প্রচ্ছদ / আধুনিক মাসায়েল / ব্যাংকে টাকা রেখে মুনাফা অর্জন করা কি শরীয়তসম্মত?

ব্যাংকে টাকা রেখে মুনাফা অর্জন করা কি শরীয়তসম্মত?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ,

আমার প্রশ্ন হল

১৷ আমার মা পেনশন বাবদ যে টাকা পাবে অল্প কিছুদিনেৱ মধ্যে তা কিভাবে ব্যংকে ৱাখতে পারি? তিনি সরকারি পেনশন স্কিম এর আওতায় রাখতে চাচ্ছেন, যার মুনাফা তিনি তাৱ জীবদ্দশায় ব্যাবহার করতে বা খরচ করতে পারেন৷

এটাকি শরিয়ত অনুযায়ী ঠিক হবে? উল্লেখ্য তিনি কোন ব্যবসা বা অন্য কোন খাতে এ টাকা ব্যাবহার করার যোগ্যতা রাখেন না৷

২৷ তিনি কিছু টাকা এমন ভাবে ওয়াকফ করতে চান (ব্যাংকিং ব্যাবস্থায়, যা বছরান্তে একটি নিদ্দিষ্ট মুনাফা পাওয়া যায়)যার মুনাফা প্রতি বছর বিভিন্ন দ্বিনি কাজে তিনি বা তাৱ অবর্তমানে একজন মোতওয়ালী ব্যাবহাৱ করতে পারে কিন্তু মূল টাকাটা যেন কেউ খরচ করতে পারবে না,অমন ভাবে ওয়াকফ কি শরিয়তসম্মত?

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

ব্যাংকে টাকা রেখে মুনাফা গ্রহণ সুদের অন্তর্ভূক্ত। যা সম্পূর্ণরূপে হারাম। তাই এভাবে টাকা রেখে মুনাফা গ্রহণ জায়েজ হবে না।

তিনি তার প্রাপ্ত টাকা মুদারাবা বা মুশারাকা চুক্তির ভিত্তিতে কাউকে ব্যবসা করতে দিতে পারেন। যার লভ্যাংশ তিনি ব্যবহার করতে পারবেন।

না, এভাবে ওয়াকফ করা শরীয়তসম্মত নয়। কারণ, হারাম পদ্ধতিতে মুনাফা অর্জন যেমন জায়েজ নেই। তেমনি উক্ত পদ্ধতিকে কোন ভাল কাজের জন্য ওয়াকফ করাও জায়েজ নয়।


يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا لَا تَأْكُلُوا الرِّبَا أَضْعَافًا مُّضَاعَفَةً ۖ وَاتَّقُوا اللَّهَ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُونَ [٣:١٣٠

হে ঈমানদারগণ! তোমরা চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ খেয়ো না। আর আল্লাহকে ভয় করতে থাক, যাতে তোমরা কল্যাণ অর্জন করতে পারো। [সুরা আলে ইমরান-১৩০]


وَأَحَلَّ اللَّهُ الْبَيْعَ وَحَرَّمَ الرِّبَا

অনুবাদ-আল্লাহ ব্যবসাকে হালাল করেছেন, আর সুদকে করেছেন হারাম। {সূরা বাকারা-২৭৫}


عَلِيًّا يَقُولُ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «كُلُّ قَرْضٍ جَرَّ مَنْفَعَةً فَهُوَ رِبًا

হযরত আলী রাঃ বলেন, রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন, প্রতিটি ঋণ যে উপকারীতা সৃষ্টি করে, তা’ই সুদ। [মুসনাদুল হারেছ, হাদীস নং-৪৩৭, সুনানে সাগীর লিলবায়হাকী, হাদীস নং-১৯৭১, মুসন্নাফ ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-২০৬৯০}

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «الرِّبَا سَبْعُونَ حُوبًا، أَيْسَرُهَا أَنْ يَنْكِحَ الرَّجُلُ أُمَّهُ»

আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ সুদের গুনাহর সত্তরটি স্তর রয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে ক্ষুদ্র স্তর হলো আপন মাকে বিবাহ (যেনা) করা। [সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-২২৭৪, শুয়াবুল ঈমান লিলবায়হাকী, হাদীস নং-৫১৩১, মুস্তাদরাক আলাস সহীহাইন, হাদীস নং-২২৫৯]

عَنِ ابْنِ مَسْعُودٍ، قَالَ لَعَنَ رَسُولُ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم آكِلَ الرِّبَا وَمُوكِلَهُ وَشَاهِدَيْهِ وَكَاتِبَهُ

ইবনু মাসউদ (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -সূদখোর, সূদ দাতা সূদের সাক্ষীদ্বয় ও সূদের (চুক্তি বা হিসাব) লেখককে অভিসম্পাত করেছেন। [সুনানে তিরমিজী-১/২২৯ হাদীস নং-১২০৬, সহীহ মুসলিম-২/৭২, হাদীস নং-১৫৯৮]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

নামাযে মহিলাদের পোশাক কেমন হওয়া আবশ্যক? কোন অঙ্গ খোলা থাকলে নামায হবে না?

প্রশ্ন From: mohammed joynal uddin বিষয়ঃ অজু/নামাজ প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম প্রশ্ন:১। মহিলাদের অজুর সময় মাথায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস