প্রচ্ছদ / কুরবানী/জবেহ/আকীকা / কুরবানীর পশুকে কুকুর কামড়ালে করণীয় কী?

কুরবানীর পশুকে কুকুর কামড়ালে করণীয় কী?

প্রশ্ন

From: মোঃ ইকবাল হোসাইন
বিষয়ঃ মান্নত
আসসালামুয়ালাইকুম ওয়ারাহ মাতুল্লাহ
প্রশ্ন
হুজুর আমার কাছে একটা ছাগল আছে, সেটা হঠাৎ  অসুস্থ হয়ে যায় তখন আমি মান্নত করি আমার এই ছাগল টা সুস্থ হলে আমি এটা দিয়ে কুরবানী  করবো, পরে যখন ছগল টা সুস্থ হয় তাকে কুকুরে কামড় দেয়, এখন আমার প্রশ্ন হল আমি ছাগল টা কি করবো? যদি খেয়ে ফেলি রোগ হওয়ার আশংকা আছে, যদি বিক্রি করে ফেলি তাহলে কি  আল্লাহর দরবারে আমি কোন প্রশ্নের সম্মুখীন হবো ? জানালে খুব উপকৃত হবো।

উত্তর

وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

بسم الله الرحمن الرحيم

এ বিষয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। কুকুর কামড়ালে ছাগলটির যদি জলাতঙ্ক রোগ হয়ে থাকে, তাহলে উক্ত বকরীর গোস্ত খাওয়া যাবে না। কারণ এতে করে জলাতঙ্ক রোগটি খাদ্রগ্রহণকারী ব্যক্তির মাঝে সংক্রমণ হবার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। যেহেতু এখনো জলাতঙ্ক রোগের কোন প্রতিশেধক বাংলাদেশে পাওয়া গেছে বলে আমাদের জানা নেই, তা এটি মরণঘাতি একটি ব্যাধি।

তাই এক্ষেত্রে খুবই সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।

সুতরাং কুকুর কামড়ানো দ্বারা উক্ত ছাগলের জলাতঙ্ক রোগ হলে, তাকে বিক্রি করা কিছুতেই বৈধ হবে না। বরং উক্ত পশুটিকে জবাই করে পুতে ফেলা উচিত।

আর যদি কুকুর কামড় দেয়ার জলাতঙ্ক বা এমন কোন ক্ষতিকর রোগ না হয়ে থাকে, তাহলে সেটি দিয়ে কুরবানী করাতে কোন সমস্যা নেই।

عَنْ عُبَيْدِ بْنِ فَيْرُوزَ، قَالَ: سَأَلْتُ الْبَرَاءَ بْنَ عَازِبٍ مَا لَا يَجُوزُ فِي الْأَضَاحِيِّ. فَقَالَ: قَامَ فِينَا رَسُولُ اللَّهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ وَأَصَابِعِي أَقْصَرُ مِنْ أَصَابِعِهِ، وَأَنَامِلِي أَقْصَرُ مِنْ أَنَامِلِهِ فَقَالَ: ” أَرْبَعٌ لَا تَجُوزُ فِي الْأَضَاحِيِّ – فَقَالَ -: الْعَوْرَاءُ بَيِّنٌ عَوَرُهَا، وَالْمَرِيضَةُ بَيِّنٌ مَرَضُهَا، وَالْعَرْجَاءُ بَيِّنٌ ظَلْعُهَا، وَالْكَسِيرُ الَّتِي لَا تَنْقَى

উবায়েদ বিন ফাইরূজ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি বারা বিন আযেব রাঃ কে জিজ্ঞাসা করেছিলাম যে, কুরবানীর জন্য কোন ধরণের পশু অবৈধ [অর্থাৎ জবাইয়ের অযোগ্য] তখন তিনি বলেন, একদা রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের মাঝে দাঁড়ান। আমার আঙ্গুলগুলো তার আঙ্গুল হতে ছোট এবং আমার আঙ্গুলগুলোরে গিরাগুলোও তার আঙ্গুলের গিরা থেকে ছোট ছিল। তিনি চারটি আঙ্গুল দিয়ে ইশারা করে বলেন, চার ধরণের পশু কুরবানী করা অবৈধ। ১ স্পষ্ট কানা। ২ অসুস্থ্য যা স্পষ্ট বুঝা যায়, ৩ লেংড়া, যা বাহ্যত দেখা যায় ৩ এত দুর্বল যে, হাড় বেরিয়ে গেছে। [আবু দাউদ, হাদীস নং-২৮০২, ইবনে মাজাহ, হাদীস নং-৩১৪৪]

عَنْ أَنَسِ بْنِ مَالِكٍ، عَنِ النَّبِيِّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: «لَا يُؤْمِنُ أَحَدُكُمْ حَتَّى يُحِبَّ لِأَخِيهِ مَا يُحِبُّ لِنَفْسِهِ

হযরত আনাস বিন মালিক রাঃ থেকে বর্নিত। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, তোমাদের কেউ প্রকৃত মুমিন হতে পারবে না, যতক্ষণ না সে তার ভাইয়ের জন্য তা পছন্দ করবে, যা সে নিজের জন্য পছন্দ করে। [বুখারী, হাদীস নং-১৩]

والله اعلم بالصواب
উত্তর লিখনে
লুৎফুর রহমান ফরায়েজী

পরিচালক-তালীমুল ইসলাম ইনষ্টিটিউট এন্ড রিসার্চ সেন্টার ঢাকা।

উস্তাজুল ইফতা– জামিয়া কাসিমুল উলুম সালেহপুর, আমীনবাজার ঢাকা।

মুহাদ্দিস-জামিয়া উবাদা ইবনুল জাররাহ, ভাটারা ঢাকা।

ইমেইল– ahlehaqmedia2014@gmail.com

আরও জানুন

কবরবাসী জিয়ারতকারীর সালাম শুনতে পায় এবং পরিচিতজনকে চিনতে পারে?

প্রশ্ন প্রশ্নকারীর নাম: —————- ফয়সাল আহমাদ ঠিকানা: —————- গুনবতী,কুমিল্লা জেলা/শহর: —————- কুমিল্লা দেশ: —————- বাংলাদেশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আহলে হক্ব বাংলা মিডিয়া সার্ভিস