প্রচ্ছদ / প্রশ্নোত্তর / স্বামী/স্ত্রীর ভাই-বোনের সাথে বিবাহের হুকুম এবং কাদের সাথে বিবাহ করা জায়েজ নয়?

স্বামী/স্ত্রীর ভাই-বোনের সাথে বিবাহের হুকুম এবং কাদের সাথে বিবাহ করা জায়েজ নয়?

প্রশ্ন:

From: Asa
Subject: others
Country : Bangladesh
Mobile :
Message Body:
১.      স্বামীর ভাইয়ের/বোনের ছেলের সঙ্গে বিবাহ জায়েজ কি-না।

২.      স্ত্রীর বোনের/ভাইয়ের মেয়ের সাথে বিবাহ জায়েজ কি-না। বিস্তারিত জানিয়ে বাধীত করিবেন।

৩.      ১৪ জন মাহরেম পুরুষ/নারীর সম্পূর্ন তালিকা জানিয়ে বাধীত করিবেন।

জবাব:

بسم الله الرحمن الرحيم

স্বামী মারা গেলে বা স্বামী তালাক দিলে স্ত্রীর জন্য স্বামীর ভাইয়ের সাথে বা স্বামীর ভাইয়ের ছেলের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া জায়েজ। এমনিভাবে স্বামীর বোনের ছেলের সাথেও বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া  জায়েজ আছে। কোন সমস্যা নাই।

স্ত্রী মারা গেলে বা স্ত্রীকে তালাকপ্রাপ্তা হলে স্ত্রীর বোনের সাথে বা বোনের মেয়ের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া জায়েজ। এমনিভাবে স্ত্রীর ভাইয়ের মেয়েকে বিবাহ করা জায়েজ। কিন্তু স্ত্রী যদি মারা না যায়, বা তালাকপ্রাপ্তা না হয় তাহলে স্ত্রীর বোনকে বা স্ত্রীর বোনের মেয়েকে, এবং স্ত্রীর ভাইয়ের মেয়েকে বিবাহ করা জায়েজ নয়।

যে চৌদ্দজনকে বিবাহ করা জায়েজ নয়। তারা হলেন-

وَلاَ تَنكِحُواْ مَا نَكَحَ آبَاؤُكُم مِّنَ النِّسَاء إِلاَّ مَا قَدْ سَلَفَ إِنَّهُ كَانَ فَاحِشَةً وَمَقْتًا وَسَاء سَبِيلاً (22)حُرِّمَتْ عَلَيْكُمْ أُمَّهَاتُكُمْ وَبَنَاتُكُمْ وَأَخَوَاتُكُمْ وَعَمَّاتُكُمْ وَخَالاَتُكُمْ وَبَنَاتُ الأَخِ وَبَنَاتُ الأُخْتِ وَأُمَّهَاتُكُمُ اللاَّتِي أَرْضَعْنَكُمْ وَأَخَوَاتُكُم مِّنَ الرَّضَاعَةِ وَأُمَّهَاتُ نِسَآئِكُمْ وَرَبَائِبُكُمُ اللاَّتِي فِي حُجُورِكُم مِّن نِّسَآئِكُمُ اللاَّتِي دَخَلْتُم بِهِنَّ فَإِن لَّمْ تَكُونُواْ دَخَلْتُم بِهِنَّ فَلاَ جُنَاحَ عَلَيْكُمْ وَحَلاَئِلُ أَبْنَائِكُمُ الَّذِينَ مِنْ أَصْلاَبِكُمْ وَأَن تَجْمَعُواْ بَيْنَ الأُخْتَيْنِ إَلاَّ مَا قَدْ سَلَفَ إِنَّ اللَّهَ كَانَ غَفُورًا رَّحِيمًا (سورة النساء-23

আর তোমরা ঐ সমস্ত নারীকে বিবাহ করো না, যাদেরকে তোমাদের পিতারা [বাপ-দাদা বা নারা] বিবাহ করেছেন। কিন্তু যা অতীত হয়েছে, নিশ্চয় তা অত্যন্ত নির্লজ্জতা ও খুব ঘৃণার বিষয় এবং খুব নিকৃষ্ট প্রথা। তোমাদের প্রতি হারাম করা হয়েছে তোমাদের মাতৃগণ এবং তোমাদের কন্যাগণ এবং তোমাদের বোনগণ এবং তোমাদের ফুপুগণ, এবং তোমাদের খালাগণ এবং ভ্রাতৃ কন্যাগণ এবং বোন কন্যাগণ এবং তোমাদের ঐ বোনগণ যারা দুধ পানের দরুন [বোন] হয়েছে , এবং তোমাদের স্ত্রীদের মাতৃগণ এবং তোমাদের স্ত্রীদের কন্যাগণ, যারা তোমাদের প্রতিপালনে রয়েছে এরূপ স্ত্রী থেকে, যাদের সাথে তোমরা শারিরিক সম্পর্ক করেছ। আর যদি তোমরা ঐ স্ত্রীদের সাথে শারিরিক সম্পর্ক না করে থাকো, তবে তোমাদের কোন গোনাহ হবে না। আর তোমাদের ঐ পুত্রগণের স্ত্রীগণ যারা তোমাদের ঔরসজাত। আর এটাও নিষিদ্ধ যে, দুই বোনকে একত্রে [বিবাহে] রাখবে। কিন্তু যা [এই হুকুমের] পূর্বে হয়েছে [তা মাফ]। নিশ্চয়ই আল্লাহ মহা ক্ষমাপরায়ন, অতীব করুণাময়। {সূরা নিসা-২২-২৩}

১- পিতা/মাতা

২- দাদা/দাদি

৩- নানা/নানি

৪-শ্বশুর/শ্বাশুরী

৫-দুধ মাতা/দুধ পিতা

৬-আপন বোন/ভাই

৭- দুধ বোন/দুধ ভাই

৮-ফুপী/চাচা

৯- মামা/খালা

১০- ছেলে/মেয়ে এবং তাদের স্ত্রী ও স্বামীগণ।

১১- ভাতিজা/ভাতিজী

১২- দুই বোনকে একত্রে বিবাহ করা বা এমন দুই মেয়েকে একত্রে বিবাহ করা হারাম যাদের একজনকে ছেলে ধরলে অপরের সাথে তাদের বিবাহ করা হারাম হয়। যেমন ফুপু ও ভাতিজিকে একসাথে বিবাহ করা হারাম। কারণ ভাতিজিকে ছেলে ধরলে ফুপুকে বিবাহ করা জায়েজ নয়, এমনিভাবে ফুপুকে ছেলে ধরলে ভাইয়ের মেয়েকে বিবাহ করা জায়েজ নয়, তাই তাদের একসাথে বিবাহ করা নিষিদ্ধ।

১৩- নাতী/নাতনী

১৪- পুতী/পুতীনী

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

আরও জানুন

বিয়ের অনুমতি প্রদানকারীর উপস্থিতিতে উকীল একজন সাক্ষীর সামনে বিয়ে করালে বিবাহ হবে?

প্রশ্ন আসসালামুআলাইকুম। আমার স্বামী আমাকে অজ্ঞাতাবসত তিন তালাক দেন। আমি দ্বীনের পথে আসার পর জানতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস