হোম / দিফায়ে ফিক্বহে হানাফী / সাহু সেজদা দেবার সুন্নাহ সম্মত পদ্ধতি কী? দলীলসহ জানতে চাই!
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

সাহু সেজদা দেবার সুন্নাহ সম্মত পদ্ধতি কী? দলীলসহ জানতে চাই!

প্রশ্ন

From: সাইফুল্লাহ
বিষয়ঃ সাহু সেজদা

প্রশ্নঃ
আসসালামু আলাইকুম।আশা করি ভালো আছেন। হুজুর আমি এই সাইটের নিয়মিত একজন পাঠক।  আমার প্রশ্ন হল নামাজের মধ্য কোন ভুল হলে যে সাহু সেজদা করতে হয় এর সঠিক পদ্ধতি কী।দলিল সহ জানালে উপকৃত হবো ইনশাআল্লাহ।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

সাহু সেজদা দেবার পদ্ধতি হল, শেষ বৈঠকে সালাম ফিরানোর পর দু’টি সেজদা দিবে। তারপর তাশাহুদ, দুআয়ে মাসুরা পড়ে বাকি নামায যথারীতি পূর্ণ করে সালাম ফিরাবে।

قَالَ عَبْدُ اللَّهِ صَلَّى النَّبِيُّ صلى الله عليه وسلم ـ قَالَ إِبْرَاهِيمُ لاَ أَدْرِي زَادَ أَوْ نَقَصَ ـ فَلَمَّا سَلَّمَ قِيلَ لَهُ يَا رَسُولَ اللَّهِ، أَحَدَثَ فِي الصَّلاَةِ شَىْءٌ قَالَ ‏”‏ وَمَا ذَاكَ ‏”‏‏.‏ قَالُوا صَلَّيْتَ كَذَا وَكَذَا‏.‏ فَثَنَى رِجْلَيْهِ وَاسْتَقْبَلَ الْقِبْلَةَ، وَسَجَدَ سَجْدَتَيْنِ ثُمَّ سَلَّمَ، فَلَمَّا أَقْبَلَ عَلَيْنَا بِوَجْهِهِ قَالَ ‏”‏ إِنَّهُ لَوْ حَدَثَ فِي الصَّلاَةِ شَىْءٌ لَنَبَّأْتُكُمْ بِهِ، وَلَكِنْ إِنَّمَا أَنَا بَشَرٌ مِثْلُكُمْ، أَنْسَى كَمَا تَنْسَوْنَ، فَإِذَا نَسِيتُ فَذَكِّرُونِي، وَإِذَا شَكَّ أَحَدُكُمْ فِي صَلاَتِهِ فَلْيَتَحَرَّى الصَّوَابَ، فَلْيُتِمَّ عَلَيْهِ ثُمَّ يُسَلِّمْ، ثُمَّ يَسْجُدْ سَجْدَتَيْنِ ‏”‏‏.( رَوَاه الْبُخَارِىُّ فِىْ بَابِ التَّوَجُّهِ نَحْوَ القِبْلَةِ حَيْثُ كَانَ)‏

হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ রা. বলেন: রসূলুল্লাহ স. নামায পড়লেন। রাবী ইবরাহীম রহ. বলেন: আমার জানা নেই, তিনি বেশী করেছেন বা কম করেছেন। সালাম ফেরানোর পরে বলা হলো: ইয়া রসূলাল্লাহ! নামাযের মধ্যে কি নতুন কিছু হয়েছে? তিনি বললেন: তা কী? তাঁরা বললেন: আপনি তো এরূপ এরূপ নামায আদায় করেছেন। রসূলুল্লাহ স. তখন দু’পা ঘুরিয়ে কিবলামুখী হলেন এবং আরও দু’টি সিজদা করলেন। এরপর সালাম ফিরালেন। অতঃপর তিনি আমাদের দিকে ফিরে বললেন: যদি নামায সম্পর্কে নতুন কিছু  হতো, তাহলে অবশ্যই আমি তোমাদেরকে জানিয়ে দিতাম। কিন্তু আমি তো মানুষ; তোমরা যেমন ভুল করে থাক, আমিও ভুল করি। সুতরাং আমি কখনও ভুল করলে তোমরা আমাকে স্মরণ করিয়ে দিবে। আর তোমাদের কেউ নামাযে সন্দেহে পড়লে সে যেন নিঃসন্দেহ হওয়ার চেষ্টা করে এবং সে অনুযায়ী নামায পুরো করে। অতঃপর সালাম ফিরিয়ে দু’টি সিজদা আদায় করে। (বুখারী: ৩৯২)

عَنْ عِمْرَانَ بْنِ حُصَيْنٍ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صلى الله عليه وسلم صَلَّى الْعَصْرَ فَسَلَّمَ فِى ثَلاَثِ رَكَعَاتٍ ثُمَّ دَخَلَ مَنْزِلَهُ فَقَامَ إِلَيْهِ رَجُلٌ يُقَالُ لَهُ الْخِرْبَاقُ وَكَانَ فِى يَدَيْهِ طُولٌ فَقَالَ يَا رَسُولَ اللَّهِ. فَذَكَرَ لَهُ صَنِيعَهُ. وَخَرَجَ غَضْبَانَ يَجُرُّ رِدَاءَهُ حَتَّى انْتَهَى إِلَى النَّاسِ فَقَالَ « أَصَدَقَ هَذَا ». قَالُوا نَعَمْ. فَصَلَّى رَكْعَةً ثُمَّ سَلَّمَ ثُمَّ سَجَدَ سَجْدَتَيْنِ ثُمَّ سَلَّمَ.(رَوَاه مُسْلِمٌ فِىْ بَابِ السَّهْوِ فِي الصَّلَاةِ وَالسُّجُودِ لَهُ)

হযরত ইমরান বিন হুছইন রা. থেকে বর্ণিত: রসূলুল্লাহ স. আছরের নামায পড়ালেন এবং তৃতীয় রাকাতে সালাম ফিরিয়ে ঘরে চলে গেলেন। অতঃপর খিরবাক নামীয় লম্বা হাত বিশিষ্ট একজন সাহাবী রসূলুল্লাহ স.-এর নিকটে গেলেন এবং ‘ইয়া রসূলাল্লাহ’ বলে ডাক দিয়ে রসূলুল্লাহ স. যা করেছেন তা উল্লেখ করলেন। রসূলুল্লাহ স. রাগান্বিত অবস্থায় চাদর টানতে টানতে বের হলেন এবং লোকদের কাছে এসে বললেন: এ লোকটি কি ঠিক বলেছে? সাহাবায়ে কিরাম বললেন: হ্যাঁ। অতঃপর রসূলুল্লাহ স. এক রাকাত নামায পড়ালেন। অতপর (সাহু সিজদার) সালাম ফেরালেন তরপর দুটি সিজদা করলেন এবং পুনরায় সালাম ফেরালেন। (মুসলিম: ১১৭১)

عَنْ عَبْدِ اللَّهِ بْنِ مَسْعُودٍ، أَنَّ النَّبِيَّ صلى الله عليه وسلم صَلَّى الظُّهْرَ خَمْسًا فَقِيلَ لَهُ أَزِيدَ فِي الصَّلاَةِ فَسَجَدَ سَجْدَتَيْنِ بَعْدَ مَا سَلَّمَ ‏.‏ قَالَ أَبُو عِيسَى هَذَا حَدِيثٌ حَسَنٌ صَحِيحٌ ‏( رَوَاه التِّرمٍذِىْ فِىْ بَابِ مَا جَاءَ فِي سَجْدَتَيِ السَّهْوِ بَعْدَ السَّلاَمِ وَالكَلاَمِ) ‏

হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ রা. বলেন: রসূলুল্লাহ স. যোহরের নামায পাঁচ রাকাত পড়লেন। তাঁকে বলা হলো: নামাযে কি বৃদ্ধি করা হয়েছে? অতঃপর তিনি সালাম ফেরানোর পরে দু’টি সিজদা করলেন। ইমাম তিরমিজী রহ. বলেন: এ হাদীসটি হাসান-সহীহ। (তিরমিজী: ৩৯২)

عَنْ أَبِي هُرَيْرَةَ قَالَ سَجَدَ رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ سَجْدَتَيْ السَّهْوِ بَعْدَ السَّلَام

হযরত আবু হুরাইরা রা. থেকে বর্ণিত: রসূলুল্লাহ স. সালামের পরে দু’টি সিজদায়ে সাহু করেছেন। (মুসনাদে আহমাদ: ১০৮৮৭)

حَدَّثَنَا سُفْيَانُ، عَنْ مَنْصُورٍ، عَنْ إِبْرَاهِيمَ، عَنْ عَلْقَمَةَ، عَنْ عَبْدِ اللهِ: أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ سَجَدَهُمَا بَعْدَ السَّلَامِ ، وَقَالَ مَرَّةً: ” إِنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ سَجَدَ السَّجْدَتَيْنِ فِي السَّهْوِ بَعْدَ السَّلَامِ

হযরত আলকামা রহ. থেকে বর্ণিত: হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ রা. বলেন: রসূলুল্লাহ স. সালামের পরে দু’টি সিজদা করেছেন। কখনও বলেন: রসূলুল্লাহ স. সালামের পরে দু’টি সিজদায়ে সাহু করেছেন। (মুসনাদে আহমাদ: ৩৫৭০)

حَدَّثَنَا أَبُو مُعَاوِيَةَ ، عَنْ زِيَادِ بْنِ سَعْدٍ ، عَنْ ضَمْرَةَ بْنِ سَعِيدٍ ، عَنْ أَنَسٍ ؛ أَنَّهُ سَجَدَ سَجْدَتَيَ السَّهْوِ بَعْدَ السَّلاَمِ.

হযরত আনাস রা. থেকে বর্ণিত: তিনি সালামের পরে দুটি সিজদায়ে সাহু করেছেন। (ইবনে আবী শাইবা: ৪৪৭০)

حَدَّثَنَا يَزِيدُ بْنُ هَارُونَ عَنْ أَشْعَثَ عَنِ الشَّعْبِيِّ أَنَّ سَعْدًا  وَعَمَّارًا سَجَدَاهُمَا بَعْدَ التَّسْلِيمِ

হযরত ইমাম শা’বী রহ. থেকে বর্ণিত: হযরত সা’দ ও হযরত আম্মার রা. সালামের পরে দু’টি সিজদায়ে সাহু করেছেন (ইবনে আবী শাইবা: ৪৪৭৬)

উল্লেখ্য, উপরোক্ত সহীহ হাদীসসমূহে রসূলুল্লাহ স. এবং সাহাবায়ে কিরামের আমল বর্ণিত হয়েছে যে, তাঁরা সালামের পরে সাহু সিজদা করতেন। এ সব দলীলের ভিত্তিতে আমরা সালামের পরে সিজদায়ে সাহু করে থাকি। এর বিপরীতে সালামের পূর্বে সিজদায়ে সাহু করার কথাও সহীহ হাদীসে বর্ণিত আছে। সে সব হাদীসের ভিত্তিতে কেউ যদি সালামের পূর্বে সিজদায়ে সাহু করে তাহলেও সিজদায়ে সাহু আদায় হয়ে যাবে।

সিজদায়ে সাহুর সালামের পরে তাশাহহুদ পড়া

حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ يَحْيَى قَالَ: حَدَّثَنَا مُحَمَّدُ بْنُ عَبْدِ اللَّهِ الْأَنْصَارِيُّ، قَالَ: أَخْبَرَنِي أَشْعَثُ، عَنْ ابْنِ سِيرِينَ، عَنْ خَالِدٍ الْحَذَّاءِ، عَنْ أَبِي قِلَابَةَ، عَنْ أَبِي الْمُهَلَّبِ، عَنْ عِمْرَانَ بْنِ حُصَيْنٍ، «أَنَّ النَّبِيَّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ صَلَّى بِهِمْ فَسَهَا، فَسَجَدَ سَجْدَتَيْنِ، ثُمَّ تَشَهَّدَ، ثُمَّ سَلَّمَ»، «هَذَا حَدِيثٌ حَسَنٌ غَرِيبٌ»، قال الحاكم فى المستدرك هَذَا حَدِيثٌ صَحِيحٌ عَلَى شَرْطِ الشَّيْخَيْنِ،

হযরত ইমরান বিন হুসাইন রা. থেকে বর্ণিত, নবী কারীম স. তাদেরকে নামায পড়ালেন এবং ভুল করলেন। ফলে তিনি দু’টি সিজদা করলেন অতঃপর তাশাহহুদ পড়লেন তারপরে সালাম ফিরালেন। (তিরমিজী-৩৯৫, ইবনে খুযায়মা-১০৬২, আবু দাউদ-১০৩৯, ইবনে হিব্বান-২৬৭০, মুসতাদরাকে হাকেম-১২০৭)

حَدَّثَنَا عَبَّادُ بْنُ الْعَوَّامِ، عَنْ حُصَيْنٍ، عَنْ إِبْرَاهِيمَ، عَنْ عَبْدِ اللَّهِ قَالَ: «فِيهِمَا تَشَهُّدٌ»

হযরত আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ রা. বলেন, সিজদায়ে সাহুর সালামে তাশাহহুদ রয়েছে। (ইবনে আবি শাইবা-৪৪৯৩)

حَدَّثَنَا أَبُو مُعَاوِيَةَ، عَنِ الْأَعْمَشِ، عَنْ إِبْرَاهِيمَ، أَنَّهُ «سَجَدَ سَجْدَتَيِ السَّهْوِ، فَتَشَهَّدَ فِيهِمَا، ثُمَّ سَلَّمَ»

হাদীস নম্বর-২২৭ : হযরত ইবরাহীম নাখঈ রহ. থেকে বর্ণিত আছে যে, তিনি দু’টি সিজদায়ে সাহু করলেন তারপরে তাশাহহুদ পাঠ করলেন। অতঃপর সালাম ফিরালেন। (ইবনে আবি শাইবা-৪৪৯৪)

حَدَّثَنَا ابْنُ عُلَيَّةَ، عَنْ سَلَمَةَ بْنِ عَلْقَمَةَ قَالَ: سُئِلَ مُحَمَّدُ بْنُ سِيرِينَ، عَنْ سَجْدَتَيِ الْوَهْمِ فِيهِمَا تَشَهُّدٌ؟ قَالَ: «أَحَبُّ إِلَيَّ أَنْ يُتَشَهَّدَ فِيهِمَا»

হযরত সালামা বিন আলকামা রহ. থেকে বর্ণিত, হযরত মুহাম্মাদ বিন সীরীন রহ.কে জিজ্ঞেস করা হলো যে, সিজদায়ে সাহুতে কি তাশাহহুদ আছে? তিনি বলেন, আমার নিকট তাশাহহুদ পাঠ করাই বেশী প্রিয়।  (ইবনে আবি শাইবা-৪৪৯৫)

حَدَّثَنَا شَبَابَةُ قَالَ: حَدَّثَنَا شُعْبَةُ، عَنِ الْحَكَمِ، وَحَمَّادٍ، أَنَّهُمَا قَالَا: «يَتَشَهَّدُ فِي سُجُوَدِ السَّهْوِ، ثُمَّ يُسلِّمُ»

হযরত হাম্মাদ বিন আবি সুলায়মান এবং হাকাম বিন উতায়বা রহ. থেকে বর্ণিত আছে যে, সিজদায়ে সাহুতে তাশাহহুদ পাঠ করবে অতঃপর সালাম ফিরাবে। (ইবনে আবি শাইবা-৪৫০০)

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা-জামিয়া ফারুকিয়া দক্ষিণ বনশ্রী ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

Print Friendly, PDF & Email
বিস্তারিত জানতে ছবির উপর টাচ করুন

এটাও পড়ে দেখতে পারেন!

ওকীল মুয়াক্কিলের টাকা দিয়ে নিজের নামে জমি কিনলে হুকুম কী?

প্রশ্ন From: M M S Hossain বিষয়ঃ ক্রয়-বিক্রয় আচ্ছালামু আলাইকুম জনাব আমার থেকে এক ব্যক্তি …