হোম / আধুনিক মাসায়েল / ইনকাম ট্যাক্স থেকে বাঁচতে জাল ভাউচার বা সঞ্চয়পত্র ক্রয় করার হুকুম কী?
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

ইনকাম ট্যাক্স থেকে বাঁচতে জাল ভাউচার বা সঞ্চয়পত্র ক্রয় করার হুকুম কী?

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম।

আমি একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি করি । প্রতি বসর আমাকে আয়কর ( ট্যাক্স) দিতে হয় । আমার কোম্পানি পলিছি অনুযায়ী প্রতি মাসে ট্যাক্স এর নুন্যতম  টাকা কেটে নেওয়া হয় । বসর শেষে যেই টাকা কমতি হয় তা কাটা হয় । তবে কেউ যদি চলতি বসরে ইনভেস্টমেন্ট দেখায় তাহলে অতিরিক্ত টাকা আর দিতে হয় না । কিছু মৌকুফ পাওয়া যায় । ইনভেস্টমেন্ট গুলু হলো ১) কম্পিউটার ক্রয় ২) ল্যাপটপ ক্রয় ৩) ব্যাঙ্ক ডিপিস ৪) সঞ্চয় পত্র ইত্যাদি ।

আমার প্রশ্ন গুলু নিন্মরূপ :

১) অধিকাংশ চাকরিজীবিরা যা করে থাকেন তা  হলো , তারা একটা কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ক্রয়ের রশিদ বা ভাউচার প্রিন্ট করে জমা দিয়ে দেয় । অথচ তারা তা ক্রয় করে নাই । জায়েজ হবে ? আমার দৃষ্টিতে মনে হয় হারাম হবে কারণ এইটা মিথ্যা । তবে তারা যুক্তি দেয় যে , ট্যাক্স তো শরীয়তের বিধান না । শরীয়তের বিধান তো যাকাত । সুতরাং জায়েজ ।

২) কিছু চাকরিজীবি জুন মাসে সঞ্চয় পত্র ক্রয় করে | এই সঞ্চয় পত্রের কাগজ ট্যাক্স অফিস এ  জমা দেয় । আবার জুলাই মাস আসলে সঞ্চয় পত্র ভাঙিয়ে ফেলে । এইখানে কোনো কিছুই মিথ্যা হয় নাই । সব কাগজ পত্র আসল । তবে নিয়ত হচ্ছে আয়করের কিছু অংশ মৌকুফ করিয়ে নেওয়া । এইটা কি জায়েজ হবে ?

যদি দিতীয় কাজটি জায়েজ হয় তবে আমার অনেক গুলু টাকা বেচে যায় । একটু দ্রুত জানালে উপকৃত হব ।

আহালে হক মিডিয়ার প্রচার ও  প্রসার এর জন্য অনেক দুয়া ও শুভ কামনা ।

মোহাম্মদ ফারুক
সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ।
বাসা : খিলক্ষেত , তালেরটেক,
ঢাকা – ১২২৯ ।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

এ পদ্ধতিতে ধোঁকা ও মিথ্যার আশ্রয় নেবার কারণে একাজ করা জায়েজ হবে না। ইনকাম ট্যাক্স শরয়ী বিধান না হলেও মিথ্যা ও ধোঁকা থেকে বাঁচাতো শরয়ী বিধান। তাই ইনকাম ট্যাক্স থেকে বাঁচার জন্য শরয়ী বিধান লঙ্ঘণ করা কিভাবে জায়েজ হতে পারে?

সঞ্চয়পত্র মূলত একটি সূদভিত্তিক লেনদেন। তাই এ থেকে বেঁচে থাকা আবশ্যক। তবে যদি শুধুমাত্র ইনকাম ট্যাক্স থেকে বাঁচার জন্য সঞ্চয়পত্র সাময়িক ক্রয় করে তা আবার একমাসের মধ্যেই বাতিল করা হয়, স্বল্প মেয়াদে চুক্তিটি বাতিল করার কারণে কোন প্রকার সুদী কার্যক্রমে জড়িত হবার সম্ভাবনা না থাকে, তাহলে এভাবে কৌশলে ট্যাক্স থেকে বাঁচার সুযোগ আছে। [মুস্তাফাদ-কামুসুল ফিক্বহ-৩/৩১১]

কিন্তু যদি সুদভিত্তিক লেনদেনে জড়াতে হয়, তাহলে ইনকাম ট্যাক্স থেকে বাঁচার জন্য হলেও সঞ্চয়পত্র ক্রয় করা জায়েজ হবে না।

قوله تعالى- وَاجْتَنِبُواْ قَوْلَ الزُّورِ  [الحج-30

এবং মিথ্যা কথা থেকে বাঁচো। {সূরা হজ্জ্ব-৩০}

عَنْ أَبِى هُرَيْرَةَ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ -صلى الله عليه وسلم- قَالَ « مَنْ حَمَلَ عَلَيْنَا السِّلاَحَ فَلَيْسَ مِنَّا وَمَنْ غَشَّنَا فَلَيْسَ مِنَّا (صحيح مسلم، كتاب الايمان، باب قَوْلِ النَّبِىِّ – صلى الله تعالى عليه وسلم – « مَنْ غَشَّنَا فَلَيْسَ مِنَّا، رقم الحديث-294(

হযরত আবু হুরায়রা রাঃ থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন-যে আমার উম্মতের উপর অস্ত্র উঁচু করে সে আমার উম্মতভূক্ত নয়, আর যে আমাদের সাথে ধোঁকাবাজী করে, সেও আমার উম্মতভূক্ত নয়। {সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-২৯৪, সহীহ ইবনে হিব্বান, হাদীস নং-৫৫৫৯, সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-২২২৫, সুনানে দারেমী, হাদীস নং-২৫৪১, মুসনাদে আহমাদ, হাদীস নং-১৫৮৩৩, মুসনাদুল বাজ্জার, হাদীস নং-৩৭৯৭, মুসনাদে ইবনে আবী শাইবা, হাদীস নং-৭২১}

عبد الله بن مسعود عن أبيه عن النبي صلى الله عليه وسلم قال لعن الله آكل الربا وموكله وشاهديه وكاتبه

হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ রাঃ এর পিতা থেকে বর্ণিত। রাসূল সাঃ ইরশাদ করেছেন-“যে সুদ খায়, যে সুদ খাওয়ায়, তার সাক্ষী যে হয়, আর দলিল যে লিখে তাদের সকলেরই উপর আল্লাহ তায়ালা অভিশাপ করেছেন। (মুসনাদে আহমাদ, হাদিস নং-৩৮০৯, মুসনাদে আবি ইয়ালা, হাদিস নং-৪৯৮১)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক ও প্রধান মুফতী – মা’হাদুত তালীম ওয়াল  বুহুসিল ইসলামিয়া ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া ফারূকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

মাছের রক্ত পাক নাকি নাপাক?

প্রশ্ন: মুহতারাম , গৃামের মহিলারা মাছ কাটার সময় সাবধানতা অবলম্বন করে না, ফলে তাদের শরীরে …