প্রচ্ছদ / তাসাউফ / তাসাওউফের সিলসিলার সনদ হযরত আলী রাঃ এর মাধ্যমেই কেন?

তাসাওউফের সিলসিলার সনদ হযরত আলী রাঃ এর মাধ্যমেই কেন?

প্রশ্ন

শ্রদ্ধেয় মুফতী সাহেব! আপনাদের নানামুখী ইলমী খিদমাতের মাধ্যমে আমাদের অনেক উপকার হচ্ছে আলহামদুলিল্লাহ। আমরা দুআ করি আল্লাহ তাআলা আপনাদের খিদমাতকে কবুল করুন। আপনাদের প্রতিষ্ঠানের সকল প্রয়োজন আল্লাহ তাআলা তার কুদরতী খাজানা থেকে পূর্ণ করে দিন।

মুফতী সাহেব! আমার আজকের প্রশ্ন হল, আমাদের দেশে প্রচলিত যতগুলো হকপন্থী পীর মাশায়েখ আছেন। তাদের সকলের পীর মুরীদির সনদ হযরত আলী রাঃ এর মাধ্যমে রাসূলসাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পর্যন্ত। অন্য কোন সাহাবীর মাধ্যমে নবী পর্যন্ত কেন যায়নি? এ বিষয়ে আপনাদের সুচিন্তিত মতামত আশা করছি।

আহমদুল্লাহ। ঢাকা, বাংলাদেশ।

উত্তর

بسم الله الرحمن الرحيم

এ প্রশ্নটি আপাত দৃষ্টিতে খু্বই গুরুত্বপূর্ণ মনে হলেও মৌলিকত্বের বিচারে এটি একটি অহেতুক প্রশ্ন। কোন একটি বিষয়ের সিলসিলা কারো থেকে চালু হওয়া, আর অন্য কারো থেকে চালু না হওয়া কোন দোষনীয় বিষয় নয়।

হাদীস সকল সাহাবীই জানতেন। কিন্তু সবচে’ বেশি হাদীসের সনদ মিলে গিয়ে হযরত আবূ হুরায়রা রাঃ এর সাথে। এমন অনেক সাহাবী আছেন, যাদের থেকে কোন হাদীসই বর্ণিত হয়নি।

হাদীস বর্ণনা করেননি বলে কি সাহাবীগণ হাদীস জানতেন না?

তারা হাদীসের বিরোধী ছিলেন?

নাহু সরফ তথা আরবী ব্যকরণ সবাই জানতেন। কিন্তু আরবী ব্যকরণের সনদ কিন্তু হযরত আলী রাঃ এরটাই প্রসিদ্ধ।

প্রশ্ন হতে পারে এটি হযরত আলী পর্যন্ত কেন? তাহলে বাকি সাহাবীগণ কি আরবী ব্যকরণের বিরোধী ছিলেন? কিংবা আরবী ব্যকরণ পছন্দ করতেন না?

এসব প্রশ্ন করা যেমন বাতুলতা, সময়ক্ষেপন ও হাস্যকর। তেমনি হযরত আলী রাঃ এর মাধ্যমে তাসাওউফের সনদ নবীজী সাঃ পর্যন্ত গেল কেন? এ প্রশ্নটিও হাস্যকর ও অপ্রয়োজনীয়।

আমাদের কাছে অহেতুক প্রশ্ন মনে হলেও যেহেতু প্রশ্নটি উঠে এল, তাই দু’টি জবাব প্রদান করা হল,

তাসাওউফের সনদ শুধু হযরত আলী রাঃ এর মাধ্যমেই নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পর্যন্ত গিয়েছে কথাটি ঠিক নয়।

অন্য সাহাবী দ্বারাও তাসাওউফের সনদ নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পর্যন্ত প্রমাণিত আছে। যেমন সিদ্দীকিয়া নকশবন্দীয়া নিযামিয়া কুদ্দুসিয়া শাজারার সিলসিলা হযরত আবু বকর রাঃ এর মাধ্যমে নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পর্যন্ত সূত্রবদ্ধ হয়েছে। [তাযকিরাতুর রশীদ-২/১০৮, মাকতাবা খলীলিয়া]

সুতরাং তাসাওউফের সনদ শুধু হযরত আলী রাঃ এর দ্বারাই নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম পর্যন্ত সূত্রবদ্ধ কথাটি ঠিক নয় তা দিবালোকের ন্যায় সুষ্পষ্ট।

হযরত আলী রাঃ থেকেই তাসাওউফের সনদ চালু হওয়া অধিক যৌক্তিক। কারণ হযরত আলী রাঃ এমন ব্যক্তিত্ব যার কাছে কুরআন ও হাদীস, আমাদের প্রিয় নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর আমলী নমুনা, তারপর পূর্ববর্তী চার খলীফার ঈমান ও আমলী নমুনা সামনে ছিল। তাই হযরত আলী রাঃ এর কাছে পূর্ববর্তী খলীফাদের আখলাকী আমলী বিষয়াবলী সমন্বয় হয়েছিল। তাছাড়া হযরত আলী রাঃ পরবর্তী হবার কারণে তার থেকে জারী হওয়া আমলী বিষয় পূর্ববর্তীদেরই সূত্রবদ্ধ আমল হওয়াকে বুঝায়। তাই হযরত আলী রাঃ এর সূত্রে তাসাওউফের সনদ সূত্রবদ্ধ হওয়া এ সিলসিলার মর্যাদাকেই সমুচ্চ করে। কারণ এতে করে পূর্ববর্তী খলীফাদেরও সূত্রবদ্ধ করে দেয়।

আল্লাহ তাআলা আমাদের অহেতুক প্রশ্ন করা এবং অহেতুক প্রশ্নের পিছনে সময় নষ্ট করা থেকে আমাদের হিফাযত করুন। আমীন।

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা- জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

ব্যান্ডেজের উপর মাসাহকারীর পিছনে অযুকারীর নামায হবে কি?

প্রশ্ন: মুহতারাম মুফতি সাহেব, একবার আমাদের ইমাম সাহেব বাইক চালাতে গিয়ে হাতে ব্যাথা পান। যার …