প্রচ্ছদ / আধুনিক মাসায়েল / তিয়ানসি ও মাল্টি লেভেল মার্কেটিং বিজনেসের শরয়ী হুকুম কি?

তিয়ানসি ও মাল্টি লেভেল মার্কেটিং বিজনেসের শরয়ী হুকুম কি?

প্রশ্ন

বাংলাদেশে প্রচলিত তিয়ানসি গ্রুপের সদস্য হয়ে বিজনেস করার শরয়ী হুকুম কি? প্রশ্নের সাথে এ কোম্পানীর পরিচিতি বই ও সিডিও পাঠানো হল।

প্রশ্নকর্তা- ওয়ালীউল্লাহ

রামপুরা, ঢাকা।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

প্রশ্নকর্তা জনাব মাওলানা ওয়ালী উল্লাহ সাহেবের লিখিত ও মৌখিক বক্তব্য এবং তিয়ানসির Òপ্রাতিষ্ঠানিক পরিচিতিÓ  বইটি পড়ে তিয়ানসি কোম্পানিতে অংশগ্রহণ শরয়ী দৃষ্টিকোণ থেকে বৈধ-অবৈধতার বিষয়টি নিম্নে দু’টি ভাগে আলোচিত হলো-

১.

তিয়ানসি গ্রুপের ব্যবসা কার্যক্রম পুরো শরীয়ত মোতাবিক বৈধ একথা বলা যাবেনা। কেননা বাংলাদেশের প্রাজ্ঞ মুফতীদের নিকট মাল্টি লেভেল মার্কেটিং ব্যবসা না জায়েয হবার যে সব কারণ সুস্পষ্ট তার অনেকগুলো তিয়ানসি গ্রুপের মাঝে বিদ্যমান। তাই মাল্টি লেভেল অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের ন্যায় তিয়ানসিও বর্জনীয়। যদি কোন ব্যক্তি পরিবেশক হয় নিজের কর্মকান্ড ছাড়াও তার মাধ্যমে যারা এই কোম্পানিতে ঢুকবে তাদের মাধ্যমে বিক্রিত পণ্যের কমিশন পেতে, তবে উক্ত প্রতিষ্ঠানে সে ব্যক্তির অন্তর্ভুক্তি শরয়ী দৃষ্টিকোণ থেকে বৈধ নয়, আরো সহজ করে এভাবে বলা যায় যে, ১ম ব্যক্তির মাধ্যমে অন্তর্ভুক্ত ডাউন লেভেলের ব্যক্তির নিজ উদ্যোগে বিক্রি করা পণ্যের কমিশন ১ম ব্যক্তির জন্য গ্রহণ শরয়ী দৃষ্টিকোণ থেকে জায়েয নয়, যা মূলত মাল্টি লেভেল মার্কেটিং এর মূল বিষয়। কারণ এতে শরয়ী নিষিদ্ধতার অনেক কারণ বিদ্যমান। যেমন জুয়া, শ্রমহীন মূল্য, মূল্যহীন শ্রম, এক চুক্তিতে দুই চুক্তি, ক্রয়বিক্রয়ের সাথে শর্তারোপ, অন্যের সম্পদ গ্রাস করা, ধোঁকা, প্রতারণা, ইত্যাদি।

وَلاَ تَأْكُلُواْ أَمْوَالَكُم بَيْنَكُم بِالْبَاطِلِ وَتُدْلُواْ بِهَا إِلَى الْحُكَّامِ لِتَأْكُلُواْ فَرِيقًا مِّنْ أَمْوَالِ النَّاسِ بِالإِثْمِ وَأَنتُمْ تَعْلَمُونَ (سورة البقرة-188) #

 عَنْ أَبِى هُرَيْرَةَ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- قَالَ « مَنْ حَمَلَ عَلَيْنَا السِّلاَحَ فَلَيْسَ مِنَّا وَمَنْ غَشَّنَا فَلَيْسَ مِنَّا صحيح مسلم – ج 1 / 69)

