প্রচ্ছদ / জায়েজ নাজায়েজ / বন্ধককৃত দোকান বন্ধকগ্রহীতা ব্যবহার করতে পারবে?

বন্ধককৃত দোকান বন্ধকগ্রহীতা ব্যবহার করতে পারবে?

প্রশ্ন

করিম সাহেব রহিম সাহেব থেকে একটি দোকান ৬ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ৫ বছরের  জন্যে বন্দক নিয়েছে | এই ৫ বছর রহিম সাহেবের দোকানের সমস্ত আয় (ভাড়া বাবদ)  টাকা  করিম সাহেব ভোগ করিবে,
৫ বছর পরে ৬ লক্ষ টাকা করিম সাহেব রহিম সাহেব কে  ফেরত দিবে |
এখন প্রশ্ন হচ্ছে ,করিম সাহেব রহিম সাহেবের দোকানের সমস্ত আয় (ভাড়া বাবদ) টাকা ভোগ করিতে পারিবে কি না ?

প্রশ্নকর্তা- Mijan Tailors

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

বন্ধকী সম্পদ আমানত হিসেবে সাব্যস্ত হয়। আর আমানতের বস্তু ব্যবহার করা আমানতগ্রহীতার জন্য জায়েজ নয়।

সেই হিসেবে উপরোক্ত বন্ধককৃত দোকান দিয়ে বন্ধকগ্রহিতার জন্য উপার্জনের মাধ্যম বানানো বা ব্যবহার করা কোনটাই জায়েজ নয়।

তবে এখানে ২টি জায়েজ সূরত আছে। সেটি হল,

করিম সাহেব রহীম সাহেব থেকে দোকানটি ভাড়া নিবে মাসিক বা বাৎসরিক হিসেবে। একটি মামূলী ভাড়া ধার্য করে। যেমন মাসে বা বছরে এক হাজার টাকা। বা দুই হাজার টাকা।

তারপর অগ্রীম ভাড়া বাবদ তাকে ৬ লাখ টাকা প্রদান করবে।

এবার করিম সাহেব উক্ত দোকান নিজের ইচ্ছেমত ভাড়া বা ব্যবহার করতে পারবে।

তারপর ৫ বছর পর ভাড়া ব্যতিত বাকি টাকা রহিম সাহেব ফেরত দিয়ে তার দোকানটা নিয়ে নিবে।

এভাবে করলে উক্ত চুক্তিটি জায়েজ ও করিম সাহেবের জন্য দোকান থেকে ফায়দা নেয়া জায়েজ হবে।

আরেকটি সূরত হল, করিম সাহেব রহিম সাহেব থেকে ৬ লাখ টাকায় ক্রয় করবে। তারপর ক্রয় শেষে বলবে যে, আমি তোমার কাছে এ জমিন ৫ বছর পর বিক্রি করবো যদি তুমি কিনতে চাও, তাহলে ৬ লাখ টাকা দিতে হবে।

এভাবে করলেও উক্ত দোকানটি দ্বারা ফায়দা নেয়া করিম সাহেবের জন্য বৈধ হবে।

لا يحل للمرتهن ان ينتفع بشيئ منه بوجه من الوجوه وإن أذن له الراهن لأنه اذن له فى الربا لأنه يستوفى دينه كاملا فتبقى له المنفعة فضلا فتكون ربا وهذا أمر عظيم (رد المحتار، كتاب الرهن-10\83، 7\395، مجمع الأنهر-2\588، 4\283-284)

وليس للمرتهن أن ينتفع بالرهن لا بالاستخدام ولا سكنى ولا لبس (هداية-4\522)

وليس للمرتهن الانتفاع بالرهن لان حق المرتهن الحبس إلى ان يستوفى دينه دون الانتفاع (مجمع الانهر-4\273، 2\587)

وصورته أن يقول البائع للمشترى بعت منك هذا العين بدين لك على أ،ى متى قضيت الدين فهو لى أو يقول البائع بكتك هذا بكذا على انى متى دفعت لك الثمن تدفع العين إلى (البحر الرائق-6\11، رد المحتار-7\546، هندية-3\209، جديد-3\196)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক -তা’লীমুল ইসলাম ইনস্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীন বাজার, সালেহপুর ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

কবরবাসী জিয়ারতকারীর সালাম শুনতে পায় এবং পরিচিতজনকে চিনতে পারে?

প্রশ্ন প্রশ্নকারীর নাম: —————- ফয়সাল আহমাদ ঠিকানা: —————- গুনবতী,কুমিল্লা জেলা/শহর: —————- কুমিল্লা দেশ: —————- বাংলাদেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস