প্রচ্ছদ / জায়েজ নাজায়েজ / এক খাতের জন্য কালেকশনকৃত টাকা অন্য খাতে ব্যয় করা যাবে কি?

এক খাতের জন্য কালেকশনকৃত টাকা অন্য খাতে ব্যয় করা যাবে কি?

প্রশ্ন

 

আচ্ছালামুআলাইকুম ওরাহমাতুল্লাহ, আমি দুটি মাসয়ালা জানতে আগ্রহী ।

১. আমি ১টি মকতবের জন্য কিছু টাকা কালেকশন করেছিলাম কিন্তু ঐ মাদরাসাটি বর্তমানে সম্পূর্ণ বন্ধ এখন ঐ টাকা কি করবো ?

২. আমি এক মাদরাসার ওয়াজ মাহফিলে ঐ মাদরাসার জন্য প্রতি মাসে কিছু নির্দিষ্ট পরিমান টাকা দেয়ার ওয়াদা করি কিন্তু বর্তমানে আমি ঐ মাদরাসা থেকে অনেক দূরে, সবসময় পৌছানো সম্ভব হয় না, উক্ত টাকা কাছের কোন মাদরাসায় দিতে পারবো বা কি করতে পারি জানিয়ে বাধিত করবেন ।

 

ধন্যবাদান্তে –

হুসাইন আহমাদ

বরগুনা, বাংলাদেশ 

জবাব

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

১ নং এর জবাব

এক্ষেত্রে চাঁদাদাতাকে মাদরাসা বন্ধ হয়ে গেছে বিষয়টি জানিয়ে তার সম্মতিতে অন্য কোন দ্বীনী মাদরাসায় দিয়ে দিন। {ফাতওয়া মাহমুদিয়া-২৩/১৪২}

 

২ নং এর জবাব

প্রতিমাসে দান করবেন বলার দ্বারা আপনার মান্নত সংঘটিত হয়নি। তাই আপনি যদি প্রতিমাসে উক্ত মাদরাসায় নির্ধারিত অর্থ পৌঁছাতে না পারেন, তাহলে আপনি এতে গোনাহগার হবেন না। তবে আপনি সাধ্যতিত চেষ্টা করুন ওয়াদাকৃত অর্থ উক্ত মাদরাসায় ডাকযোগে বা অন্যকোনভাবে পৌঁছাতে। তারপরও প্রতিবন্ধকতার কারণে পৌঁছাতে না পারলে আপনার উপর শরয়ী দৃষ্টিকোণ থেকে কোন কিছু আবশ্যক হবে না।

فى رد المحتار- ( ومن نذر نذرا مطلقا أو معلقا بشرط وكان من جنسه واجب ) أي فرض كما سيصرح به تبعا للبحر والدرر ( وهو عبادة مقصودة ) خرج الوضوء وتكفين الميت ( ووجد الشرط ) المعلق به ( لزم الناذر ) لحديث ” { من نذر وسمى فعليه الوفاء بما سمى } ” ( كصوم وصلاة وصدقة ) ووقف ( واعتكاف ) وإعتاق رقبة وحج ولو ماشيا فإنها عبادات مقصودة ، ومن جنسها واجب لوجوب العتق في الكفارة والمشي للحج على القادر من أهل مكة والقعدة الأخيرة في الصلاة ، وهي لبث كالاعتكاف ، ووقف مسجد للمسلمين واجب على الإمام من بيت المال وإلا فعلى المسلمين ( ولم يلزم ) الناذر ( ما ليس من جنسه فرض كعيادة مريض وتشييع جنازة ودخول مسجد )

وفى صحيح البخارى- عن أبي هريرة عن النبي صلى الله عليه و سلم قال

 : ( آية المنافق ثلاث إذا حدث كذب وإذا وعد أخلف وإذا اؤتمن خان ) (صحيح البخارى، كتاب الايمان، باب علامة المنافق، رقم الحديث-33

তথ্যসূত্র

১-ফাতওয়া আলমগীরী-৫/৫১৫-৫১৮/

২-বাদায়েউস সানায়ে-৪/২২৮

৩-ফাতওয়া তাতারখানিয়া-৬/২৮১

৪-সহীহ আল বুখারী, হাদীস নং-৩৩

والله اعلم بالصواب

উত্তর লিখনে

লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালকতালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

ইমেইল- ahlehaqmedia2014@gmail.com

lutforfarazi@yahoo.com

আরও জানুন

মুসলমানের জন্য কাফেরের সাথে বিবাহ করার হুকুম কী?

প্রশ্ন From: সারওয়ার বিষয়ঃ অমুসলিম বা কাফের এর সাথে সম্পর্ক করা যাবে কি না?? প্রশ্নঃ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস