণ করা কী শরীয়তসম্মত?

প্রশ্ন

 আমার জানার বিষয় হলো: এলাকায় কেউ মারা গেলে সেই পরিবারের পক্ষ থেকে তিনদিনের দিন বা চল্লিশ দিনের দিন, বা মৃত্যুবার্ষিকীতে, কিংবা এমনিতেই কোন একদিন কুরআন খতম করতে মাদরাসার ছাত্র নিতে আসে। ছাত্ররা কুরআনে কারীম তেলাওয়াত করে। তারপর তাদেরকে খানা খাওয়ানো হয়। কিছু হাদিয়াও দেয়া হয়।

এভাবে মৃতের নামে কুরআন তিলাওয়াতের মাধ্যমে ঈসালে সওয়াব করে খানা খাওয়া ও টাকা গ্রহণ করা কতটুকু শরীয়তসম্মত? এসব কাজে মাদরাসার ছাত্রদের পাঠানো জায়েজ কি না? দয়া করে বিস্তারিত জানাবেন।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

এভাবে মৃতের বাড়িতে কুরআন খতম করে দাওয়াত খাওয়া ও টাকা গ্রহণ সম্পূর্ণরূপে নাজায়েজ ও বিধর্মীদের মৃত্যুপরবর্তী কর্মসম্পাদন পদ্ধতির অনুসরণ। তাই এসব পরিত্যাজ্য।

এসব কাজে ছাত্রদের প্রেরণ করা যেমন জায়েজ নেই। তেমনি মৃতের বাড়িতে খানা খাওয়া এবং টাকা গ্রহণও নাজায়েজ। তাই এসব কাজ থেকে বিরত থাকা আবশ্যক।

ويكره اتخاذ الضيافة من أهل الميت الخ (كبيرى، امدادية، ملتان-209، اشرفيىه ديوبند-609، فتح القدير، زكريا-2/151، كويته-2/102)

عن سعيد بن جبير قال: ثلاث من عمل الجاهلية: النياحة والطعام على الميت الخ (مصنف عبد الرزاق، كتاب الجنائز، باب الطعام على الميت، المجلس العلمى-3/550، رقم-6664)

ويكره اتخاذ الطعام فى اليوم الأول والثالث وبعد الأسبوع والأعياد ونقل الطعام إلى البقر فى المواسم واتخاذ الدعوة بقرءة القرآن وجمع الصلحاء والقراء للختم أو لقراءة سورة الأنعام أو الإخلاص (بزازية، كتاب الصلاة، نوع ذهب إلى المصلى قبل الجنازة ينتظرها، جديد-1/54، على هامش الهندية-4/81)

ويكره اتخاذ الطعام فى اليوم الأول والثالث وبعد الأسبوع ونقل الطعام إلى القبر فى المواسم واتخاذ الدعوة بقراءة القرآن وجمع الصلحاء والقراء للختم أو لقراءة سورة الأنعام أو الإخلاص (رد المحتار، زكريا-3/148، كرتاشى-2/240، حاشية الطحطاوى على المراقى الفلاح-617)

عن جرير قال: كانوا يروت أن اجتماع أهل الميت وصنعة الطعام من النياحة (المعجم الكبير للطبرانى، زكريا-3/2148-307، كرتاشى-2/240، رقم-2279، سنن ابن ماجه-116، رقم-1612)

عن عائشة قالت: قال رسول الله صلى الله عليه وسلم من صنع أمرا من غير أمرنا فهو مردود (مسند احمد بن حنبل-6/73، رقم-24954)

ويكره اتخاذ الضيافة من الطعام من أهل الميت، لأنه شرع فى السرور لا فى الشرور، وهى بدعة مستقبحة (رد المحتار، زكريا-3/148، كرتاشى-2/240)

 

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com 

আরও জানুন

সিএনজির মূল্যের উপর কি যাকাত আবশ্যক হয়?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম! আমার প্রশ্ন হলো, একজনের একটা সি এন জি আছে। দাম ৩ লক্ষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস