প্রচ্ছদ / প্রশ্নোত্তর / কন্যা একজন থাকলে ভাই ভাতিজারাও কি মীরাছ পায়?

কন্যা একজন থাকলে ভাই ভাতিজারাও কি মীরাছ পায়?

প্রশ্ন

From: তারিক
বিষয়ঃ মিরাছ

প্রশ্নঃ
আসসালামু আলাইকুম,
মুহতারাম,আশা করি আল্লাহ তবারক  অয়া তায়ালার রহমতে খুশহাল আছেন । আমার প্রশ্ন কারো যদি শুধু ১ জন মেয়ে সন্তান থাকে, তবে তার মৃত্যুর পর বা তার আগে উনার ভাই/ভাতিজা রা অংশিদার হবে কি না?
দুয়ার দরখাস্ত রইলো।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

মীরাছের সম্পর্ক মৃত্যুর পরের সাথে। মৃত্যুর আগে কোন ব্যক্তির সম্পদের মালিকানা বা অংশিদারিত্ব কারো জন্যই সাব্যস্ত হয় না। বরং ব্যক্তির মালিকানাধীন সম্পদ তার নিজের।

কোন ব্যক্তির যদি শুধুমাত্র একজন কন্যা থাকে, সেই সাথে মৃতের ভাই থাকে তাহলে কন্যা বাবার মৃত্যুর পর তার ত্যাজ্য সম্পদের অর্ধেক পায়, বাকিটা ভাই পাবে।

ভাই থাকা অবস্থায় ভাতিজারা কোন সম্পদ পায় না।

কিন্তু ব্যক্তির মৃত্যুর আগে কেউ কোন সম্পদই পাবে না। ব্যক্তি মৃত্যুর আগে সুস্থ্য থাকা অবস্থায় তার সমুদয় সম্পদ যে কাউকে দিয়ে যেতে পারে। এটা তার সম্পূর্ণ এখতিয়ারাধীন।

وَإِنْ كَانَتْ وَاحِدَةً فَلَهَا النِّصْفُ [٤:١١]

আর মাত্র এক কন্যা থাকলে তার জন্য অর্ধাংশ নির্ধারিত। {সূরা নিসা-১১}

فى البيضاوى- والمالك هو المتصرف فى الأعيان  المملوكة كيف شاء الخ (تفسير بيضاوى، سورة الفاتحة- 1/7)

বস্তুর মালিক বস্তুতে যেভাবে ইচ্ছে হস্তক্ষেপ করেতে পারে। {তাফসীরে বায়যাবী-১/৭}

وذوى الارحام من لا فرض لهم، ولا تعصيب من الأقرباء، وفى المضمرات: وهم عشرة…… وأولاد الأخوات (الفتاوى التاتارخانية، كتاب الفرائض، الفصل السابع والعشرون فى ذوى الأرحام-20/317، رقم-33342)

ذوى الرحم هو كل قريب ليس بذى سهم ولا عصبة…….. وذووالأرحام أصناف أربعة:……. والصنف الثالث ينتمى إلى أبوى الميت، وهم أولاد الأخوات، وبنات الإخوة (السراجى فى الميراث-75)

ولا يرث مع ذى سهم ولا عصبة (الدر المختار مع رد المحتار، كتاب الفرائض، باب توريث ذوى الأرحام-10/547)

وإنما يرث ذووا الأرحام إذا لم يكن أحد من أصحاب الفرائض ممن يرد عليه ولم يكن عصبة (الفتاوى الهندية، كتاب الفرائض، الباب العاشر فى ذوى الأرحام-6/459)

وفى الهندية- لا بأس به اذا لم يقصد به الاضرار وان قصد به الاضرار سوىبينهم وهو المختار- (الفتاوى الهندية ٤/٣۹۱

 وفى الردالمحتار- لو وهب رجل شيأ لأولاده فى الصحة واراد بفضيل البعض على البعضز………….عن ابى حنيفة لابأس به اذا كان التفضيل لزيادة فضل له فى الدين وان كان سواء يكره(ردالمحتار )١٢/٦٠٨)

 

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

পেশাবের দশ পনের মিনিট পর পেশাবের ফোটা আসার সন্দেহ হলে করণীয় কী?

প্রশ্ন From: আব্দুলাহ আনাস বিষয়ঃ পবিত্রতা প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন হুজুর? এক ব্যক্তি বড় দীর্ঘ দিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস