প্রচ্ছদ / কসম ও মান্নত / ‘পশুটি সুস্থ্য হলে কুরবানী দেবো’ বলার পর উক্ত পশু সুস্থ্য হলে অন্য পশু দিয়ে কুরবানী দেয়া যাবে?

‘পশুটি সুস্থ্য হলে কুরবানী দেবো’ বলার পর উক্ত পশু সুস্থ্য হলে অন্য পশু দিয়ে কুরবানী দেয়া যাবে?

প্রশ্ন

প্রশ্নকারীর নাম: জাহাঙ্গীর আলম

ঠিকানা: কাকুয়া, কাটখাল, মিঠামইন, কিশোরগঞ্জ

জেলা/শহর: কিশোরগঞ্জ

দেশ: বাংলাদেশ

প্রশ্নের বিষয়: মান্নত

বিস্তারিত:
—————-
আমাদের একটি গাভী বেশি অসুস্থ হয়ে গেলে আমার মা বলে আল্লাহ যদি গাভিটি কে বাচিয়ে রাখে তাহলে তার মাধ্যমে কামাই রোজী খেয়ে তাকে কুরবানী করব, পরে গাভিটি সুস্থ হওয়ার কিছুদিন পর আমাদের টাকার বিশেষ প্রয়োজনে গাভিটি বিক্রি  করার প্রয়োজন হয়, উল্লেখিত সুরতে গাভিটি বিক্রি করে পরবর্তিতে অন্য একটি গাভি কুরবানী করা জায়েজ হবে কিনা?

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

যদি মান্নতের নিয়তে উপরোক্ত কথা বলে থাকে, তাহলে উক্ত পশুটি বিক্রি করা যাবে না। এটা দিয়েই কুরবানী করতে হবে। এর গোস্ত খেতে পারবে না। পুরোটাই দান করে দিতে হবে।

আর যদি মান্নত নয়, শুধুমাত্র ওয়াদা হিসেবে বলে থাকে, তাহলে উপরোক্ত পশু দিয়ে কুরবানী করা আবশ্যক নয়। বরং এটি বিক্রি করে অন্য পশু দিয়েও কুরবানী করা যাবে।

ومن نذر نذر مطلقا فعليه الوفاء…… بما سمى وإن علق النذر بشرط فوجد الشرط فعليه الوفاء بنفس النذر (هداية، كتاب الأيمان، باب ما يكون يمينا وما لايكون يمينا-2\483، المبسوط للسرخسى-8\163، الدر المختار مع رد المحتار-5\515)


ولو جعل عليه حجة او عمرة او صوما او صلاة او صدقة او ما أشبه ذلك مما هو طاعة إن فعل كذا ففعل لزمه ذلك الذى جعله على نفسه (الهندية، كتاب الايمان، الباب الثانى فيما يكون يمينا وما لا يكون يمينا-2/65)

ولا يجوز النذور والكفارات ولا صدقة الفطر ولا جزاء الصيد لانها صدقة واجبة (الجوهرة النيرة، كتاب الزكاة، باب من يجوز رفع الصدقة اليه ومن لا يجوز-1/133)

ولو كان فى ملك انسان شاة فنوى أن يضحى بها أو اشترى شاة ولم ينو الأضحية وقت الشراء ثم نوى بعد ذلك أن يضحى بها لا يجب عليه سواء كان غنيا أو فقيرا، لأن النية لم تقارن الشراء فلا تعتبر (بدائع الصنائع، كتاب الأضحية-4/192-193، الفتاوى الهندية-5/291، جديد-5/336

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

পরিচালক: শুকুন্দী ঝালখালী তা’লীমুস সুন্নাহ দারুল উলুম মাদরাসা, মনোহরদী নরসিংদী।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

বিয়ের অনুমতি প্রদানকারীর উপস্থিতিতে উকীল একজন সাক্ষীর সামনে বিয়ে করালে বিবাহ হবে?

প্রশ্ন আসসালামুআলাইকুম। আমার স্বামী আমাকে অজ্ঞাতাবসত তিন তালাক দেন। আমি দ্বীনের পথে আসার পর জানতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস