প্রচ্ছদ / পেশা/চাকরী / ঘুষ প্রদান করে চাকরি নেওয়া যাবে কী?

ঘুষ প্রদান করে চাকরি নেওয়া যাবে কী?

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।

প্রশ্নঃ

মুহতারাম আমি আর্থিকভাবে অসচ্ছল হওয়াতে আমার বন্ধু তার সাথে চাকরিতে জয়েন্ট হতে বলে, তবে উক্ত চাকরিতে জয়েন্ট হতে হলে মোটা অংকের ঘুষ দিতে হবে। জানার বিষয় হল, চাকরি পাওয়ার জন্য এভাবে ঘুষ প্রদান করা বৈধ হবে কী না? জানিয়ে বাধিত করবেন।

নিবেদক
মোহাম্মদ রাসেল আহমদ
ডাক্তার পাড়া, ফেনী।

ওয়ালাইকুম আসসালাম রাহমাতুল্লাহ।

بسم الله الرحمن الرحيم
حامدا ومصليا ومسلما

উত্তরঃ ইসলামে ঘুষ দেওয়া ও নেওয়া উভয়টি হারাম।
রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ঘুষদাতা ও গ্রহিতা উভয়কে অভিসম্পাৎ করেছেন। সুনানে তিরমিজি ১/২৪৮
সুতরাং প্রশ্নোক্ত ক্ষেত্রে আপনার কর্তব্য হল, আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী সর্বপ্রথম ঘুষ প্রদান ব্যতীত চাকরির অনুসন্ধান করা এবং কায়োমনোবাক্যে আল্লাহর কাছে দোয়া করা । তবে আপনি যদি একান্ত নিরুপায় হোন এবং বর্তমান চাকরির যোগ্য হোন, তাহলে ঘুষ প্রদান করে চাকরিটি নেওয়ার সুযোগ আছে। তবে ভবিষ্যতে ঘুষবিহীন ভালো কোন চাকরির অনুসন্ধান জারি রাখতে হবে। তাহলে আশা করা যায় উক্ত কাজটি আপনার জন্য বৈধ হবে। কিন্তু গ্রহীতার জন্য তা কোন ভাবেই বৈধ হবে না।

المستندات الشرعية:
أخرج الإمام الترمذي رح في “سننه” ٢٤٨/١ :في الراشي والمرتشي في الحكم (ط.الاشرفية): بسنده المتصل عن عبد الله بن عمرو رض قال لعن رسول الله صلى الله عليه وسلم الراشي والمرتشي، قال الترمذي هذا حديث حسن صحيح.

قال المفتي والمحدث سعيد أحمد بالن بوري في “تحفة المعي” ٢٦١/٤:  (مذکورہ حدیث کے شرح میں): الغرض: رشوت نہ لینا جائز ہے نہ دینا، البتہ رشوت دیے بغیر حق نہ مل سکتا ہو تو رشوت دینے کی گنجائش ہے، مگر لینے کی کسی صورت میں گنجائش نہیں ہے

وفي “مجمع الأنهر”٢١٤/٣:  كتاب القضاء (ط.مكتبة رشيدية): قال وأعلم أن ما دفع إما دفع للتودد وهو حلال من الجانبين وإما لصيرورته قاضيا وهو حرام منهما وإما لخوف على نفسه أو ماله وهو حرام على الأخذ حلال للدافع وكذا إذا طمع في ماله فرشاه ببعض المال. انتهى

وفي “البحر ” ٤٤١/٦: كتاب القضاء(ط.زكريا ديوبند ): منها إذا دفع الرشوة خوفا على نفسه أو ماله فهو حرام على الأخذ غير حرام على الدافع
وكذا إذا طمع في ماله فرشاه ببعض المال
ومنها إذا دفع الرشوة ليسوى أمره عند السلطان حل له الدفع ولا يحل الآخذ أن ياخذ. انتهى

ويراجع أيضا : “التاتارخانية” ٧٧/١١، و”الدر المختار” مع “رد المحتار”٤٢/٨. انتهى

والله أعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

মুহা. শাহাদাত হুসাইন

সাবেক শিক্ষার্থী: ইফতা বিভাগ

তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

সত্যায়নে

মুফতী লুৎফুর রহমান ফরায়েজী।

পরিচালক  – তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

আরও জানুন

বেতন বৈধ হবার জন্য ক্লাস না থাকলেও কি কলেজ শিক্ষকদের প্রতিষ্ঠানে প্রতিদিন আসতে হবে?

প্রশ্ন আমি বিসিএস পরীক্ষার মাধ্যমে সরকারি কলেজের ইংরেজি প্রভাষক হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত। আমি অন্যান্য বিসিএস ক্যাডারে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস