প্রচ্ছদ / তালাক/ডিভোর্স/হুরমত / দুই সময়ে একসাথে দুই তালাক দেয়ার দ্বারা কয় তালাক পতিত হয়?

দুই সময়ে একসাথে দুই তালাক দেয়ার দ্বারা কয় তালাক পতিত হয়?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম ।

নামঃ হৃদয় ভুইয়া

একলোক ১২ বছর আগে তার স্ত্রীকে রাগের মাথায় এক সাথে দুই তালাক দিয়েছে । ১২ বছর পর সে আবার রাগের মাথায় এক সাথে দুই তালাক দিয়েছে । এখন কয় তালাক গণ্য হবে ? আমি তালাক সম্পর্কিত ইসলামিক বিধি-বিধান জানতে চাই ?

আমি এই সম্পর্কে চাই ?

হুজুর, একজন মুসলমান হিসাবে আপনার কাছে আমার দাবি এই যে, দয়া করে আমার প্রশ্নের উত্ত গুলো দিবেন !

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

তালাক দেয়া ইসলামের মাঝে খুবই নিন্দনীয় কাজ। এটাকে হাদীসে নিকৃষ্ট হালাল বলে ঘোষণা করেছে। তাই অযথাই সামান্য বিষয়ে রাগারাগিতে এ মারাত্মক শব্দ উচ্চারণ করা উচিত নয়।

কাউকে ইচ্ছেকৃত খুন করলে যেমন খুন হয়, অনিচ্ছাকৃত খুন করলেও খুন হয়, ঠাট্টা করে খুন করলেও খুন হয়। রাগের মাথায় খুন করলেও খুন হয়, আবার খুশি হয়ে খুন করলেও খুন হয়। ঠিক তেমনি তালাক। ইচ্ছেকৃত হোক বা অনিচ্ছায় হোক, কিংবা মোহাব্বত করে হোক বা রাগাম্বিত অবস্থায় হোক সর্ববস্থায় তালাক পতিত হয়ে যায়। তাই এ মারাত্মক শব্দ উচ্চারণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

সে হিসেবে ১২ বছর আগে দুই তালাক দেয়ার পর যদি স্বামী স্ত্রী মিলে যায় তালাক পরবর্তী স্ত্রীর তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার আগে। তাহলে ১২ বছর পর আবার দুই তালাক দেয়ার দ্বারা এক তালাক পতিত হয়ে মোট তিন তালাক হয়ে স্ত্রী হারাম হয়ে গেছে। এ স্ত্রীকে আর ফিরিয়ে আনতে পারবে না।

তবে ১২ বছর আগে দুই তালাক দেয়ার পর স্ত্রীর তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার আগে স্ত্রীকে ফিরিয়ে না নিয়ে আসে, তথা স্বামী স্ত্রী হিসেবে মিলে গিয়ে থাকে যাকে ফিক্বহের পরিভাষায় রাজআত বলা হয়, তাহলে তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার দ্বারা উক্ত স্ত্রী স্বামী থেকে পৃথক হয়ে গিয়েছিল। তারা আর স্বামী স্ত্রী হিসেবে বাকি ছিল না। তাই পরবর্তী ১২ বছর পর দেয়া তালাক পতিতই হয়নি।

এক্ষেত্রে বিধান হল, দুই তালাক বা এক তালাক দেয়ার পর স্বামীর অধিকার থাকে, স্ত্রীকে ইদ্দত তথা তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার আগে রাজআত করা তথা স্ত্রীকে স্ত্রী হিসেবে ফিরিয়ে আনা। এতে কোন কিছুর প্রয়োজন নেই। কিন্তু যদি তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার আগে স্ত্রীকে ফিরিয়ে না আনা হয়, তাহলে স্ত্রীকে পুনরায় ফিরিয়ে আনতে নতুন করে মোহর ধার্য করে বিবাহ করা আবশ্যক। নতুবা স্বামী স্ত্রী হিসেবে উভয়ের বসবাস করা জায়েজ নয়।

এ মূলনীতির আলোকে আপনি উক্ত প্রশ্নে জবাব বের করে নিন। যদি ১২ বছর আগে দুই তালাক দেয়ার পর স্বামী তার স্ত্রীকে তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার আগে ফিরিয়ে এনে থাকে, তথা স্বামী স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে থাকে, তাহলে ১২ বছর পর আবার দুই তালাক দেয়ার দ্বারা তিন তালাক পতিত হয়ে স্বামীর জন্য উক্ত স্ত্রী হারাম হয়ে গেছে। আর তাকে রাখতে পারবে না।

পক্ষান্তরে যদি প্রথম দুই তালাকের পর তিন হায়েজ অতিক্রান্ত হওয়ার আগে স্ত্রীকে ফিরিয়ে না এনে থাকে, তাহলে উক্ত মহিলা স্বামীর স্ত্রী বাকি না থাকার কারণে ১২ বছর পরের তালাক পতিত হয়নি। কারণ উক্ত মহিলা তার স্ত্রীই নয়।

আশা করি বিষয়টি পরিস্কার ভাষায় বুঝতে পেরেছেন।

وفى الفتاوى الهندية-إذا كان الطلاق بائنا دون الثلاث فله أن يتزوجها في العدة وبعد انقضائها وإن كان الطلاق ثلاثا في الحرة وثنتين في الأمة لم تحل له حتى تنكح زوجا غيره نكاحا صحيحا (الفتاوى الهندية-1/472-473

তথ্যসুত্র

১. ফাতওয়ায়ে শামী-৪/৪৯৮-৫০০

২. ফাতওয়ায়ে আলমগীরী-১/৪৭২-৪৭৩

৩. আল জাওহারাতুন নায়্যিরাহ-২/১৬৭

৪. তাবয়ীনুল হাকায়েক-৩/৬৮

৫. ফাতওয়ায়ে দারুল উলুম দেওবন্দ-৯/৪৪১,২৪৫

وفى سنن الترمذى- حدثنا قتيبة حدثنا حاتم بن إسماعيل عن عبد الرحمن بن أدرك ( في التقريب والخلاصة أدرك ) عن عطاء عن ابن ماهك عن أبي هريرة قال : قال رسول الله صلى الله عليه و سلم ثلاث جدهن جد وهزل جد النكاح والطلاق والرجعة (سنن الترذى، كتباب الطلاق، باب ما جاء في الجد والهزل في الطلاق، رقم الحديث-1184

فى الفتاوى الهندية-وَإِذَا طَلَّقَ الرَّجُلُ امْرَأَتَهُ تَطْلِيقَةً رَجْعِيَّةً أَوْ تَطْلِيقَتَيْنِ فَلَهُ أَنْ يُرَاجِعَهَا فِي عِدَّتِهَا رَضِيَتْ بِذَلِكَ أَوْ لَمْ تَرْضَ كَذَا فِي الْهِدَايَةِ (الفتاوى الهندية-1/470، هداية-2/394

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

আরও জানুন

কুরবানীর জন্য মান্নত করা পশুতে কাউকে শরীক নিতে পারবে?

প্রশ্ন আসসালামু আলাইকুম হযরত.. একটি প্রশ্ন জানার ছিলো প্রশ্নটি হলো এক ব্যক্তির একটি গরু ছিলো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস