হোম / প্রশ্নোত্তর / সরকারী খরচে হজ্জে গেলে হজ্জ কবুল হবে কি?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

সরকারী খরচে হজ্জে গেলে হজ্জ কবুল হবে কি?

প্রশ্ন

আস সালামু আলাইকুম,

প্রশ্ন হল: যে কোন ব্যক্তি যদি সরকারী টাকা দিয়ে হজে যায়। তাহলে হজকারী কি হজের পুরা ছওয়াব পাবে? জরুরি সমাধান জানালে ভাল হয়।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

সরকারী খরচে হজ্বে গেলে হাজী পূর্ণ সওয়াবই পাবে ইনশাআল্লাহ। যদি ইখলাসের সাথে হজের শর্তাবলী পূর্ণরূপে আদায় করে।

সরকারের হজ্জে নেবার বিষয়টি সরকারের পক্ষ থেকে হাদিয়া ও সহযোগিতা ধরা হবে। আর কারো আর্থিক সহযোগিতায় হজ্জে যেতে কোন সমস্যা নেই।

তবে যদি জানা যায় যে, হারাম টাকা দিয়ে পাঠানো হচ্ছে, তাহলে হজ্জে যাওয়া যেমন জায়েজ হবে না। তেমনি হজ্জ কবুলও হবে না।

قال الفقيه ابو الليث: اختلف الناس فى أخذ الجائزة من السلطان، قال بعضهم: يجوز مالم يعلم أنه يعطيه من حرام، قال محمد: وبه نأخذ مالم نعرف شيئا حراما لعينه (هندية، قديم-5/342، جديد-5/396)

إن عمر بن الخطاب كان يعطيهم العطاء ولا يزكيه (مصنف ابن ابى شيبة-6/528، رقم-10569)

غالب مال المهدى إن كان حلالا، لا بأس بقبول هديته وأكل ماله مالم يتبين أنه من حرام (مجمع الأنهر-4/186، بزازية على هامش الهندية-6/360، جديد-3/203، قاضي خان على هامش الهندية-3/400، جديد-3/289)

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: «إِذَا خَرَجَ الرَّجُلُ حَاجًّا بِنَفَقَةٍ طَيِّبَةٍ، وَوَضَعَ رِجْلَهُ فِي الْغَرْزِ، فَنَادَى: لَبَّيْكَ اللَّهُمَّ لَبَّيْكَ، نَادَاهُ مُنَادٍ مِنَ السَّمَاءِ: لَبَّيْكَ وَسَعْدَيْكَ، زَادُكَ حَلَالٌ، وَرَاحِلَتُكَ حَلَالٌ، وَحَجُّكُ مَبْرُورٌ غَيْرُ مَأْزُورٍ، وَإِذَا خَرَجَ بِالنَّفَقَةِ الْخَبِيثَةِ، فَوَضَعَ رِجْلَهُ فِي الْغَرْزِ، فَنَادَى: لَبَّيْكَ، نَادَاهُ مُنَادٍ مِنَ السَّمَاءِ: لَا لَبَّيْكَ وَلَا سَعْدَيْكَ، زَادُكَ حَرَامٌ وَنَفَقَتُكَ حَرَامٌ، وَحَجُّكَ غَيْرُ مَبْرُورٍ»

হযরত আবূ হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, যখন কোন ব্যক্তি হালাল সম্পদ নিয়ে হজ্জ করতে বের হয়। বাহনে পা রাখে। উচ্চারণ করে: লাব্বাইক! আল্লাহুম্মা লাব্বাইক! তখন আসমান থেকে ঘোষক ঘোষণা দেয়:লাব্বাইক ওয়া সা’দাইক তথা তোমার কল্যাণ হোক। তোমার আসবাব হালাল। তোমার বাহন হালাল। আর তোমার হজ্ব মকবুল।

আর যদি হারাম সম্পদ নিয়ে হজ্বে বের হয়। বাহনে পা রাখে। আর মুখে বলে: লাব্বাইক! তখন আসমান থেকে একজন ঘোষক ঘোষণা দেয়: লা লাব্বাইক ওয়া লা সা’দাইক তথা তোমার লাব্বাইক মকবুল নয়। তোমার আসবাব হারাম। তোমার ভরণপোষণের ব্যয় হারাম। তোমার হজ্বও মকবুল নয়। [মু’জামে আওসাত, হাদীস নং-৫২২৮]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

ডাক্তারের জন্য নির্দিষ্ট কোম্পানীর ওষুধ লিখা বাবদ ওষুধ কোম্পানী থেকে প্রাপ্ত অর্থ গ্রহণের হুকুম কী?

ফাতাওয়া নং-২৩৭০ প্রশ্ন আমি পেশায় একজন চিকিৎসক। রোগীর চিকিৎসার জন্য আমরা ডাক্তাররা বিভিন্ন কম্পানির ঔষধ …