দারুল উলুম করাচির ফাতওয়া

1 2 3

দারুল উলমু দেওবন্দের ফাতওয়া-

India

   Question: 18698

میں ایک کاروبار کرنا چاہتاہوں۔کاروبار یہ ہے میں دینی بیان کی آڈیو سی ڈی جس میں معتبر علماء کے بیان ہوں گے کو سو روپیہ کی قیمت میں ایک شخص کو بیچوں گا اور اس سے کہوں گا کہ آپ اس سی ڈی کو صرف دو لوگوں کو فروخت کردو اس کے بدلے میں اس شخص کو میں بیس روپیہ دوں گا۔ دو لوگوں کے جن کو اس شخص نے سی ڈی بیچی ہے اس طرح جب وہ دو لوگ چار لوگوں کو سی ڈی بیچیں گے تو میں اس کے بدلے میں پہلے شخص کو پھر بیس روپیہ دوں گا، یعنی ایک شخص کے پانچ روپیہ چار کے بیس روپیہ ،پھر وہ چار لوگ آٹھ کو سی ڈی بیچیں گے تو پہلے شخص کو بیس روپیہ دوں گا اس طرح سلسلہ چلتا رہے گا ،اور اس سلسلہ میں سب کو منافع ملتا رہے گا جتنے لوگ اس سے جڑتے جائیں گے۔ اس میں مجھ کو ایک سی ڈی پر پچیس روپیہ کا منافع ہوگا۔ یہ ایک ملٹی لیول مارکیٹنگ کاروبار کا تصور ہے، کیا کاروبار کرنا جائز ہے؟ اس میں دین کا بھی فائدہ ہوگا لوگ اگر دین کی بات سن کر عمل کریں گے تو جتنے لوگ جڑیں گے سب کو فائدہ ہوگا۔ ایسا کوئی کاروبار کرسکتے ہیں یا نہیں؟

   07 Feb, 2010

   Answer: 18698

فتوی(ب): 197=198-2/1431

مذکورہ بالا طریقہ پر سی ڈی کو فروخت کرنا اور اس کے بدلے میں مزید پیسے دینا شرعاً درست نہیں۔ یہ ملٹی لیول مارکیٹنگ کاروبار کا تصور ہماری اسلامی شریعت میں جائز نہیں ہے۔


والله تعالیٰ اعلم

دارالافتاء، دارالعلوم دیوبند

নিম্নে বর্ণিত সবকটি শর্ত ও পদ্ধতি পাওয়া গেলে একটি সুরত জায়েয হবার সুযোগ রয়েছে।

তিয়ানসি গ্রুপের পণ্য বিপননের জন্য যদি কেউ নিজের কর্মকান্ড দ্বারা পণ্য বিক্রয় করে কমিশন পাবার মানসে এই কোম্পানির পরিবেশক হবার আবেদন একটি স্বতন্ত্র ফরম পূরণ করে ১২০০ টাকার বিনিময়ে করে, যাতে পূর্ণাঙ্গ পরিবেশক হবার জন্য আগ্রহী ব্যক্তির নিজের জন্য পণ্য কিনা বা এ জাতীয় কোন শর্তারোপ না থাকে অর্থাৎ কেবল প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ ১২০০ টাকা দিলেই পরিবেশক হিসেবে গণ্য হয়ে যায়, আর এই ১২০০ টাকার বিনিময়ে সে কোম্পানি থেকে পরিচয়পত্র ও অন্যান্য বই পত্তর ইত্যাদি পায়, তবে পরিবেশক হওয়া ব্যক্তির জন্য তার নিজের মাধ্যমে উক্ত প্রতিষ্ঠান থেকে জায়েজ পণ্য বিক্রি করে কমিশন গ্রহণ জায়েজ আছে। এক্ষেত্রে পরিবেশক ব্যক্তি ফিক্বহী পরিভাষায়  اجير مشترك (আজীরে মুশতারাক তথা যতটুকু শ্রম ততটুকু মুল্য পাওয়ার চুক্তিকারী) হবে।

   ( الأجراء على ضربين : أجير مشترك ، وأجير خاص .                

فالمشترك من لا يستحق الأجرة حتى يعمل كالصباغ والقصار ) ؛ لأن المعقود عليه إذا كان هو العمل أو أثره كان له أن يعمل للعامة ؛ لأن منافعه لم تصر مستحقة لواحد ، فمن هذا الوجه يسمى مشتركا (فتح القدير-كتاب الاجارات، باب ضمان الأجير)

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

আরও জানুন

স্বপ্নদোষের কথা মনে না থাকা অবস্থায় কাপড়ে বীর্য দেখা ও সূর্যোদয়ের পর সুন্নাত পড়া প্রসঙ্গে

প্রশ্ন From: নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিষয়ঃ নামায প্রশ্নঃ আসসালামু আলাইকুম মুফতি সাহেব । যদি প্রশ্নটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস